প্রতারিতদের খুঁজে টিকা দেবে এবার কলকাতা পুরসভা

কলকাতা: কসবা ভুয়ো কাণ্ডের জেরে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবের বিরুদ্ধে নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে। তবে কসবার এই ভুয়ো টিকাকরপ ক্যাম্প থেকে যাদের করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে, তাদেরকে সনাক্ত করে পুরসভার তরফে টিকা দেওয়া হবে. শনিবার কলকাতা পুরসভায় সাংবাদিক বৈঠকে জানালেন পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম। এই ঘটনায় কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি প্রতারিতদের পাশে দাঁড়ানোর এদিন বার্তা দিলেন তিনি।

এদিন ফিরহাদ হাকিম এও জানান, কলকাতাবাসীর কাছে করজোড়ে প্রার্থনা,যেন সরকরের অনুমোদিত কোনও ক্যাম্প বা হাসপাতাল থেকে টিকা নেয় সকলে। এছাড়া ভয়কদিন ভুয়ো কাণ্ডে পুরসভার কোনও কর্মী যদি যুক্ত থাকেন,তবে তার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির নির্দেশ দেওয়া হবে। ইতিমধ্যে লালাবাজার তদন্ত বিভাগ সিট গঠন করেছে। এবার কলকাতা পুরসভাও সেই পথেই হাঁটছে।

ফের ফর্মে ববি

অন্তর্বর্তী জামিন পাওয়ার পরই শুক্রবার সন্ধ্যা থেকেই কাজে নেমে গেলেন কলকাতা পুরসভার মুখ্য প্রশাসক তথা রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বা সবার প্রিয় ববি | তিনি সন্ধ্যায় জেনে নেন ইয়াস পরবর্তী অবস্থান কোথায় এবং শনিবার দপ্তরে গিয়ে করোনা পরিস্থিতি থেকে কলকাতায় ঝড় পরবর্তী জমা জলের সমস্যা নিয়ে সমস্ত রিপোর্ট নেন | একই সাথে এই কয়েক দিনের অসমাপ্ত কাজের অবস্থান সামাল দেন | তিনি সংবাদ মাধ্যমকে জানান, শহরের বিভিন্ন প্রান্তে অক্সিজেন পার্লার করা হচ্ছে এ ছাড়া কোভিশিল্ড বা কোভ্যাকসিন টিকার সুনির্দিষ্ট ব্যবস্থা করা হচ্ছে | সেই সঙ্গে থাকছে
টক্ টু কেএমসি র সুবিধা অর্থাৎ সরাসরি ববির সাথে কথা |                                               

অন্তর্বর্তী জামিন ববিদের

অবশেষে কলকাতা হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চে জামিন মঞ্জুর হলো ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়ের | শুক্রবার সকাল থেকেই উৎকণ্ঠার মধ্যে ছিল তৃণমূলের লক্ষ লক্ষ কর্মী সমর্থক, সেই সাথে নেতাদের পরিবারবর্গও | এই কয়েকদিন গৃহবন্দী ছিলেন ব্যস্ততম মন্ত্রী ববি হাকিম, যাঁর উপর কলকাতার দায়িত্বও রয়েছে এবং একই সাথে সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের দায়িত্বও কম নয়, ইয়াস উত্তর পর্বে পঞ্চায়েতের কাজ অনেক | বিশেষজ্ঞদের মতে সুপ্রিম কোর্টে ধাক্কার পর আশাই করা গিয়েছিলো যে এই মামলায় জামিন হবেই | তবে কয়েকটি শর্ত আরোপ করা হয়েছে যথা ১) মিডিয়ার কাছে নারদ মামলা নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে পারবে না এই চার জন  ২) সিবিআই যখনই ডাকবে তাদের সঙ্গে সহযোগিতা করতে হবে অবশ্য এই সময়ে ভার্চুয়াল মাধ্যমে কথা চলবে  ৩) ২ লক্ষ টাকার ব্যক্তিগত বন্ড জমা দিতে হবে | এই সমস্ত বিষয় ছাড়া বাকি এঁরা স্বাভাবিক কাজকর্ম ও জীবনযাত্রায় যেতে পারবেন | তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ জানান ,মোটের উপর এটা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে সম্পূর্ণ ঘটনাটাই প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে করা হয়েছে | এখনও একটি বিষয় থেকে গেলো তা, এই মামলা অন্য রাজ্য নিয়ে যাওয়া যাবে কিনা | বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই করোনা আবহে তার সমর্থনও পাবে না সিবিআই |

নারদ কেসের শুনানি কি আজ ?

