ব্রেকিং নিউজ
  মহালয়ার আগে কাটছে নিম্নচাপ দক্ষিণবঙ্গে, উত্তরবঙ্গের ৫ জেলায় ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা     অস্থায়ী কর্মীদের স্থায়ীকরণের দাবীতে দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থার বাঁকুড়া ডিপো ঘেরাও করে বিক্ষোভ     কুড়মিদের রেল অবরোধ আজ পঞ্চম দিন, পুরুলিয়া কুস্তাউর রেল স্টেশনে রেল ট্রাক এ বসে আন্দোলনকারীরা      ক্যানিংয়ে গাছ কাটার প্রতিবাদ করায় আক্রান্ত বৃদ্ধ দম্পতি     রোগী মৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা বারাসাতে এক বেসরকারি হাসপাতালে, মৃতদেহ ফেলে রেখে বিক্ষোভ পরিবারের  
political-war-of-words-over-rampurhat-incident-while-7-dead-body-were-recovered-in-birbhum
Birbhum: 'রামপুরহাট-কাণ্ড গ্রাম্য বিবাদ', ট্যুইট কুণালের, রিপোর্ট তলব রাজ্যপালের, বিক্ষোভ বিজেপির

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-03-22 14:45:01


রামপুরহাট-কাণ্ডে (Rampurhat Incident) সোমবারের পর মঙ্গলবার উত্তপ্ত থাকল রাজ্য রাজনীতি। মঙ্গলবার বিধানসভার অধিবেশন বয়কট করে বিজেপি (BJP)। মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে ওয়াকআউট করে প্রবেশদ্বারের সামনে বিক্ষোভ দেখায় বিরোধী দল। এই ঘটনা 'ভয়াবহ' দাবি করে মুখ্যসচিবের থেকে রিপোর্ট তলব করেন রাজ্যপাল। পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলার অবনতির অভিযোগে সরব সিপিএম-কংগ্রেসও (CPM-Congress)। যদিও বীরভূম তৃণমূলের (TMC) সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল ফোনে উপপ্রধান ভাদু শেখের খুন প্রসঙ্গে সিএন-কে জানিয়েছিলেন, পুলিস তদন্ত করছে, অভিযুক্তরা শাস্তি পাবে। দেখুন কী বলেছেন রাজ্যপাল: 

তিনি সোমবার বলেছেন, 'সন্ধ্যার সময় কে বা কারা এই খুন করেছে, পুলিস তদন্ত করছে। ওখানে সিসিটিভি আছে।। অভিযুক্তরা শাস্তি পাবে।' এদিন অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা প্রসঙ্গে অনুব্রত সংবাদমাধ্যমকে কিছুই বলতে চাননি। শুধু বলেন, 'রামপুরহাট যাচ্ছি।' তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ আবার হাফ ডজনের বেশি বাড়িতে অগ্নিকাণ্ড প্রসঙ্গে ট্যুইট করে গ্রাম্য বিবাদ বলে দাবি করেছেন। তিনি ট্যুইটে লেখেন, 'রামপুরহাটে আগুনে মৃত্যু দুঃখের, অবাঞ্ছিত। কিন্তু এর সঙ্গে রাজনীতির সম্পর্ক নেই। স্থানীয় গ্রাম্য বিবাদ। এর আগের দিন তৃণমূল উপপ্রধানকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে। তিনি জনপ্রিয় ছিলেন। গ্রামবাসীদের মধ্যে ক্ষোভ ছিল। রাতে আগুনের ঘটনা ঘটে। পুলিশ, দমকল ব্যবস্থা নিয়েছে।'


তিনি আরও লিখেছেন, 'রামপুরহাটের ঘটনায় সরকার তৎপরতার সঙ্গে যা যা করার করছে। ওসিকে ক্লোজ করা হয়েছে, এসডিপিও অপসারিত। তিন সদস্যের সিটে রয়েছেন জ্ঞানবন্ত সিং, মীরাজ খালিদ, সঞ্জয় সিং। যথাযথ তদন্ত হবে। দুর্ঘটনা, না আগের খুনের প্রতিক্রিয়া, না ষড়যন্ত্র, সবটা খতিয়ে দেখা হবে। তবে এই আগুনের ঘটনায় রাজনীতি নেই।'

রামপুরহাটের বিধায়ক আশিস বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, 'এই ঘটনায় কে বা কারা যুক্ত, অনুমানের ভিত্তিতে বলা যাবে না। আমরা গিয়ে সরেজমিনে খতিয়ে দেখব।'

কিন্তু তাতেও সুর নরম করছে না বিরোধী শিবির। সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীর মন্তব্য, 'তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে ভয়ংকর, ভয়াবহ গণহত্যা। গোটা ভারতে কেউ ভাবতে পারে না।  সবাই মিলে প্রতিবাদ করতে হবে। এতে আমাদের বাংলার ক্ষতি হচ্ছে।'

কংগ্রেসের বীরভূম জেলা সভাপতি মিল্টন রশিদ রাজ্যে আইনের শাসন নেই, গণতন্ত্র নেই তোপ দেগে বলেন, 'দু'পক্ষই তৃণমূলের। বাংলার মানুষকে ভাবতে হবে রাজ্য সরকারের নেতৃত্বে রাজ্য কোনদিকে যাচ্ছে।' তিনি এই ঘটনার জন্য প্রশাসনিক গাফিলতির অভিযোগ তুলেছেন।

এদিকে, বিজেপি যখন বিধানসভায় ওয়াকআউট করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে, তখন দলের মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য গোটা ঘটনার জন্য পুলিসি নিস্ক্রিয়তার দিকে আঙুল তোলেন। নাম না করে অনুব্রতকে বীরভূমের পোস্টার বয় কটাক্ষ করেন তিনি। তাঁর খোঁচা, 'রবীন্দ্রনাথের বীরভূমে শাসকের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে ১০ জন অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত। গোটা দেশ দেখছে।'






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন