ব্রেকিং নিউজ
Neglected-Durgapurs-busiest-road-Sanjeev-Sarani-increased-accidents-criminal-rampage
Durgapur: অবহেলিত দুর্গাপুরের ব্যস্ততম রাস্তা সঞ্জীব সরণী, বেড়েছে দুর্ঘটনা-দুষ্কৃতী তাণ্ডব

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-09-19 09:32:56


বিধানসভা ভোটের (Assembly vote) আগে রাস্তার আলোকিকরণের জন্য বিদ্যুতের খুটি বসানোর জন্য সিমেন্টের পিলার বসে। কিন্তু আজও সেই কাজ সম্পূর্ণ হয়নি। অন্ধকার নামলেই দুর্গাপুরের (Durgapur) কোকওভেন থানার অন্তর্গত করঙ্গপাড়া সংলগ্ন সঞ্জীব সরণীর মতো ব্যস্ততম রাস্তা আজও অন্ধকারে রয়ে গিয়েছে। আলোর অভাবে বেড়েছে দুর্ঘটনা (accident), বেড়েছে দুষ্কৃতী তাণ্ডব। ফলে অতিষ্ট এলাকাবাসী থেকে পথচারি।

দুর্গাপুর নগর নিগমের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডে পড়ে সঞ্জীব সরণী। দুর্গাপুরে বন্ধ সংস্থা জেশপ কারখানা পড়ে এই রাস্তার ওপর এছাড়াও রাস্তার আশেপাশে রয়েছে ছোট মাঝারি বেশ কয়েকটি কারখানা। রয়েছে একটা বড় বসতি। ভগৎ পল্লী করঙ্গপাড়া সহ আশপাশ এলাকার বেশ কয়েক হাজার মানুষ সঞ্জীব সরণীর এই রাস্তা ব্যবহার করেন। দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতাল সহ বেশ কয়েকটি স্কুল থেকে শুরু করে কারখানার শ্রমিকরা এই রাস্তা ব্যবহার করেন। স্বাভাবিকভাবেই এই রাস্তা দুর্গাপুরের অন্যতম ব্যস্ততম রাস্তা। কিন্তু অন্ধকার নামলেই এই রাস্তা মৃত্যুফাঁদ হয়ে পড়ে। রাস্তায় আলো থাকে না, ফলে যেমন বাড়ে দুর্ঘটনার সংখ্যা ঠিক তেমনি দুষ্কৃতীদের উৎপাত শুরু হয়।

দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ হয়ে পড়ে থাকা জেশপ কারখানার ভেতর থেকে দামি গাছ ও ভেতরে থাকা লোহার যন্ত্রাংশ একটু একটু করে চুরি হয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ। অর্থাৎ অন্ধকার নামলেই সঞ্জীব সরণীর গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তা কার্যত দুষ্কৃতীদের দখলে চলে যায় বলে অভিযোগ। স্থানীয়দের দীর্ঘদিনের দাবি মেনে গত বিধানসভা নির্বাচনের মাস তিনেক আগে সঞ্জীব সরণীর এই রাস্তার ওপর আলোকিকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল দুর্গাপুর নগর নিগম। প্রতিশ্রুতিমাফিক রাস্তার একপাশে বিদ্যুতের খুটি বসানোর জন্য সিমেন্টের পিলারও তৈরি হয়েছিল, খোঁড়া হয়েছিল গর্ত। কিন্তু আজও বিদ্যুতের খুটি বসেনি ঐ সিমন্টের পিলারে। ফলে অন্ধকার নামলেই একই যন্ত্রণার মধ্যে দিন কাটছে এলাকার মানুষের। রাতের বেলায় অন্ধকার এই রাস্তা কার্যত মরণফাঁদ পথচারীদের কাছে। ফলে আজও মিথ্যে রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতির কোনও দাম নেই। কিন্তু কেন এই যন্ত্রনা?

এই প্রশ্নের উত্তরে জেলা বিজেপির সহ সভাপতি চন্দ্রশেখর বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি, গত বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের এই খাসতালুকে বিজেপি থাবা বসায়। দুর্গাপুর নগর নিগমের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডে গত বিধানসভা নির্বাচনে ১১০ ভোটে লিড পায় বিজেপি। আর বন্ধ কারখানা থেকে যন্ত্রাংশ চুরি আর গাছ চুরির অবাধ কারবারে সায় আছে তৃণমূলের স্থানীয় নেতৃত্বের। এর ফলে রাস্তার আলোকিকরণের বিষয়ে আর গা করেনি কেউ, আর এর জেরে মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে।

যদিও বিজেপির এই অভিযোগকে অস্বীকার করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। বিজেপির পায়ের তলাতে মাটি নেই তাই মন মতো যা পারছে বলে দিচ্ছে। তৃণমূল মানুষের স্বার্থে সবসময় কাজ করে। রাস্তায় আলোকিকরণের প্রতিশ্রুতি পূরণ হবে বলে আস্বস্ত করেন তৃণমূল নেতৃত্ব।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন