প্রতারিতদের খুঁজে টিকা দেবে এবার কলকাতা পুরসভা

কলকাতা: কসবা ভুয়ো কাণ্ডের জেরে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবের বিরুদ্ধে নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে। তবে কসবার এই ভুয়ো টিকাকরপ ক্যাম্প থেকে যাদের করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে, তাদেরকে সনাক্ত করে পুরসভার তরফে টিকা দেওয়া হবে. শনিবার কলকাতা পুরসভায় সাংবাদিক বৈঠকে জানালেন পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম। এই ঘটনায় কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি প্রতারিতদের পাশে দাঁড়ানোর এদিন বার্তা দিলেন তিনি।

এদিন ফিরহাদ হাকিম এও জানান, কলকাতাবাসীর কাছে করজোড়ে প্রার্থনা,যেন সরকরের অনুমোদিত কোনও ক্যাম্প বা হাসপাতাল থেকে টিকা নেয় সকলে। এছাড়া ভয়কদিন ভুয়ো কাণ্ডে পুরসভার কোনও কর্মী যদি যুক্ত থাকেন,তবে তার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির নির্দেশ দেওয়া হবে। ইতিমধ্যে লালাবাজার তদন্ত বিভাগ সিট গঠন করেছে। এবার কলকাতা পুরসভাও সেই পথেই হাঁটছে।

সোমবার থেকেই ১৮ ঊর্ধ্বদের করোনা টিকা

কলকাতা: সোমবার থেকে করোনা মোকাবিলা করতে শুরু ১৮ ঊর্ধ্বদের করোনা টিকাকরণ। এদিকে কেন্দ্র পর্যাপ্ত টিকা রাজ্যে পাঠাচ্ছে না বলে অভিযোগ। তবে তার মাঝেই সোমবার থেকে কলকাতা শহরের নির্দিষ্ট ৩৭টি সেন্টারে আঠারোর্ধ্ব নাগরিকদের ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করছে কলকাতা পুরসভা। এর মধ্যে ২৯টি সেন্টারে এতদিন শুধুমাত্র সুপার স্প্রেডার গোষ্ঠীকে টিকা দেওয়া হচ্ছিল। এবার সেখান থেকেই টিকা পেতে চলেছেন সব প্রাপ্তবয়স্করা।

এছাড়া সোমবার থেকে কোন কোন সেন্টারে ১৮ থেকে ৮৮ টিকা দিতে পারবে,তা জানিয়ে দিয়েছে ইতিমধ্যে কলকাতা পুরসভা। কলকাতা পুরসভার মুখ্যপ্রশাসক ও পরিবহণমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, “কেন্দ্রীয় সরকার চাহিদামতো ভ্যাকসিন না দিলেও আমাদের সাধ্যমতো নির্দিষ্ট কিছু কেন্দ্রে ১৮ উর্ধ্বদের জন্য ভ্যাকসিন চালু করে দিচ্ছি।


তারপর কেন্দ্র থেকে আরও টিকা এলে ১৪৪টি ওয়ার্ডেই ‘ভ্যাকসিন ফর অল’ হবে।” অহীন্দ্র মঞ্চ, রক্সি, এলিট, স্টার থিয়েটার, কোয়েস্ট মল, সাউথ সিটি স্কুল মিলিয়ে মোট ৩৭টি সেন্টার থেকেও প্রাপ্তবয়স্করা টিকা পাবেন। যদিও বেশকিছুদিন আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঘোষণা করেছিলেন, ১৮ বছরের উর্দ্ধে সকলের জন্য বিনামূল্যে এই টিকা।

আগামী ৪৮ ঘন্টা নিমতলায় শুধুই করোনায় মৃতদের সৎকার

রাজ্যে ক্রমশ বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। সেই সঙ্গে বাড়ছে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যাও। ফলে শ্মশান বা কবরস্থানগুলিতে চাপও বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে কলকাতার নিমতলা শ্মশানে আগামী ৪৮ ঘন্টা বৈদ্যুকিন চুল্লি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল পুরসভা। তবে পুরোপুরি বন্ধ হবে না নিমতলা শ্মশান, এখানে শুধুমাত্র কোভিড মৃতদের দেহই সৎকার করা হবে। সুতরাং নন কোভিড মৃতদেহ শহরের অন্যান্য শ্মশানঘাটে নিয়ে যাওয়ার আর্জি জানিয়েছে পুর কর্তৃপক্ষ।



কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রশাসক অতীন ঘোষ জানিয়েছেন, ‘নিমতলার চারটি বৈদ্যুতিক চুল্লিতেই কোভিড দেহ দাহ করা হচ্ছে। মৃতদহের সঙ্গে থাকা প্লাস্টিক গলে সমস্যা তৈরি হচ্ছে। এমনকী, ধোঁয়া নিয়ন্ত্রক যন্ত্রগুলিও সঠিকভাবে কাজ করছে না। তাই বিশেষ রক্ষণাবেক্ষণের কাজ জরুরি হয়ে পড়েছে। উল্লেখ্য নিমতলায় চারটি বৈদ্যুনিন চুল্লিই কোভিডে মৃতদের দেহ দাহ করা হচ্ছিল। কিন্তু সংক্রমণ ঠেকাতে সেই মৃতদেহ প্লাস্টিকে মুড়ে দেওয়া হচ্ছে। সেই অবস্থাতেই চুল্লিতে ঢোকানোর পর প্ল্যাস্টিক গলে যন্ত্রাংশ বিকল হয়ে পড়ছে। অপরদিকে কোভিড দেহ কাঠের চুল্লিতে দাহ করা হয় না। তাই চাপ কমাতে নিমতলায় অন্যান্য মৃতদেহ আপাতত দাহ না করার সিদ্ধান্ত নিল পুর কর্তৃপক্ষ। এর ফলে রতনবাবুর ঘাট এবং ক্যাওড়াতলা শ্মশানঘাটে চাপ বাড়বে।