১৬ এপ্রিল, ২০২৪

Ajit Maity: উত্তপ্ত সন্দেশখালি! অজিত মাইতির গ্রেফতারির দাবিতে বিক্ষোভ মহিলাদের, বাঁচতে সিভিকের বাড়িতে আশ্রয়
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2024-02-25 17:13:48   Share:   

কখনও পুলিসের শীর্ষ কর্তা তো কখনও মন্ত্রী মহোদয়, সন্দেশখালির ক্ষোভ প্রশমনে গ্রামে গ্রামে গিয়ে কথা বলছেন। কিন্ত ক্ষোভ কি আদৌ কমছে? বদলে প্রতিবাদ আরও জোড়ালো হচ্ছে। এবার পুলিসের সামনে শাড়ী, শাঁখা-সিঁদুর নিয়ে হাজির গ্রামের মহিলারা। রবিবার ফের কাছাড়িপাড়ায় গিয়ে এইভাবেই ক্ষোভের মুখে পড়তে হল পুলিসকে। শেখ শাহজাহানকে কেন গ্রেফতার করা যাচ্ছে না? এতদিন আইন কোথায় ছিল? এতদিন পুলিস-মন্ত্রী কোথায় ছিল? কেন মা-বোনের ইজ্জত নেওয়া হল? কেন রাস্তায় নামতে হল? জবাব চায় সন্দেশখালির মহিলারা? মহিলাদের ক্ষোভের মুখে কার্যত দিশেহারা পুলিস।  

দিনের পর দিন অমানবিক অত্যাচার চালিয়েছে শেখ শাহজাহান ও শেখ সিরাজউদ্দিনের সাগরেদরা। প্রতিবাদের আগুন নেভাতে তৎপর পুলিস-প্রশাসন। কিন্তু রাজ্য পুলিসের উপর আর ভরসা রাখতে পারছেন না ভুক্তভোগীরা। ‘সুজিত বসু গো ব্যাক’, লাল কালিতে লেখা এই পোস্টার নিয়ে পথে নামন মহিলারা। পাশাপাশি লাঠি-ঝাঁটা-জুতো হাতে বিক্ষোভ দেখায় মহিলারা। অভিযোগ, গুণ্ডা বাহিনীকে সুরক্ষা দিচ্ছে পুলিস। এমনকি সংবাদমাধ্যমের সামনে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধেও ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন গ্রামের মহিলারা।  

শিবু-উত্তমের পর অত্যাচারি শাসকের খাতায় নাম তৃণমূল নেতা অজিত মাইতির। শেখ শাহজাহান, শেখ সিরাজউদ্দিনের পাশাপাশি অজিত মাইতির গ্রেফতারির দাবিতে হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে সরব বিক্ষোভকারীরা। জনরোষ থেকে বাঁচতে সিভিক পুলিসের বাড়িতে গিয়ে লুকিয়ে পড়েন অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা। জনরোষ থামাতে কার্যত হিমশিম খেতে হয় পুলিসকে। যদিও নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেন অজিত মাইতি। তবে আইন মোতাবেক কাজ হবে বলে দাবি পুলিসের। 



Follow us on :