০২ মার্চ, ২০২৪

Awas: প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় বাড়ি পেতে গুচ্ছ নির্দেশিকা নবান্নের, দেখুন কী বলছে রাজ্য
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2022-12-06 09:59:36   Share:   

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় (PMAY) অগ্রাধিকারে নাম চিহ্নিত করতে ১৫ দফা নির্দেশিকা দিল রাজ্য সরকার (Bengal Government)। উপভোক্তার নাম চিহ্নিত করার আগে দেখতে হবে সেই পরিবারের কোনও পাকা বাড়ি রয়েছে কিনা। পরিবারের কেউ অতীতে ইন্দিরা আবাস যোজনা (Indira Awas Yojana), প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, গীতাঞ্জলী বা অনুরূপ কোনও সরকারি আবাসন প্রকল্পের সুবিধা পেয়েছেন কিনা। সুবিধা পেয়ে থাকলে কোনওভাবেই এবার আবাস যোজনা প্রকল্পের সুযোগ পাবে না।

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের ১১ লক্ষ ৩৬ হাজার ৪৮৮টি বাড়ি গ্রামাঞ্চলে গরিব মানুষের জন্য তৈরি করার অনুমতি দিয়েছে। ১০ হাজার টাকার বেশি পরিবারের কারও মাসিক আয় হলে এই আওতায় আসবে না। পরিবারের কেউ সরকারি চাকরি করলে‌ বা আয়কর, বৃত্তি কর পরিবারের কেউ দিয়ে থাকলে তাঁদের নাম তালিকা থেকে বাদ দিতে হবে।

৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত ঋণ নেওয়ার ক্ষমতা সম্পন্ন কিষান ক্রেডিট কার্ড থাকলেও আবাস যোজনার প্রকল্পে আসবে না। একশো দিনের গ্রামীণ কর্মসংস্থান প্রকল্পে পাওয়া জব কার্ড সঠিক না নকল, তা যাচাই করতে হবে। কোনও ধরনের অনিয়ম পেলেই তা পোর্টালে গিয়ে জব কার্ড ব্লক করতে হবে। প্রতিটি গ্রামের আশাকর্মী, অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী, প্রাণী বন্ধু, গ্রামীণ পুলিস ও গ্রাম পঞ্চয়েতের কর্মীদের নিয়ে এই দল তৈরি করে তালিকার নাম চিহ্নিত করতে হবে।

সরকারি নির্দেশিকার মতো কাজ হয়েছে কিনা ২ শতাংশ ক্ষেত্রে জেলাশাসক নিজে যাচাই করে দেখবেন জেলাশাসক। ৩ শতাংশ ক্ষেত্রে মহকুমা শাসকের অফিস থেকে এবং ১০ শতাংশ ক্ষেত্রে বিডিও অফিস থেকে বাধ্যতামূলকভাবে যাচাই করতে হবে। অভিযোগ পাওয়া মাত্রই প্রয়োজন আধিকারিকরা সরজমিনে তদন্ত করে দেখবে।

নাম বাতিল করা হলে ও নতুন নাম অন্তর্ভুক্তির বিষয়টি নিয়ে গ্রামসভা ডেকে অনুমোদন করাতে হবে। থানার ওসি বা আইসি বিডিও অফিসের সঙ্গে আলোচনা করে র‍্যানডম চেকিং করবে সমীক্ষার সাহায্যে যাচাই করে জমা পড়ে তথ্য কতটা সঠিক। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের ১১ লক্ষ ৩৬ হাজার ৪৮৮টি বাড়ি গ্রামাঞ্চলে গরীব মানুষের জন্য তৈরি করে করার অনুমোদন দিয়েছে।


Follow us on :