রাজ্য সরকারের বড় সিদ্ধান্ত, বুধবার থেকেই এরাজ্যে খুলছে স্কুল-কলেজ

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামলে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরছে দেশ। তাই রাজ্যে স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। একথা টুইট করে জানিয়েছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার।

বিস্তারিত আসছে --

দেশে দৈনিক আক্রান্তের তুলনায় সুস্থ বেশি

নয়াদিল্লি: দেশে দৈনিক আক্রান্তের তুলনায় সুস্থতার সংখ্যা বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত ৪৫,৯৫১ জন। অন্যদিকে একই সময় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬০,৭২৯ জন। ফলে কমেছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুধবারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, একদিনে দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪৫ হাজার ৯৫১ জন। সব মিলিয়ে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ৩ লক্ষ ৬২ হাজার ৮৪৮।



গত ২৪ ঘন্টায় দেশে  মৃত্যু হয়েছে ৮১৭ জনের। মোট মৃতের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৯৮ হাজার ৪৫৪। মৃত্যুহার ১.৩১ শতাংশ।

তবে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ কোটি ৯৪ লক্ষ ২৭ হাজার ৩৩০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থের সংখ্যা ৬০ হাজার ৭২৯ জন। সুস্থতার হার ৯৬.৯২ শতাংশ। তারফলে সামান্য কমেছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা।  এই মুহূর্তে মোট অ্যাক্টিভ আক্রান্ত ৫ লক্ষ ৩৭ হাজার ৬৪ জন। একদিনে কমেছে ১৫ হাজার ৫৯৫ জন।

অন্যদিকে, এ পর্যন্ত সারা দেশে মোট ৩৩ কোটি ২৮ লক্ষ ৫৪ হাজার ৫২৭ জনের টিকাকরণ সম্পূর্ণ হয়েছে। একদিনে দেওয়া হয়েছে ৩৬ লক্ষ ৫১ হাজার ৯৮৩ জনকে।

দেশে ৩ কোটি ছাড়াল করোনা সংক্রমণ

নয়াদিল্লিঃ দেশে ফের বাড়ল দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু। গতকালও করোনার গ্রাফ নিম্নমূখী ছিল। ৯১ দিন পর সংক্রমণ ৫০ হাজারের নীচে নেমেছিল।  আজ তা বেড়ে গেল।

বুধবার সকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫০ হাজার ৮৪৮ জন। গতকাল ছিল ৪২ হাজার ৬৪০ জন। একদিনে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৩৫৮ জন। গতকাল ছিল ১ হাজার ১৬৭ জন। সব মিলিয়ে দেশে মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৩ কোটি। অর্থাত্ ৩ কোটি ২৮ হাজার ৭০৯ জন। আর মোট মৃত্যু হয়েছে ৩ লক্ষ ৯০ হাজার ৬৬০ জনের। মৃতের হার ১.৩০ শতাংশ।

অন্যদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬৮ হাজার ৮১৭ জন রোগী। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ কোটি ৮৯ লক্ষ ৯৪ হাজার ৮৫৫ জন রোগী। সুস্থতার হার ৯৬.৫৬ শতাংশ। এছাড়া অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লক্ষ ৪৩ হাজার ১৯৪ জন। একদিনে কমেছে ১৯ হাজার ৩২৭ জন।

দেশে এ পর্যন্ত মোট ২৯ কোটি ৪৬ লক্ষ ৩৯ হাজার ৫১১ জনকে  টিকাকরণ করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় টিকা পেয়েছেন ৫৪ লক্ষ ২৪ হাজার ৩৭৪ জন।

অফিস খোলা, যাবে কিসে?

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন লকডাউন নয় কিন্তু কড়া বিধিনিষেধ চলবে ৩০ জুন অবধি কিন্তু তারই মাঝে ছাড় ছিল জরুরি পরিসেবকদের ক্ষেত্রে | কিন্তু সপ্তাহের প্রথমে ফের একবার প্রশ্ন উঠেছে, অফিস খোলা কিন্তু যাবো কি করে ? বাস সার্ভিস নেই, মেট্রো আজ থেকে ৪০টি করে চালানোর কথা ছিল কিন্তু জানা যাচ্ছে তাতে উঠতেই পারছে না আম জনতা | দূরবর্তী প্রান্তের যাত্রী লোকাল ট্রেন পাচ্ছে বটে কিন্তু সময়সীমা নির্দিষ্ট | অফিস যাত্রীদের বক্তব্য নিয়মিত ওলা উবেরে বেতনের টাকা শেষ হয়ে যাচ্ছে | কিছু অটো চলছে বটে কিন্তু গলাকাটা দর হাঁকড়াচ্ছে | মানুষ অসহায় | 


রাজ্যে অ্যাক্টিভ আক্রান্ত বেড়ে ২৩ হাজার

কলকাতাঃ রাজ্যে কমছে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু। তা স্বত্বেও বাড়ছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা।  

শনিবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত ২ হাজার ৪৮৬ জন। গতকাল ছিল ২ হাজার ৭৮৮ জন। পাশাপাশি ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫৫ জনের। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ৫৮ জনে।

রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ লক্ষ ৭৯ হাজার ৫২৩ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৭ হাজার ২৯৫ জন। একদিনে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ১০৯ জন। মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪ লক্ষ ৩৯ হাজার ১১৫ জন।  

এদিকে ফের বাড়তে শুরু করেছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় অ্যাক্টিভ আক্রান্ত ৩২২ জন। তারফলে মোট সংখ্যাটা ২৩ হাজার ছাড়িয়ে গেল। অর্থাত্ ২৩ হাজার ১৩ জনে।

বাংলায় একদিনে করোনা টেস্ট হয়েছে ৫৩ হাজার ১১৭ টি। মোট টেস্টের সংখ্যা ১ কোটি ৩৬ লক্ষ ৩১ হাজার ৮৬৫ টি। এই মুহূর্তে ১২১ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা টেস্ট হচ্ছে। তা আরও বাড়ানো হবে।

রাজ্যে কমছে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু,বাড়ছে সুস্থতার হার

কলকাতাঃ রাজ্যে কমছে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু। বাড়ছে সুস্থতার হার। অন্যদিকে শুধু কলকাতায় আক্রান্ত ২৮৭ জন। একদিনে শহরে মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত ২ হাজার ৭৮৮ জন। গতকাল ছিল ৩ হাজার ১৮ জন। পাশাপাশি ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫৮ জনের। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ৬৪ জনে।

রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ লক্ষ ৭৭ হাজার ৩৭ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ১৭ হাজার ২৪০ জন। একদিনে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ১১২ জন। মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪ লক্ষ ৩৭ হাজার ১০৬ জন।  

এদিকে ফের বাড়তে শুরু করেছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় অ্যাক্টিভ আক্রান্ত ৬১৮ জন। তারফলে মোট সংখ্যাটা বেড়ে দাঁড়াল ২২ হাজার ৬৯১ জনে।

বাংলায় একদিনে করোনা টেস্ট হয়েছে ৫৫ হাজার ৩৬৭ টি। মোট টেস্টের সংখ্যা ১ কোটি ৩৫ লক্ষ ৭৮ হাজার ৭৪৮ টি। এই মুহূর্তে ১২১ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা টেস্ট হচ্ছে। তা আরও বাড়ানো হবে।

দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৩ কোটি

নয়াদিল্লিঃ  দেশে কিছুটা কমল দৈনিক সংক্রমণ। তবুও দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যাটা প্রায় ৩ কোটি। বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও।

শুক্রবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশে একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬২ হাজার ৪৮০ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২ কোটি ৯৭ হাজার ৬২ হাজার ৭৯৩ জন। প্রায় ৩ কোটি।
    
গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৫৮৭ জনের। মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩ লক্ষ ৮৩ হাজার ৪৯০ জন। মৃতের হার বেড়ে ১.২৯ শতাংশ।

অন্যদিকে একদিনে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন  ৮৮ হাজার ৯৭৭ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৮৫ লক্ষ ৮০ হাজার ৬৪৭ জন। সুস্থতার হার বেড়ে ৯৬.০৩ শতাংশ।

দেশে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা কমে ৭ লক্ষ ৯৮ হাজার ৬৫৬ জন। একদিনে কমেছে ২৮ হাজার ৮৪ জন। অ্যাক্টিভ আক্রান্তের হার কমে ২.৬৮ শতাংশ।

দেশে মোট করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে ২৬ কোটি ৮৯ লক্ষ ৬০ হাজার ৩৯৯ জনকে। একদিনে ভ্যাকসিন পেয়েছে ৩২ লক্ষ ৫৯ হাজার ৩ জন।

রাজ্যে ফের বাড়ছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা

কলকাতাঃ রাজ্যে দৈনিক করোনা সংক্রমণ চার হাজারের নিচে নেমে এলেও,বাড়ছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা।এছাড়া সংক্রমণের তুলনায় সুস্থতার সংখ্যাও কম।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত ৩ হাজার ১৮ জন। গতকাল ছিল ৩ হাজার ১৮৭ জন। পাশাপাশি ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৬৪ জনের।

রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ লক্ষ ৭৪ হাজার ২৪৯ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ১৭ হাজার ১৮২ জন। একদিনে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ৩৩ জন। মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪ লক্ষ ৩৪ হাজার ৯৯৪ জন।  
এদিকে ফের বাড়তে শুরু করেছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় অ্যাক্টিভ আক্রান্ত ৯২১ জন। তারফলে মোট সংখ্যাটা বেড়ে দাঁড়াল ২২ হাজার ৭৩ জনে। গতকাল সংখ্যাটা ছিল ২১ হাজার ১৫২ জন।

বাংলায় একদিনে করোনা টেস্ট হয়েছে ৫৫ হাজার ৬৭১ টি। মোট টেস্টের সংখ্যা ১ কোটি ৩৫ লক্ষ ২৩ হাজার ৩৮১ টি। এই মুহূর্তে ১২১ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা টেস্ট হচ্ছে। তা আরও বাড়ানো হবে।

চিনে নতুন প্রজাতির করোনার হদিশ

করোনায় বেসামাল গোটা বিশ্ব। এরই মধ্যে আরও খারাপ খবর শুনালো চিনের গবেষকরা। তাদের দাবি, চিনে  বাদুড়ের শরীরে  বেশ কিছু নতুন প্রজাতির করোনা ভাইরাসের সন্ধান মিলেছে। তার একটির সঙ্গে কোভিড-১৯ এর মিল রয়েছে।

গবেষকরা জানিয়েছেন, চিনের দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্তে গবেষণা চালিয়ে সেখানে পাওয়া গিয়েছে। সম্প্রতি সেল জার্নালে শানডং বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের এই সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে।

 উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে মে মাস থেকে ২০২০ সালের নভেম্বরের মধ্যে নমুনা সংগ্রহ করেছেন গবেষকরা। ওই সময় বাদুড়ের মল-মুত্র ও লালারসে এই ভাইরাস মিলেছে। এবার ফের বাদুড়ের থেকে ২৪টি পৃথক করোনা ভাইরাসের জিন পাওয়ায়, নতুন করে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে বিশ্বজুড়ে।

এদিকে রবিবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ভারতে  একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮০ হাজার ৮৩৪ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২ কোটি ৯৪ হাজার ৩৯ হাজার ৯৮৯ জন। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৩০৩ জন। মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩ লক্ষ ৭০ হাজার ৩৮৪ জন।

রাজ্যে ফের বাড়ছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা

কলকাতাঃ রাজ্যে দৈনিক করোনা সংক্রমণ কমলেও, সংক্রমণের তুলনায় সুস্থতার সংখ্যা কম। তার ফলে বাড়ছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা। তবে সুস্থতার হার বেড়ে ৯৭.৭৩ শতাংশ।

শনিবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত ৪ হাজার ২৮৬ জন। গতকাল ছিল ৪ হাজার ৮৮৩ জন। ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৮১ জনের।

রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ লক্ষ ৫৭ হাজার ২৭৩ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ১৬ হাজার ৮১২ জন। একদিনে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ৩ হাজার ১৪৯ জন। মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪ লক্ষ ২৪ হাজার ২১৩ জন। বেড়েছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা। মোট অ্যাক্টিভ আক্রান্ত ১৬ হাজার ২৪৮ জন। একদিনে বেড়েছে ১,০৫৬ জন।

করোনা আক্রান্তের দিক থেকে রাজ্যের মধ্যে শীর্ষে উত্তর ২৪ পরগণা জেলা। এখানে একদিনে আক্রান্ত ৬৯৩ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ১০ হাজার ৩৫৭ জন। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের। এই জেলায় মোট মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ২৫৬ জন। তবে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ লক্ষ ৩ হাজার ৪৯১ জন। অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২ হাজার ৬১০ জন। একদিনে বেড়েছে ৪৯ জন।

বাংলায় একদিনে করোনা টেস্ট হয়েছে ৬২ হাজার ২৭৬ টি। মোট টেস্টের সংখ্যা ১ কোটি ৩২ লক্ষ ৩৫ হাজার ৭৪৩ টি। এই মুহূর্তে ১২১ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা টেস্ট হচ্ছে। তা আরও বাড়ানো হবে।

স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন বুঝে

করোনা আবহে আর কিছু হোক না হোক ডজন ডজন স্যানিটাইজার সংস্থা গজিয়ে উঠেছে | আবার অনেক ওষুধ সংস্থাও স্যানিটাইজার তৈরি করছে | এবারে মানুষ কিনবে কোনটি ? রাস্তায় ঢেলে বিক্রি করা অথবা সেলসম্যানেদের ব্যাগ থেকে স্যাম্পল বের করে ট্রামে বাসে বিক্রি করা স্যানিটাইজার কেনা এবং ব্যবহার করা উচিত নয় |


উপকার বা ক্ষতির প্রশ্ন নয়, প্রশ্ন সেটি কি সরকারি অনুমোদিত ?  স্যানিটিজারের মধ্যে অ্যালকোহল থাকার কারণে হাত পা বা ব্যবহৃত শারীরিক অংশ শুস্ক হতে চায় | সেটিও ত্বকের পক্ষে ক্ষতিকর | ফলে আয়ুর্বেদিক স্যানিটাইজার ব্যবহার করার বিষয়ে উপদেশ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞ  মহল  | এর ফলে শারীরিক অংশ শুষ্ক না হয়ে স্বাভাবিক থাকে |

স্বস্তির খবর, রাজ্যে ৫ হাজারের নিচে নেমে এল সংক্রমণ

কলকাতাঃ রাজ্যে কমেছে দৈনিক করোনা সংক্রমণ। তবে সংক্রমণের তুলনায় সুস্থ্যতার সংখ্যা কম। তার ফলে বেড়েছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত ৪ হাজার ৮৮৩ জন। গতকাল ছিল ৫ হাজার ২৭৪ জন। ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৮৯ জনের।

রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ লক্ষ ৫২ হাজার ৯৮৭ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ১৬ হাজার ৭৩১ জন। একদিনে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ৪ হাজার ৩২১ জন। মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪ লক্ষ ২১ হাজার ৬৪ জন। বেড়েছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা। মোট অ্যাক্টিভ আক্রান্ত ১৫ হাজার ১৯২ জন। একদিনে বেড়েছে ৪৭৩ জন।

করোনা আক্রান্তের দিক থেকে রাজ্যের মধ্যে শীর্ষে উত্তর ২৪ পরগণা জেলা। এখানে একদিনে আক্রান্ত ৭৯২ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৯ হাজার ৬৬৪ জন। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ২০ জনের। এই জেলায় মোট মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ২৩৭ জন। তবে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ লক্ষ ২ হাজার ৮৬৬ জন। অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ৫৬১ জন।

বাংলায় একদিনে করোনা টেস্ট হয়েছে ৬২ হাজার ৬১৪ টি। মোট টেস্টের সংখ্যা ১ কোটি ৩১ লক্ষ ৭৩ হাজার ৪৬৭ টি। এই মুহূর্তে ১২১ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা টেস্ট হচ্ছে। তা আরও বাড়ানো হবে।

দেশে ফের বাড়ল দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু

নয়াদিল্লিঃ দেশে ফের বাড়ল দৈনিক সংক্রমণ। গত ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৯২ হাজারের বেশি। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল  ৮৬ হাজার ৪৯৮ জনে।

বুধবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশে একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯২ হাজার ৫৯৬জন। তার ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২ কোটি ৯০ হাজার ৮৯ হাজার ৬৯ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ২১৯ জন। গতকাল ছিল ২ হাজার ১২৩ জন। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত দেশে মোট মৃতের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৫৩ হাজার ৫২৮ জনের। মৃতের হার ১.২২ শতাংশ।

অন্যদিকে একদিনে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন   ১ লক্ষ ৬২ হাজার ৬৬৪ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৭৫ লক্ষ ৪ হাজার ১২৬ জন। সুস্থতার হার ৯৪.৫৫ শতাংশ।

দেশে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা কমে ১২ লক্ষ ৩১ হাজার ৪১৫ জন। একদিনে কমেছে ৭২ হাজার ২৮৭ জন। অ্যাক্টিভ আক্রান্তের হার  কমে ৪.২৩ শতাংশ।

দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু মহারাষ্ট্রে। গত কালই এক লক্ষ ছাড়িয়েছে মৃতের সংখ্যা। বুধবারের তথ্য অনুযায়ী কমছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় কমেছে ৬ হাজার ৩৮৮ জন। তারফলে এই মুহূর্তে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা কমে  ১ লক্ষ ৭০ হাজার ৭৯৪ জন। এছাড়া একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৬ হাজার ৫৭৭ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ৫৫ লক্ষ ৮০ হাজার ৯২৫ জন। মোট মৃতের সংখ্যা ১ লক্ষ ১১ হাজার ১৭২ জন।

দেশে মোট করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে ২৩ কোটি ৯০ লক্ষ ৫৮ হাজার ৩৬০ জনকে। একদিনে ভ্যাকসিন পেয়েছেন ২৭ লক্ষ ৭৬ হাজার ৯৬ জন।

দুমাস পর দেশে কমল করোনার প্রকোপ

নয়াদিল্লিঃ দুমাস পরে ১ লক্ষের নীচে নেমে এল দেশে দৈনিক করোনা সংক্রমণ। পাশাপাশি কমেছে মৃত্যুও। অন্যদিকে বাড়ছে সুস্থতার হার।

মঙ্গলবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮৬ হাজার ৪৯৮ জন। এই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ১২৩ জনের। তারফলে এ পর্যন্ত দেশে মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২ কোটি ৮৯ লক্ষ ৯৬ হাজার ৪৭৩ জন। মোট মৃত্যু হয়েছে ৩ লক্ষ ৫১ হাজার ৩০৯ জনের।

অন্যদিকে একদিনে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন  ১ লক্ষ ৮২ হাজার ২৮২ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৭৩ লক্ষ ৪১ হাজার ৪৬২ জন। সুস্থতার হার বেড়ে ৯৪.২৯ শতাংশ।

দেশে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা কমে ১৩ লক্ষ ৩ হাজার ৭০২ জন। একদিনে কমেছে ৯৭ হাজার ৯০৭ জন। অ্যাক্টিভ আক্রান্তের হার  ৪.৫০ শতাংশ।

দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু মহারাষ্ট্রে। এক লক্ষ ছাড়াল মৃতের সংখ্যা। মঙ্গলবারের তথ্য অনুযায়ী কমছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় কমেছে ১১ হাজার ২০২ জন। তারফলে এই মুহূর্তে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা কমে  ১ লক্ষ ৭৭ হাজার ১৮২ জন। এছাড়া একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২১ হাজার ৮১ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ৫৫ লক্ষ ৬৪ হাজার ৩৪৮ জন। মোট মৃতের সংখ্যা ১ লক্ষ। ৪৭০ জন।

দেশে মোট করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে ২৩ কোটি ৬১ লক্ষ ৯৮ হাজার ৭২৬ জনকে। একদিনে ভ্যাকসিন পেয়েছেন ৩৩ লক্ষ ৬৪ হাজার ৪৭৬ জন।

রাজ্যে করোনা উদ্বেগ বাড়াচ্ছে উত্তর ২৪ পরগণা

কলকাতাঃ রাজ্যে কমেছে দৈনিক করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু। তবে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে উত্তর ২৪ পরগণা জেলা।

রবিবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত ৭ হাজার ২ জন। একই সময় মৃত্যু হয়েছে ১০৭ জনের। সুস্থতার হার বেড়ে ৯৬.৩৭ শতাংশ।

রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ লক্ষ ২৬ হাজার ১৩২ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ১৬ হাজার ২৫৯ জন। একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫ হাজার ৮৮২ জন। মোট সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন ১৩ লক্ষ ৭৪ হাজার ৪১৯ জন। তারফলে কমেছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা। এই মুহূর্তে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫ হাজার ৪৫৪ জন। গতকালও ছিল ৪৪ হাজার ৪৪১ জন। তুলনামূলক একদিনে কমেছে ৮ হাজার ৯৮৭ জন।

রাজ্যের মধ্যে শীর্ষে উত্তর ২৪ পরগণা জেলা। এখানে একদিনে আক্রান্ত ১ হাজার ৪৩৪ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৪ হাজার ৬২০ জন। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ৩৪ জনের। এই জেলায় মোট মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ১১৪ জন। তবে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ লক্ষ ৯৩ হাজার ২০৩ জন। অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা ৭ হাজার ৩০৩ জন।

বাংলায় একদিনে করোনা টেস্ট হয়েছে ৭০ হাজার ৫৩ টি। মোট টেস্টের সংখ্যা ১ কোটি ২৮ লক্ষ ৫৯ হাজার ৬৭৮ টি। এই মুহূর্তে ১১৯ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা টেস্ট হচ্ছে। তা আরও বাড়ানো হবে।