ব্রেকিং নিউজ
Death-seven-years-ago-the-name-is-still-shining-in-the-voter-list
Voter List: সাত বছর আগে মৃত্যু, আজও ভোটার তালিকায় জ্বলজ্বল করছে নাম!

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-07-06 20:07:23


ভোটার তালিকায় ভুতুড়ে ভোটারের ছড়াছড়ি। আর শহর জুড়ে এই ভোটারদের দাপটেই রীতিমতো ত্রাহি ত্রাহি রব শহর দুর্গাপুরে। উদাহরণস্বরূপ ধরা যাক দুর্গাপুর নগর নিগমের ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা প্রফুল্ল শিকদারের কথা। ঠিকা শ্রমিকের কাজ করতেন প্রফুল্লবাবু। ২০১৯ সালে তিনি ব্রেন স্ট্রোকে মারা যান। কিন্তু আজও ভোটার তালিকায় তাঁর নাম জ্বলজ্বল করছে। প্রফুল্লবাবুর স্ত্রীর দাবি, অবিলম্বে এই ভোটার তালিকা থেকে তাঁর নাম বাদ দেওয়া হোক, নচেৎ বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে তাঁদের।

চন্দন রায়। দুর্গাপুর নগর নিগমের ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের সগরভাঙা রায়পাড়ার বাসিন্দা। বছর সাতেক আগে মারা যান চন্দনবাবু, মিলেছে ডেথ সার্টিফিকেটও। কিন্তু আজও ভোটার তালিকায় নাম রয়ে গিয়েছে মৃত চন্দন রায়ের। পরিবারের দাবি, প্রিয়জনের নাম বাদ করে দেওয়া হোক ভোটার তালিকা থেকে।

এইরকম অনেক নামই রয়ে গিয়েছে দুর্গাপুরের বেশ কিছু এলাকায়। যাঁরা মারা গিয়েও দিব্যি ভোটার হয়ে রয়ে গিয়েছেন সরকারি তালিকাতে। অগাস্ট মাসে তৃণমূল পরিচালিত দুর্গাপুর নগর নিগমের ভোট হওয়ার কথা রয়েছে। চলতি মাসের শেষের দিকে নোটিফিকেশন হবে বলে সূত্রমাফিক খবর মিলছে। এখন এই ভুতুড়ে ভোটাররা মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রশাসনের কাছে।

ঠিক এই জায়গা থেকে রাজ্যের শাসকদলকে নিশানা করেছে সিপিআইএম নেতৃত্ব। দলের জেলা নেতা পঙ্কজ রায় সরকার বলেন, আমরা দুর্গাপুরের মহকুমা শাসকের কাছে এই নিয়ে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছি। কিন্তু এরপরও কাজের কাজ না হলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামবে দল। একই অভিযোগে সরব হয়েছে জেলা বিজেপি নেতৃত্ব।

বিরোধীদের পাল্টা কটাক্ষ করেছেন তৃণমূল নেতা তথা দুর্গাপুর নগর নিগমের দুই নম্বর বরো চেয়ারম্যান রমাপ্রসাদ হালদার। তবে ঘটনা যাই ঘটে থাকুক না কেন, এই ভুতুড়ে ভোটারদের নিয়ে এখন শুধু প্রশাসন নয়, বিড়ম্বনা বেড়েছে তৃণমূলের অন্দরেও। কেন এতদিন পরেও মৃত ব্যক্তিদের নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ গেল না, তা নিয়ে বিস্তর প্রশ্ন উঠতে শুরু হয়েছে।







All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন