মোদির জন্মদিন আসতেই বিশাল কর্মসূচির আয়োজন

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ৭১ তম জন্মদিবস উপলক্ষে এবার রাজ্যে বিশাল কর্মসূচির আয়োজন করা হচ্ছে। আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন। সেদিন বিজেপির তরফে একাধিক কর্মসূচির আয়োজন করা হচ্ছে। সেদিন থেকেই শুরু হবে বিজেপির বিশেষ কাজ, চলবে ৭ অক্টোবর পর্যন্ত। রাজ্যে যুব, মহিলা মোর্চা নেতৃত্বকে পৃথকভাবে কর্মসূচির দায়িত্ব বণ্টন করে দেওয়া হয়েছে। সোমবার সাংবাদিক বৈঠক করে এসব বিস্তারিত জানালেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। লক্ষ্য একটাই। আরও নিবিড় জনসংযোগ। মানুষের আরও কাছাকাছি পৌঁছনো। একুশের নির্বাচনে প্রত্যাশিত ফলাফল না হলেও অঙ্কের হিসেবে বঙ্গ রাজনীতিতে কলেবরে বেড়েছে বিজেপি।

তাই জনসংযোগ আরও বাড়ানোর লক্ষ্যে নতুন করে ঝাঁপিয়ে পড়ছেন গেরুয়া শিবিরের নেতারা। আর প্রধানমন্ত্রী মোদির জন্মদিনকে সামনে রেখে নতুন করে কর্মসূচি নিলেন তাঁরা। ২০ দিন ব্যাপী সেই কর্মসূচিতে রয়েছে একাধিক প্রকল্প। এদিকে ১৭ সেপ্টেম্বর মোদির জীবনী ফুটিয়ে তোলা হবে । নমো আপের মাধ্যমে ভার্চুয়ালি প্রদর্শন হবে।

এছাড়া মোদী কুইজ , মোদী মেলা তো থাকছেই। এছাড়া এদিন রক্তদান শিবির, স্বাস্থ্য পরীক্ষা থাকবে। এছাড়া ফল বিতরণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এছাড়া জলদূষণ রুখতে নমোমি গঙ্গা এই প্রকল্প ঐদিন উদ্বোধন করা হবে।  অর্থাৎ মোদীজির এই ৭১ তম জন্মদিনে বিশাল আয়োজন অপেক্ষা করছে বলাই যায় । 


এবার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ৪০০০ টাকা পেতে, এই কাজগুলি জেনে নিন

 প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি প্রকল্পের অধীনে এবার সাহায্যের পরিমাণ ৪০০০ টাকা করার পরিকল্পনা চলছে। এই পরিস্থিতিতে যদি এখনও কোনও কৃষক এই প্রকল্পের সুবিধা না পেয়ে থাকেন, তাহলে তাঁর কাছে একবারে ৪০০০ টাকা পাওয়ার সুবর্ণসুযোগ রয়েছে। ইতিমধ্যেই অগস্ট-নভেম্বর ত্রৈমাসিকে ১০.২৭ কোটি মানুষের অ্যাকাউন্টে ২০০০ টাকা ঢুকেছে। এই প্রকল্পের সঙ্গে মোট ১২.১৪ কোটি কৃষক জুড়েছেন। এই করোনা অতিমারীতে বহু কৃষক কাজ হারিয়েছে। তাছাড়া অর্থের অভাব।

এই পরিস্থিতিতে যে সকল কৃষক এখনও প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি প্রকল্পের অধীনে নিজেদের নাম নথিভুক্ত করেননি, তাঁরা যদি ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নিজেদের নাম নথিভুক্ত করেন, তাহলে একবারে তাঁধের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ৪০০০ হাজার টাকা ঢুকবে। আবেদন গৃহীত হলেই অক্টোবর বা নভেম্বরে সংশ্লিষ্ট কৃষকের অ্যাকাউন্টে ২০০০ টাকা ঢুকবে।

ফের ডিসেম্বরেই আরও ২০০০ টাকা ঢুকবে  তাঁর অ্যাকাউন্টে। এদিকে নাম নথিভুক্ত করতে চাইলে pmkisan.gov.in - ওয়েবসাইটে গিয়ে প্রয়োজনীয় নথি আপলোড করতে হবে। তবে যদি কেউ রাজ্য বা কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মচারী হয়ে থাকেন এবং তাঁর মাসিক বেতন ১০ হাজার টাকার বেশি হয়ে থাকে, তাহলে তিনি এই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন না। তাছাড়া ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, আইনজীবী, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট, বর্তমান বা পূর্ব মন্ত্রী, মেয়র, পঞ্চায়েতের অধ্যক্ষ, এমএলসি, লোকসভা বা রাজ্যসভার সদস্যরাও এই সুবিধা পাবেন না।


Modi: তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর জরুরি বৈঠক

সামনেই তৃতীয় ঢেউ আসছে।অক্টোবরের মধ্যেই ভারতে আছড়ে পড়তে পারে করোনা ভাইরাসের আরও এক রূপ. বহু বিশেষজ্ঞই এই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। বস্তুত দেশের করোনা পরিসংখ্যানেও নিত্যদিনের ওঠাপড়া অব্যাহত। এরই মধ্যে সামগ্রিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে রিভিউ মিটিং করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি । সূত্রের খবর, গোটা দেশের করোনা পরিস্থিতি কেমন? আধিকারিকদের কাছে খোঁজখবর নেওয়ার পাশাপাশি টিকাকরণের পরিস্থিতি নিয়েও তথ্য নেন প্রধানমন্ত্রী।এক সাংবাদিক বৈঠক করে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব সাংবাদিক বৈঠক করে দাবি করেছেন দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের  প্রভাব এখনও বর্তমান। সুতরাং এখনই করোনা বিধিতে কোনওরকম ঢিলেমি করা যাবে না।

আসলে কেন্দ্রের আশঙ্কা, উৎসবের মরশুমে দেশজুড়ে করোনার সংক্রমণ বাড়তে পারে। সেজন্যই বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে চায় সরকার।এই মুহূর্তে দেশের দুটি রাজ্য তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কায় কাঁপছে। এক, কেরল এবং দুই, মহারাষ্ট্র। দেশের মোট দৈনিক সংক্রমণের প্রায় ৮০ শতাংশই আসছে এই দুই রাজ্য থেকে। শুধু তাই নয়, এখনও দেশের ৩৫টি জেলায় পজিটিভিটি রেট ১০ শতাংশের বেশি। ৩০টি রাজ্যে এই সংক্রমণের হার ৫ থেকে ১০ শতাংশের মধ্যে। এই জেলাগুলি করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের বিরুদ্ধে লড়তে কতটা প্রস্তুত, সেটাও এদিন খতিয়ে দেখেছেন প্রধানমন্ত্রী।

Modi: কাবুলে সন্ত্রাস মুক্ত করার বার্তা মোদির

চিনকে ‘পাশে নিয়ে’ কাবুলের মাটিকে সন্ত্রাসমুক্ত করার বার্তা দিল ভারত। ‘ব্রিকস’ গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির বৈঠকের পর ‘দিল্লি ঘোষণাপত্র’কে কূটনৈতিক জয় হিসেবেই দেখাতে চাইছে সাউথ ব্লক।তালিবান কাবুলের দখল নেওয়ার পরই স্বীকৃতি দিয়েছিল বেজিং। মস্কোও তালিবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়। পরে রাষ্ট্রপুঞ্জে আফগানিস্তান সংক্রান্ত প্রস্তাবে ভোটাভুটি বয়কট করে চিন এবং রাশিয়া।

তবে ‘ব্রিকস’ গোষ্ঠীর (ভারত, রাশিয়া, চিন, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ব্রাজিল) পঞ্চদশ শীর্ষ বৈঠকের পর প্রকাশিত ঘোষণাপত্রে আফগানিস্তানের মাটিকে অন্য দেশের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের কাজে ব্যবহার হতে না দেওয়ার আহ্বান দেওয়া রয়েছে। সাউথ ব্লক ঘরোয়া ভাবে জানাচ্ছে, গত এক মাসে পশ্চিম এশিয়ার পট পরিবর্তনে ক্রমশ চাপ বাড়ছিল ভারতের। 

চিন এবং রাশিয়াকে সঙ্গে নিয়ে আফগানিস্তান সংক্রান্ত নির্দিষ্ট সন্ত্রাস-বিরোধী নথি তৈরি করতে পারায়, কিছুটা কূটনৈতিক স্বস্তি মিলল বলেই দাবি বিদেশ মন্ত্রকের।পাকিস্তানকেও জোরালো বার্তা দেওয়া উদ্দেশ্য ছিল নয়াদিল্লির। এ দিনের ঘোষণাপত্রে পাকিস্তানের নাম না করে বলা হয়েছে, ‘যে কোনও ধরনের সন্ত্রাসবাদের ঘোর নিন্দা করছি আমরা। তা সে যে কারণই দেখানো হোক বা যে-ই করুক না কেন। আমরা যে কোনও ধরনের সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলা করার জন্য প্রস্তুত।


শিক্ষক দিবসে শিক্ষক-শিক্ষিকার প্রশংসনীয় বার্তা মোদির

করোনা অতিমারীর মতো কঠিন সময়ে শিক্ষকরা যেভাবে পড়ুয়াদের শিক্ষা দেওয়ার ভূমিকা গ্রহণ করেছেন তা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে। রবিবার শিক্ষক দিবস উপলক্ষে এমনটাই বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রধানমন্ত্রী, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এস রাধাকৃষ্ণনের জন্মবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন যা শিক্ষক দিবস হিসাবে পালিত হয়।

এই কঠিন সময়ে কিন্তু শিক্ষক-শিক্ষিকারা পঠন-পাঠনের দিকে যথেষ্ট খেয়াল রেখেছে। মোদি টুইট করে বলেন, "শিক্ষক দিবসে সমগ্র শিক্ষক সমাজকে শুভেচ্ছা, যাঁরা সবসময় তরুণ মনকে লালন -পালন করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।" তিনি আরও বলেন, "কোভিডের সময়ে শিক্ষকরা যেভাবে শিক্ষার্থীদের পড়ানোর কাজ অব্যাহত রেখেছেন তা  প্রশংসনীয়।"

এদিন টুইট বার্তায় ডঃ সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণনকে তাঁর জন্মজয়ন্তী শ্রদ্ধা জানাই এবং তাঁর বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব ও জাতির অবদানের কথা স্মরণ করি।" শিক্ষাকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার বার্তা দিলেন। পিছিয়ে না পড়তে এছাড়া ভবিষ্যতে নিজেকে মহান কাজে উৎসর্গ করার কথা জানান। 


প্রশ্নের জবাবে তৈরী সরকার,বার্তা মোদির

করোনা আবহে সংসদের বাদল অধিবেশন শুরু। তার ঠিক ২৪ ঘণ্টা আগেই ‘পেগাসাস প্রজেক্ট’ অর্থাৎ দেশের মন্ত্রী, নেতা, বিচারপতি-সহ প্রায় শ তিনেক হাইপ্রোফাইল ব্যক্তির ফোনে ‘আড়ি পাতা’ কাণ্ডে উত্তপ্ত দেশ। সংসদের অধিবেশনে এই বিষয়টি বড়সড় ঝড় তুলতে পারে বলে আশঙ্কা। তার আঁচ হয়ত টের পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও ।

এদিন সকালে সংসদে প্রবেশের আগে বার্তা দিতে গিয়ে তাঁর আবেদন, ”সরকার সব প্রশ্নের উত্তর দিতে তৈরি। কিন্তু সংসদ কক্ষের শান্তি বজায় রেখে সরকারে সেই উত্তর দিতে দিন।” সংসদের বাইরেও দলনেতাদের সঙ্গে নানা আলোচনা চান বলেও জানালেন তিনি। জোর দিলেন সাংসদদের টিকাকরণের উপর। বললেন, ”বাহুতে টিকা নিলেই করোনার বিরুদ্ধে বাহুবলী হয়ে ওঠা যাবে।” এদিকে অধিবেশন শুরুতেই তোলপাড় হওয়ার কথা ছিল. প্রতিনিয়ত যেহারে পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি চলছে তাতে উত্তাল হয়ে উঠেছে গোটা দেশ. এদিন তৃণমূল সাংসদেরা সাইকেল চালিয়ে পৌঁছল সংসদে। ইতিমধ্যে বাদল অধিবেশনে পেট্রোপণ্যের পাশাপাশি পেগাসাস প্রসঙ্গ নিয়ে তোলপাড় চলছে।

Breaking ঃ কারা জায়গা পেতে পারেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়,একনজরে

নয়াদিল্লিঃ আজ সন্ধ্যায় মোদী মন্ত্রিসভার সম্প্রসারণ হতে চলেছে। নতুন মন্ত্রিসভার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে জরুরি বৈঠক চলছে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে। সূত্রের খবর, একাধিক নতুন মুখের আগমন ঘটতে চলেছে মোদীর নতুন মন্ত্রিসভায়।
একনজরে দেখে নিন, সম্ভাব্য নতুন মুখ  

 ১) জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া
 ২) সর্বানন্দ সোনোয়াল
 ৩) ভূপেন্দ্র যাদব
 ৪) অনুরাগ ঠাকুর
 ৫) মীনাক্ষী লেখি
৬) অনুপ্রিয়া প্যাটেল
৭) অজয় ভট্ট
৮) শোভা করান্ডজলে
৯) সুনিতা দুগ্গা
১০) প্রীতম মুন্ডে
১১)  শান্তনু ঠাকুর
১২) নারায়ণ রানে
১৩) কপাইল পাতিল
 ১৪) পশুপতি নাথ পারাস্ত
১৫) আরসিপি সিং
১৬) জি কৃষ্ণ রেড্ডি
১৭)  পুরুষোত্তম রূপালা
১৮)  অশ্বিনী বৈষ্ণব
১৯) বিজয় সোনকর
২০) নিশীথ প্রামাণিক

বিস্তারিত আসছে --

নীতীশের বায়নাক্কা বাড়ছে

নরেন্দ্র মোদি তাঁর মন্ত্রিসভা সম্প্রসারিত করছেন । এই মুহূর্তে কেন্দ্রীয় সরকারি দল বিজেপির অবস্থান অত্যন্ত খারাপ । মূল্যবৃদ্ধি থেকে করোনা প্রতিটি বিষয়ে চাপে সরকার তারই মধ্যে সাম্প্রতিক নির্বাচনে ফল খুব আশাব্যাঞ্জক নয় । এই মুহূর্তে মন্ত্রিসভা সম্প্রসারিত বা রদবদল করে পরিবর্তন আনতে চাইছেন মোদি শাহ । এনডিএ র অধিকাংশ শরিক আর মোদিরাজ এবং তার পলিসি নিয়ে অখুশি । এই সময়ে বিহারের অন্যতম শরিক জেডি (ইউ) দর বাড়াতে চাইছে ।

২০১৯ এর নির্বাচনের পর মোদি, নীতীশকুমারকে ১টি মন্ত্রিত্ব দিতে চেয়েছিলেন কিন্তু নীতীশ সেই আবেদন মানেন নি । এবারে দাবি ছিল দুটি মন্ত্রিত্ব এবং অন্দরের কথা তাতে রাজিও ছিল কেন্দ্রীয় বিজেপি । কিন্তু আজই ডিগবাজি । এখন নীতীশের দাবি ৪ টি পদ । আচমকা এই দাবিতে স্তম্ভিত কেদ্রীও বিজেপি ।

মোদী-মমতাকে বাংলাদেশের আম পাঠাল হাসিনা

রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্য বাংলাদেশের আম উপহার পাঠাচ্ছেন সে দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ রবিবার ভারত ও বাংলাদেশের পেট্রাপোল বর্ডা দিয়ে ভারতে পৌঁছবে ওই আম। জানা গিয়েছে, তিন জনের জন্য মোট ২৬০০ কেজি হাড়িভাঙা জাতের আম পাঠাচ্ছেন হাসিনা। এতে দুই দেশের মধ্যে কুটনৈতিক সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহল।

এর আগে শেখ হাসিনা বাংলাদেশের ইলিশ মাছ পাঠিয়েছেন, এবার সে দেশের সেরা আম পাঠালেন। অন্যদিকে করোনাকাল ভারত সরকার ভ্যাকসিন পাঠিয়েছে বাংলাদেশে।

যদিও অভিন্ন নদীর জল বণ্টন বাংলাদেশ এবং ভারতের মধ্যে এক দীর্ঘমেয়াদী অমিমাংসিত ইস্যু। দু'দেশের মধ্যে ১৯৯৬ সালে একমাত্র গঙ্গা নদীর জল বণ্টনের চুক্তি স্বাক্ষর হলেও তিস্তাসহ আলোচনায় থাকা ৮টি নদীর জল  ভাগাভাগির ব্যাপারে এখনও কোনও সমাধান হয়নি।

নিশ্চিন্তে টিকা নিন! বার্তা প্রধানমন্ত্রীর

করোনা টিকাকরণ ফের দেশবাসীকে বার্তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রবিবার অর্থাৎ আজ 'মন কি বাত' অনুষ্ঠানে তিনি সকল জনগণের উদ্দেশ্যে জানালেন,'টিকা নিন সকলেই। ভয়ের কোনও কারণ নেই।  আপনাদের প্রত্যেককে বলছি, বিজ্ঞানকে বিশ্বাস করুন। আমাদের বিজ্ঞানীদেরও বিশ্বাস করুন। দেশে প্রচুর মানুষ টিকা নিয়েছেন। টিকা নিয়ে যে নেতিবাচক গুজব ছড়াচ্ছে, তাতে কান দেবেন না'।

যদিও একবছর আগেও প্রশ্ন ছিল,টিকা কবে আসবে।তবে এবছরে দেশে টিকা আসতেই ইতিমধ্যে সমস্ত জায়গায় টিকাকরণ শুরু হয়ে গেছে। এদিকে ৮৬ লাখের বেশি মানুষ বিনামূল্যে টিকা দিতে পারছে। টিকা নিয়ে যে গুজব ছড়াচ্ছে ,তাকে সরিয়ে রেখে প্রত্যেককে দিতে হবে টিকা। এমনই বার্তা দিলেন নরেন্দ্র মোদি।




রামজন্মভূমি তুরুপের তাস মোদির

আসন্ন উত্তরপ্রদেশ এবং ত্রিপুরা বিধানসভা নিয়ে মহা চিন্তায় কেন্দ্রীয় বিজেপি | দুটি রাজ্যের মানুষ বর্তমান সরকার নিয়ে খুশি নয় | কর্মহীন মানুষ সবচেয়ে বেশি উত্তরপ্রদেশে তার সঙ্গে করোনা সংকট তো আছেই | টিকা করণ হয়েছে নামমাত্র এই প্রদেশে | মোদি প্রমুখেরা শোনা যাচ্ছে যোগীকে বাদ দিয়ে নতুন মুখের সন্ধানে ছিলেন কিন্তু সঙ্ঘ পরিবারের চেইপ তা আর সম্ভব হয় নি বলে সূত্রের খবর | মোদির প্রধান চিন্তা ২০২৪ এর লোকসভা , যেখানে উত্তরপ্রদেশে সবচেয়ে বেশি আসন |

ভাবনা চিন্তা করে কেন্দ্র বিজেপি তথা মোদি ঠিক করছেন আগামী বিধানসভা নির্বাচনে রামমন্দিরকেই ইস্যু করবেন তারা | তার অযোধ্যাকে আধ্যাত্মিক এবং পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে ফোকাস করবেন | বিশ্বজুড়ে স্মার্ট সিটির যে রমরমা তাতে রামমন্দিরকে বা অযোধ্যাকে স্মার্ট সিটির আখ্যা দিতে চলেছেন তারা | কিন্তু শুধু রামমন্দির দিয়ে ভোট জেতা যায় কি ? মানুষের কর্মহীনতা, স্বাধীনতা এবং পিটার খিদে নিয়েই যে আগামী ভোট তা বলাই বাহুল্য |  

১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সকল নাগরিককে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন, ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

করোনা টিকাকরণ নিয়ে এবার কেন্দ্রের বড়সড় সিদ্ধান্ত। আগামী ২১ জুন থেকে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে বিনামূল্যে টিকা দেবে ভারত সরকার। ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এখন থেকে টিকাকরণের জন্য রাজ্যগুলিকে আর অর্থ বায় করতে  হবেনা. আজ জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে  তিনি জানালেন , অনেক রাজ্যে টিকাকরণের সমস্যা হচ্ছে, সেই সমস্যা মেটাতে কেন্দ্র নাগরিকদের টিকাকরণের দায়িত্ব নিল। তবে নাগরিকরা চাইলে  বেসরকারি হাসপাতালে টিকা নিতেই  পারে। সেক্ষেত্রে বেসরকারি হাসপাতালে টিকার দামের ওপর আরও ১৫০ টাকা সার্ভিস চার্জ দিতে হবে. এই বিষয়টি রাজ্য সরকারকে দেখে নিতে হবে. যদিও নরেন্দ্র মোদি এদিন এও বললেন, এখনও পর্যন্ত ২৩ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে। গতবছর টিকা টাস্ক ফোর্স তৈরি করা হয়েছে । আরও দ্রুত টিকা সরবরাহ বাড়বে। অন্যদিকে নভেম্বর মাস পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার কথা জানালেন। এছাড়া ভারত সফলভাবে টিকাকরণ চালাচ্ছে, এমনটাই জানালেন নরেন্দ্র মোদি।

আজ জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ প্রধানমন্ত্রীর

নয়াদিল্লি: সোমবার বিকেল ৫ টায় জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ অনেকটা স্তিমিত। প্রধানমন্ত্রী দফতর সূত্রের খবর, দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ও টিকাকরন নিয়েই মূলত আজ তিনি ভাষণ দেবেন। দেশে করোনার  দ্বিতীয় স্ট্রেনে কিছুটা পরিস্থিতি স্থিতিশীল। এছাড়া কমেছে মৃত্যু হার।  যদিও এই পরিস্থিতিতে ঠিক কি নিয়ে আজকে তাঁর ভাষণ,তা নিয়ে চলছে এখন থেকেই জল্পনা। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তেই তা কিছুটা হলেও এখন স্থিতিশীল। ফের তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা। তার আগেই সাধারণ মানুষকে সচেতন করতেই সম্ভাব্য প্রধানমন্ত্রীর এই ভাষণ। গত ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৬৩৬ জন। মৃতের সংখ্যা ২৪২৭ জন। এর আগে করোনার  দ্বিতীয় পর্যায়ে নরেন্দ্র মোদি একাধিক ভাষণ দিয়েছেন। এছাড়া লকডাউন করার জারি সওয়াল করেছেন। এবার ঠিক কি বিষয় নিয়ে তিনি বলতে চলেছেন তা এখন দেখার অপেক্ষয়।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খুনের হুমকি!

নয়াদিল্লিঃ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খুনের হুমকি! গতকাল রাতে এক যুবক পুলিশকে ফোন করে বলে "আমি মোদীকে খুন করতে চাই"। এমনটাই  দিল্লি পুলিশ সূত্রে খবর।

কেন মোদীকে খুনের হুমকি ?

সলমন নামে এক যুবক, সদ্য জামিনে মুক্তি পায়। সে জেল থেকে বেরিয়েই পুলিশকে ফোন করে জানায়,  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খুন করবো, যদি না আমাকে ফের জেলে পাঠায়। কারণ আমি জেলেই থাকতে চাই। যদিও তারপরই তত্পরতার সঙ্গে দিল্লির খাজুরি খাস থানার পুলিশ ওই যুবককে গ্রেফতার করে।

গতবছরই নভেম্বর মাসে এক ব্যক্তি দিল্লি পুলিশকে ফোন করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খুনের হুমকি দিয়েছিল! সেই সময়ও তত্পরতার সঙ্গে দিল্লি পুলিশ ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছিল। পুলিশের জেরায় সে জানিয়েছিল, মদ্যপ অবস্থায় ওই ফোনটি করেছিল সে। মোদীকে খুন করার মত কোনও পরিকল্পনা নেই তার।

অন্যদিকে গতবছর প্রধানমন্ত্রীর টুইটার হ্যান্ডেল হ্যাক হয়েছিল। তারপরের দিনই খুনের হুমকি এসেছিল! তবে সেই সময় ফোনে নয়,একটি ইমেল এসেছিল ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (NIA)-এর হাতে। ওই ইমেল পেয়ে দুশ্চিন্তা বেড়েছিল এনআইএ আধিকারিকদের। ‘কিল নরেন্দ্র মোদী’ লেখা ওই মেসেজের ফলে তখন বাড়ানো হয়েছিল নরেন্দ্র মোদীর নিরাপত্তা।  




CBSE পড়ুয়া ও অভিভাবকদর বৈঠকে হঠাৎ যোগ প্রধানমন্ত্রীর

চলতি বছরের CBSE  পরীক্ষা বাতিল করা হল ইতিমধ্যে কেন্দ্রের তরফে। বৃহস্পতিবার অর্থাৎ আজ কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রীর আয়োজিত CBSE  পড়ুয়াও অভিভাবকদের নিয়ে একটি বৈঠক করা হয়। তবে বৈঠকে হঠাৎই উপস্থিত ছিলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। করোনা অতিমারির জেরে দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষা বাতিল করা হল। তবে পড়ুয়া ও অভিভাবকদের নান নানা অভিযোগের কথা উঠল আজ। যদিও তাদের সেই কথা শুনলেন নরেন্দ্র মোদি। এদিকে বলা হয় যে গত একবছরের পারফরমেন্স দেখা হবে পড়ুয়াদের।

অন্যদিকে  বাড়ছে করোনা সংক্রমণের হার। তবে এবার তরুণ প্রজন্মদের দিকে বিপদের ঝুঁকি বেশি। দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষা বাতিল হওয়াতেই ১জুন প্রধামন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি একটি বৈঠক করে। বৈঠকে তিনি জানান পড়ুয়াদের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষার কথা ভেবেই পরীক্ষা বাতিল করা হল.আর তারপর আজ আচমকাই বৈঠকে পড়ুয়া ও অভিভাবকদের সমস্ত কথা নরেন্দ্র মোদি নিজেই শুনলেন।