সুপ্রিম কোর্টে ধাক্কা খাওয়ার পর সিবিআইকে ফের কলকাতা হাইকোর্টের বৃহত্তর কোর্টের সম্মুখীন হতে হবে | বুধ ও বৃহস্পতিবার ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের কারণে কোর্ট বন্ধ থাকার কথা ছিল কিন্তু কলকাতায় সেভাবে ঝড় বৃষ্টি না হওয়াতে বৃহস্পতিবারই শুনানি হতে পারে | ৫ বিচারপতি উপস্থিত থাকবেন, তাঁরা যথাক্রমে প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল, বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়, বিচারপতি ইন্দ্রপ্রসন্ন মুখোপাধ্যায়, বিচারপতি সোমেন সেন এবং বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন | যদি শেষ পর্যন্ত আজই শুনানি হয় তবে বিশেষজ্ঞদের মতে রায়দানও আজ হওয়ারই সম্ভবনা | 

বাড়ি ফিরেই ববির ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ শুরু

শুক্রবার সন্ধ্যার পর প্রেসিডেন্সি জেল থেকে বাড়ি ফিরেছিলেন রাজ্যের পরিবহণ ও আবাসন দফতরের মন্ত্রী ও কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। আদালতের নির্দেশে তাঁকে আপাতত গৃহবন্দি হয়ে নজরদারিতে থাকতে হবে। সূত্রের খবর, রাতেই শুরু করে দিলেন কাজ। জানা যাচ্ছে, কলকাতা পুরসভার আধিকারিকদের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন ফিরহাদ হাকিম। করোনা সংক্রান্ত খুঁটিনাটি জেনে নেন তিনি। পাশাপাশি টিকাকরণ, কোভিডের দেহ সংরক্ষণ, সৎকার সহ স্যানিটাইজেশন সংক্রান্ত সমস্ত দিকের খোঁজখবর নেন। সেই সঙ্গে তিনি পুর আধিকারিকদের একগুচ্ছ নির্দেশও দিয়েছেন। সমস্ত আলোচনাই হয়েছে অনলাইনে। শুক্রবার রাতেই চেতলার বাড়ি থেকে তিনি ভিডিও কনফারেন্সে কথা বললেন, পুরসভার কমিশনার, মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক, যুগ্ম সচিব পর্যায়ের অফিসাররা এবং বেশ কয়েকজন পুর-চিকিৎসকের সঙ্গে। তাঁদের প্রয়োজনীয় নির্দেশও দেন কলকাতা পুরসভার মুখ্য পুর প্রশাসক। কোভিড পরিস্থিতি ছাড়াও ঘূর্ণিঝড় যশ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় নির্দেশও দিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম।



শুক্রবার সন্ধ্যায় জেল থেকে বাড়ি ফেরেন ববি হাকিম। বিকেল থেকেই ছিল পুলিশের আয়োজন। গার্ডরেল দিয়ে আটকানো ছিল তাঁর বাড়ির সামনে পথ। তাঁকে আনতে এলাকার কোনও মানুষ প্রেসিডেন্সি জেল প্রাঙ্গনে ভিড় করেননি। কারণ আগেই নিষেধ করা হয়েছিল তাঁদের। পরে বাড়ির সামনে কিছু মানুষের ভিড় জমলেও কেউই বাড়াবাড়ি করেননি। শনিবার স্বাভাবিক ভাবে ঘুম থেকে উঠে খবরের কাগজ পরে ঠিক করে নেন, অনেকটা সময় নষ্ট হয়েছে জেলযাত্রায়। এবারে তিনি কাজে বসবেন এবং আদালতের নির্দেশে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে কাজ করবেন। কারণ ববি 'কাজের মানুষ’।


বাড়ি ফিরলেন ফিরহাদ, তবে থাকতে হবে কড়া নজরদারিতে

শুক্রবারই শর্তসাপেক্ষ জামিন পান নারদ মামলায় ধৃত চার নেতা। কিন্তু মদন মিত্র, সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং শোভন চট্টোপাধ্যায় গুরুতর অসুস্থ থাকায় এখনও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তবে বাড়ি ফিরলেন রাজ্যের পরিবহন ও আবাসন মন্ত্রী ফিরহাদ (ববি) হাকিম। শুক্রবার সন্ধ্যায় তিনি প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগার থেকে চেতলার বাড়ি পৌঁছান। ফলে স্বভাবতই খুশি তাঁর পরিবার। তবে এই অবস্থায় তাঁকে গৃহবন্দি হয়ে থাকতে হবে সিবিআই এবং আদালতের কড়া নজরদারিতে।