০২ মার্চ, ২০২৪

Shankar Adhya: রেশন দুর্নীতিতে বিদেশি মুদ্রা বিনিময় সংস্থার খোঁজ! এবারে ইডির স্ক্যানারে শঙ্কর আঢ্যর পরিবার
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2024-01-10 16:29:06   Share:   

এবার ইডির নজরে শঙ্কর আঢ্যর পরিবার। মা, ছেলে, মেয়ে, স্ত্রী, এমনকি ভাইয়ের নামেও নাকি বিদেশি মুদ্রা বিনিময় সংস্থা খুলে রেশনম বণ্টন দুর্নীতির কালো টাকা সাদা করছিলেন বনগাঁর প্রাক্তন চেয়ারম্যান শঙ্কর আঢ্য, দাবি ইডির। তার পরিপ্রেক্ষিতেই যে কোনও মুহূর্তে এবারে এই নেতার পরিবারের সদস্যদের তলব করা হতে পারে বলেই সূত্র মারফত খবর।

রেশন বণ্টন দুর্নীতিতে গ্রেফতার বনগাঁর প্রাক্তন চেয়ারম্যান তথা তৃণমূলের দাপুটে নেতা শঙ্কর আঢ্য। প্রায় প্রতিদিনই নতুন নতুন তথ্য উঠে আসছে এই দুর্নীতির তদন্তে। এবারে শঙ্কর আঢ্যর একাধিক সংস্থার হদিশ পাওয়া গিয়েছে, আর সেগুলো তাঁর পরিবারের সদস্যদের নামে খোলা হলেও তিনিই চালাতেন বলে জানা গিয়েছে। শুধু তাই নয়স ইডির অনুমান, এই সংস্থাগুলোর মাধ্যমে রেশন দুর্নীতির কালো টাকা সাদা করা হত। তাই এবারে তাঁর পরিবারের সদস্যদের তলব করা হতে পারে বলে খবর।

শুধু তাই নয়, এর পাশাপাশি পূর্ত দফতরের জমিতে জলাভূমি বুঝিয়ে বেআইনি নির্মাণের অভিযোগও উঠছে বনগাঁর প্রাক্তন চেয়ারম্যান শঙ্কর আঢ্যের বিরুদ্ধে। স্থানীয় সূত্রে খবর, ২০১৫ সাল নাগাদ পূর্ত দফতরের কাছ থেকে বনগাঁ পুরসভা কিছু উন্নয়নমূলক কাজের জন্য ওই দীঘির এক পাশের অংশ অধিগ্রহণ করে। এরপর সেই জমির পাশের অংশে ২০১৬ সাল নাগাদ বেআইনি নির্মাণ শুরু হয়। অবৈধ ভাবে ইচ্ছামতী নদীর বালি তুলে চলতে থাকে নির্মাণ কাজ। এমনকি পিডব্লিউডি কর্মীরা জমি মাপতে আসলে তাঁদের শারীরিকভাবে নিগ্রহ অবধি করে তৃণমূল নেতা শঙ্কর আঢ্যের অনুগামীরা। অভিযোগ উঠছে, চেয়ারম্যান থাকাকালীন বনগাঁ থানার বিপরীতে পুরসভার নামে বেআইনি হোটেল নির্মাণ করে ৯৯৯ বছরের লিজ নেন শঙ্কর আঢ্য। তবে নিজের নাম নয়, পরিবারের নামে, জানালেন স্থানীয়রা। 

পুরসভার  প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা দিয়ে এই নির্মাণ করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর৷ অথচ বছরে এই হোটেলের নামমাত্র ভাড়া শুনলে আপনার চোখ কপালে উঠবে। মাত্র ৫ হাজার টাকা ভাড়া দিতেন শঙ্কর আঢ্য। আর তাই শঙ্কর আঢ্য গ্রেফতার হতেই জলাভূমি ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে দাবিতে সোচ্চার বনগাঁর বাসিন্দারা। প্রশ্ন উঠছে ৯৯৯ বছরের লিজ নিয়েও।

রেশন দুর্নীতি কাণ্ডে গ্রেফতার হওয়ার পর শঙ্কর আঢ্যের বিরুদ্ধে তদন্তে, ইডির হাতে একাধিক বিস্ফোরক তথ্য উঠে আসছে। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে কাদের ছত্রছায়ায় এতো বাড়-বাড়ন্ত শঙ্কর আঢ্যের মতো নেতাদের? কোন প্রভাবশালীর প্রভাবে, এই একাধিক দুর্নীতিতে হাত পাকিয়েছিলেন শঙ্কর? শাসক সুপ্রিমোর মুখে কুলুপই বা কেন? উঠছে প্রশ্ন।


Follow us on :