ব্রেকিং নিউজ
  (11:17 AM)-ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা গোটা দেশে বেড়ে দাঁড়াল ৮২০৯, সুস্থ ৩১০৯     (11:14 AM)-করোনা রুখতে সকাল ১০টার পর থেকে বন্ধ গ্যালিফ স্ট্রিটের পাখিবাজার     (11:02 AM)-সিঁথি থানা এলাকায় রামলীলা বাগানের একটি বাড়িতে ভোররাতে আগুন লাগল     (08:54 AM)-প্রখ্যাত কত্থক শিল্পী পণ্ডিত বিরজু মহারাজ প্রয়াত     (08:48 AM)-সিরিয়াল দেখার ফাঁকে কসবায় দুঃসাহসিক চুরি     (08:48 AM)-রাজ্যের করোনা আক্রান্ত কমলেও মৃত্যুসংখ্যা উর্ধ্বমুখীই     (08:47 AM)-তাপমাত্রা স্বাভাবিকের নিচে, ফের বঙ্গে শীতের আমেজ  
monkey-adorable-naughty-monkey-bengal
হনুমানের দুই আলাদা রূপ


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-26 20:55:35


এ যেন একই পৃষ্ঠার দুই এপিঠ ওপিঠ। একদিকে যেমন হনুমানের তাণ্ডবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন জলপাইগুড়ি শহরের মানুষেরা। ঠিক অন্যদিকে দক্ষিণ ২৪ পরগনায় হনুমানের দর্শন পেয়ে খুশি সেখানকার কচিকাঁচা থেকে প্রাপ্ত বয়স্ক সকলেই।

বাঁদরের তাণ্ডবে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন জলপাইগুড়ি শহর সংলগ্ন পাতকাটা কলোনির মানুষেরা। জানা যায়, বাঁদরের বড় একটি দল প্রায় নিত্যদিনই এলাকায় ঢুকে ক্ষয়ক্ষতি করছে স্থানীয়দের। বৃহস্পতিবার বিকেলের পর আবার ফের শুক্রবার সকালে একটি বড় বাঁদরের দল এলাকায় ঢুকে গিয়ে উৎপাত শুরু করে। কারও ঘরে ঢুকে রান্না করা খাবার নিয়ে পালাচ্ছে, তো আবার কারও বাড়িতে ঢুকে জামাকাপড় তছনছ করছে এমনটাই অভিযোগ।

স্থানীয়দের দাবি, বৈকুন্ঠপুর জঙ্গল থেকে এই বাঁদরের পাল এসেছে বলে জানা গেছে। বনদফতরের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন বাসিন্দারা। প্রায় ২০০ থেকে ৩০০ টি হনুমানের একটি দল বাড়িতে ঢুকে খাবার সাবার করে দিচ্ছে। এমনকি তাদের উৎপাতে ঘুম পর্যন্ত হচ্ছে না। কাপড় মেলা থাকলে ছিঁড়ে দিচ্ছে। জানালার ফাঁক দিয়ে ঘরে ঢুকে পড়ছে। বনদফতরের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন বাসিন্দারা। তবে আশ্বাস পেলেও এখনও কোনও হেলদোল নেই তাঁদের।

প্রসঙ্গত, ঠিক এরকমই একটি ঘটনা দেখা গিয়েছিল এক বছর আগে। সুন্দরবনের ক্যানিংয়ে হনুমানের তাণ্ডবে বাথরুম বন্দি হয়ে ছিলেন গৃহকর্তারা।

তবে অন্যদিকে আবার অন্যরকমই ছবি ধরা পড়ল দক্ষিণ ২৪ পরগনা বাসন্তী কাঁঠালবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। সকাল সকাল আগমন হয় একটি হনুমানের। হনুমান দেখলে তাঁদের অর্থাৎ দোকানদারদের লক্ষ্মী লাভ হয়। ফুরফুরে মেজাজে হনুমানটিকে দেখে সকাল সকাল খুদেরা সেলফি তুলতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। এরপর তিনটি কলা, তিনটি রুটি হনুমানকে খাইয়ে দেন ব্যবসায়ীরা।

স্থানীয়রা জানান, বেশ কিছুদিন ধরেই হনুমানটি তাঁদের এলাকায় আসছে। সাধ্যমত সবাই খাবার দিচ্ছে তাকে। হনুমানটিকে ঘিরে বেশ খুশির মেজাজে সকলেই। তাকে আদর করে দেন তাঁরা।

শীতের মরসুমে হনুমানের দর্শন পেয়ে খুশি এলাকাবাসী। অন্যান্য জায়গায় যেখানে তাণ্ডবের ছবি উঠে আসছে সেখানে এই ছবি সত্যিই অবাক করেছে এলাকাবাসীদের।




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us