ব্রেকিং নিউজ
The-wife-ran-away-with-her-lover-with-her-husbands-accumulated-money-and-jewelry
Missing: স্বামীর তিল তিল করে জমানো টাকা ও গয়না নিযে প্রেমিকের সঙ্গে পালাল স্ত্রী

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-08-07 13:26:47


টোটো কিনবেন বলে লক্ষাধিক টাকা জমিয়েছিলেন স্বামী। দিল্লিতে সেলাই কারখানায় শ্রমিকের কাজ করে তিল তিল করে বাড়িতে টাকা পাঠিয়ে এটা জমিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ভাগ্যের কী করুণ পরিহাস! সেই জমানো টাকা এবং বাড়িতে রাখা গয়না নিয়ে প্রেমিকের সঙ্গে চম্পট দিল স্ত্রী। ঘটনার জেরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকা জুড়ে। ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার ভিঙ্গল গ্রাম পঞ্চায়েতের ইসাদপুর গ্রামে।

দীর্ঘদিন ধরে দিল্লিতে সেলাই কারখানায় কাজ করতেন হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার ইসাদপুরের বাসিন্দা সোহরাব আলি। দিল্লি থেকে বাড়িতে টাকা পাঠাতেন। ইচ্ছে ছিল, টাকা জমিয়ে টোটো কিনে হরিশ্চন্দ্রপুর এলাকায় চালাবেন। তাই দিয়েই রোজগার করে সংসারের খরচ জোটাবেন। কিন্তু সেই আশায় জল ঢেলে জমানো প্রায় লক্ষাধিক টাকা নিয়ে পালিয়ে যান সোহরাব আলির স্ত্রী। 

স্বামী এবং শাশুড়ির অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরেই এলাকার একটি ছেলের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়েছিল বধূ। লক্ষাধিক টাকার সঙ্গে নিয়ে গিয়েছে বাড়িতে রাখা সোনার গয়নাও। সোহরাব আলির দুই পুত্রসন্তান। মা তাঁর দুই সন্তানকে শ্বশুরবাড়িতে ফেলে রেখেই পালিয়েছে বলে জানান স্বামী সোহরাব।

পলাতক বধূর শাশুড়ি সারাবানু জানালেন, বৌমার সঙ্গে আমার সম্পর্ক খুব ভালো ছিল। কিন্তু হঠাৎ করে এই ধরনের কাজ কেন ও করল, বুঝতে পারছি না। টাকাপয়সার সঙ্গে আমার সোনার গয়না নিয়েও পালিয়ে গিয়েছে। বাড়িতে ছোট দুটি ছেলে। এখন ওদের কী বলবো। পুলিসে অভিযোগ জানিয়েছি।

পলাতক বধূর মা রাহেলা বিবি জানান, ২০১১ সালে আমার মেয়ের সঙ্গে দেখাশোনা করে সোহরাবের বিয়ে হয়েছিল। প্রথম দিকে পরকীয়ার জন্য মেয়ের সঙ্গে ঝামেলা হত। কিন্তু পরে সব মিটমাট হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু হঠাৎ করে মেয়ে এই ধরনের সিদ্ধান্ত কেন নিল, পুলিস তদন্ত করে দেখুক।

সোহরাব আলি জানান, এলাকার এক ছেলের সঙ্গে, ও পরকীয়ার সম্পর্কে আবদ্ধ হয়েছিল। আমি সাবধান করার পরে আমার স্ত্রী আমাকে বলেছিল সে ভালো হয়ে গিয়েছে আর পরকীয়ায় জড়াবে না। কিন্তু এতদিন ধরে ও যে অভিনয় করে গিয়েছিল, এখন সেটা বুঝলাম। আমার জমানো সমস্ত টাকাও নিয়ে চলে গেছে। এখন কী করে টোটো কিনব। আবার আমাকে ভিন রাজ্যে গিয়ে শ্রমিকের কাজই করতে হবে।

এদিকে ঘটনার অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নেমেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিস।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন