ব্রেকিং নিউজ
  Weather Update: উত্তরবঙ্গের সঙ্গেই দক্ষিণবঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হাল্কা থেকে মাঝারি বৃষ্টি সম্ভাবনা     Pallavi Dey: পল্লবীর লিভ-ইন পার্টনার সাগ্নিককে গড়ফা থানায় রাতভর জিজ্ঞাসাবাদ     Maldaha: তৃণমূল কর্মীকে অপহরণ করে খুনের অভিযোগ, কাঠগড়ায় দলেরই অন্য গোষ্ঠী     Flood: ভয়াবহ বন্যায় বিধ্বস্ত অসম, ক্ষতিগ্রস্ত ২ লক্ষ বাসিন্দা, ঘরছাড়া ৩৩ হাজার     Suvendu: ওয়ারেন্ট ছাড়াই বিরোধী দলনেতা শুভেন্দুর অফিসে তল্লাশি? মামলা এবার হাইকোর্টে     P Chidambaram: পি চিদম্বরমের ৯ টি বাড়িতে একযোগে সিবিআই তল্লাশি     Metro Rail: বউবাজারে ভাঙা হচ্ছে বাড়ি, বাড়ছে উদ্বেগ-উত্কণ্ঠা     ED: কয়লা-কাণ্ডে সস্ত্রীক অভিষেকের স্বস্তি, 'কলকাতায় জেরা করুক ইডি', সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ     Online Exam: অনলাইন পরীক্ষার দাবিতে তুমুল বিক্ষোভ আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে      Disguise: টানা ৩০ বছর পুরুষ সেজে রয়েছেন এই মহিলা! কারণ জানলে তাজ্জব বনে যাবেন     Corbevax: শিশুদের করোনার টিকা কর্বেভ্যাক্সের বেসরকারি দাম কমে ৪০০ টাকা  
jmb-drug-target-youth-bengal
drug : জেএমবি-র মাদক ফাঁদ, লক্ষ্য বঙ্গের যুব সমাজ ?


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-01-14 16:50:22


মাঝে মধ্য়েই খবরের শিরোনামে আসে মাদক দ্রব্য় উদ্ধারের ঘটনা। এই চক্র কতদূর বিস্তৃত তা নিয়ে নিরন্তর তদন্তে থাকে পুলিস প্রশাসন। সাম্প্রতিক খবরে উঠে আসছে মাদকে বাংলা যোগের সম্ভাবনার কথা। সূত্রের খবর, নাশকতা, নিষিদ্ধ মাদক পাচার, জঙ্গি যোগে বাড়ছে বাঙালির যোগসূত্র। 


 খুব বেশিদিন আগের কথা নয়, গত ১০ জানুয়ারি বর্ধমান থেকে উদ্ধার ১৩ কেজি হেরোইন সহ বিপুল পরিমাণ মাদক তৈরির কাঁচামাল। আন্তর্জাতিক বাজারে যার মূল্য প্রায় ৭ কোটি টাকা। ঘটনায় গ্রেফতার হন বাবর মণ্ডল এবং রাহুল মণ্ডল। হেরোইন পাচারের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় বাবা ও ছেলেকে। রাজ্য পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের  একটি দল বর্ধমান শহরে বাবর মণ্ডলের বাড়িতে হানা দিয়ে গ্রেফতার করে তাদের। এস টিএফ সূত্রে খবর, তাদের বাড়ি তল্লাশি করে ১৩ কেজি হেরোইন উদ্ধার করা হয়। পাশাপাশি সাম্প্রতিক অতীতে হরিদেবপুর থানা এলাকা থেকে তিন জেএমবি জঙ্গি গ্রেফতার করা হয়েছিল। জানা গেছে, তারা প্রায় এক বছর ধরে খাস কলকাতার বুকে বাড়ি ভাড়া নিয়ে বাস করছিল। এমনকি প্রথম আইসিস জঙ্গি হিসেবে যে জেহাদিদের ঘরে পা দিয়েছিল, সে ভারতীয় বংশোদ্ভূত বাংলার যুবক সিদ্ধার্থ ধর। পরে যিনি আবু রুময়িস আল ব্রিটানি নাম নিয়েছিলেন। এছাড়াও হুগলির পলিটেকনিক কলেজের ছাত্র আশিক আহমেদ ওরফে রাজা ছিল আইসিসিএর অন্যতম সদস্য।

অতীতের এই সব ঘটনায় মাদকে বাংলা যোগ মিলছে বলে মনে করছে ওয়াকিবহালমহল।  সূত্রের খবর, আইসিস, হুজি, বিশেষত জেএমবি - এই প্রতিটি জঙ্গি সংগঠনের নিশানায় বাংলার যুবকরা। গোয়েন্দা বিভাগের রিপোর্ট অনুযায়ী, করোনা পরিস্থিতিতে জঙ্গি সংগঠনগুলি ক্রমশই ঘুরপথে বিস্তার করতে চাইছে নাশকতার জাল। মূলতঃ বাংলাদেশ সীমান্ত এবং গুজরাট বন্দর হয়ে মণিপুরের রাস্তা ধরে সীমান্ত পেরিয়ে আসছে এই ধরণের মাদকগুলি। সংগঠনের বিস্তার এবং অস্ত্র আমদানির জন্য কোটি কোটি টাকা রোজগারের জন্য সংগঠনগুলি বেছে নিয়েছে নিষিদ্ধ মাদক পাচারের পথ। আর এই ব্যবসার অন্যতম প্রাণকেন্দ্র হয়ে উঠছে বাংলার বর্ধমান, মুর্শিদাবাদ এবং মালদা জেলা। পাশাপাশি কলকাতা ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকাতেও রমরমিয়ে চলছে হেরোইন এবং ইয়াবা ট্যাবলেটের ব্যবসা।  যতবার নিষিদ্ধ মাদক ধরা পড়েছে নারকোটিক্স ব্যুরোর হাতে, ততবারই আধিকারিকরা জানিয়েছেন,যে পরিমাণ ধরা পড়ে,তার চেয়ে আরও কয়েকগুন বেশি বাজারে আমদানি হয়। দাবি এনসিবির প্রাক্তন আধিকারিকদের।

জেএমবি তাদের সংগঠনের স্লিপার সেল এবং হ্যান্ডলারদের সাহায্যে গোটা বাংলায় রেভ পার্টির মাধ্যমে পৌঁছে যাচ্ছে কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিত্তবান যুবক পড়ুয়াদের দরবারে। তথাকথিত সোশ্যাল পার্টির আড়ালে চলে এই আমদানি। দামি এবং নিষিদ্ধ মাদকের ফাঁদে ফেললেই জঙ্গি সংগঠনের তহবিলে জমা হচ্ছে কোটি কোটি টাকা।

সম্প্রতি ফ্যান্টালিনের মত প্রাণঘাতী মাদকের নাম উঠে আসছে। মাত্র ২ মিলিগ্রাম শরীরে এই মাদক প্রবেশ করলেই সেই ব্যক্তি পুরোপুরি সেই নেশার বশবর্তী হয়ে যায়। গোটা বিষয়টি নিয়ে এনসিবি,ইডি এবং র এর মত গোয়েন্দা সংস্থাগুলি কড়া নজরদারি চালাচ্ছে। সীমান্ত পথে যাতে এই মাদক পাচার চক্র বন্ধ করা যায়, তা নিয়ে তত্পর গোয়েন্দা বিভাগ সহ এনসিবি।


তবে কি সীমান্তের পথ পেরিয়ে ক্রমশ বাংলায় প্রবেশ করছে এই নিষিদ্ধ মাদক চক্র? যা থেকে শক্তি বৃদ্ধি হচ্ছে জেএমবি জঙ্গি সংগঠনগুলির? উঠছে প্রশ্ন।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন