ব্রেকিং নিউজ
  (11:33 AM)-হলদিয়ায় বিএসএনএলের কেওয়াইসি-র নামে অ্যাকাউন্টের সাড়ে ৬ লক্ষ টাকা লুঠ      (11:30 AM)-রাস্তা হারিয়ে দিশাহারা দশটি দাঁতাল, বাঁকুড়ার ছাতনায় সাত সকালেই দাপাল হাতির দল     (11:29 AM)-শান্তিনিকেতনে জাল নোটের হদিশ     (09:51 AM)-খিদিরপুর ট্রাম ডিপোর নিকটে দুর্ঘটনা, মৃত্যু ১ ব্যক্তির     (09:50 AM)-ভিক্টোরিয়ার সাউথ গেটের সামনে এ জে সি বোস রোড ফ্লাইওভারে ওঠার মুখে বাইক দুর্ঘটনা      (09:48 AM)-গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১১ হাজার ৪৪৭, মৃত্যু হয়েছে ৩৮ জনের     (09:45 AM)-দেশে মোট ওমিক্রন আক্রন্তের সংখ্যা ৯ হাজার ২৮৭ জন     (09:45 AM)-দেশে একদিনে করোনা আক্রান্ত ৩ লক্ষ ১৭ হাজার ৫৩২ জন, মৃত্যু হয়েছে ৪৯১ জনের     (09:33 AM)-আমহার্স্ট স্ট্রিট-এর এম এম চ্যাটার্জি রোডে আগুন, ঘটনাস্থলে ৪টি ইঞ্জিন  
cold-storage-charge-bankura-bengal
Cold Storage: হিমঘরে আলু সংরক্ষণে ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে সমস্যা


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-27 17:13:31


হিমঘর কর্তৃপক্ষের নোটিস, অতিরিক্ত ১৫ দিন হিমঘরে আলু রাখলে দিতে হবে অতিরিক্ত ভাড়া। এই নির্দেশিকার জেরে সংকটে আলু সংরক্ষণকারী কৃষক ও ব্যবসায়ীরা।

তবে সরকারি সিদ্ধান্ত নয়, হিমঘর কর্তৃপক্ষের একতরফা এই সিদ্ধান্ত বলে অভিযোগ। কিছুদিন আগেই সরকারি নির্দেশিকা জারি হয়েছিল, ৩০ শে নভেম্বরের মধ্যে সারা রাজ্যের পাশাপাশি বাঁকুড়া জেলার হিমঘরগুলি থেকে আলু বের করে হিমঘর খালি করে দিতে হবে। সীমিত সময়ের মধ্যে হিমঘরে সংরক্ষিত আলু কোনওভাবেই খালি করা সম্ভব নয়, এই দাবি উঠেছিল বিভিন্ন মহল থেকে। তাই রাজ্য সরকারের কাছে হিমঘরে আলু সংরক্ষণের সময়সীমা বৃদ্ধির দাবি জানানো হয়েছিল আলু ব্যবসায়ীদের তরফ থেকে।

পরিসংখ্যান বলছে, ৩০ শে নভেম্বরের পরে জেলার হিমঘরে ১৮ থেকে ২১ শতাংশ আলু মজুত থেকে যাবে। সরকারি সময়সীমা বৃদ্ধির নির্দেশিকা জারি না হলেও কোল্ড স্টোরেজ কর্তৃপক্ষ নির্দেশিকা জারি করেছে, ৩০ নভেম্বরের পর অর্থাৎ ১ ডিসেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বর ১৫ দিন হিমঘরে আলু রাখলে দিতে হবে কুইন্টাল প্রতি অতিরিক্ত ২২ টাকা ভাড়া। হিমঘর কর্তৃপক্ষের এই নির্দেশিকা জারির পর থেকে চিন্তায় জেলার কৃষক এবং আলু সংরক্ষণকারী ব্যবসায়ীরা।

আলু ব্যবসায়ীরা জানান, সার, বীজ এবং অন্যান্য সমস্ত কিছু কিনতে প্রচুর অর্থের প্রয়োজন হয়। এরপর যদি হিমঘরেও আলু রাখতে না দেওয়া হয়, তাহলে সমস্যায় পড়বেন তাঁরা। তবে না রেখে কিছু করারও থাকবে না তাঁদের কাছে। এক কথায় বাধ্য হয়েই রাখতে হবে। অন্যথা সমস্ত আলু তাঁদের নষ্ট হবে। এমনিতেই বাজারের যা পরিস্থিতি, তাতে বিপাকে পড়েছেন তাঁরা। এখন যদি কোল্ড স্টোরেজ কর্তৃপক্ষও ভাড়া বাড়ায়, তাহলে আত্মহত্যা ছাড়া আর কোনও রাস্তা থাকবে না তাঁদের কাছে।

প্রগতিশীল আলু ব্যবসায়ী সমিতির রাজ্য সভাপতি বিভাস দে জানান, কোল্ড স্টোরেজে আলু রাখতে পশ্চিমবঙ্গ প্রগতিশীল আলু ব্যবসায়ী সমিতির পক্ষ থেকে ১৭ ই নভেম্বর কৃষি বিপণন মন্ত্রীর কাছে লিখিত আবেদন দেওয়া হয়। যাতে একই ভাড়ায় আলু সংরক্ষণ করা যায়। তবে ইতিমধ্যেই কোল্ড স্টোরেজ কর্তৃপক্ষ তাঁদের সঙ্গে আলোচনায় বসবে বলে জানিয়েছে। যাতে নিজেদের মধ্যেই মীমংসা করে সমস্ত বিষয়টি আয়ত্বে আনা যায়, সে বিষয়ে নজর দিচ্ছেন তাঁরা।

এখন হিমঘরে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে আলু কিভাবে রাখবেন, তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন কৃষক এবং ব্যবসায়ীরা।




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us