ব্রেকিং নিউজ
CM-Mamata-held-cabinet-meeting-in-Nabanna-over-various-issues
Nabanna: মন্ত্রীদের সতর্ক থাকতে নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর, রাজ্য ক্যাবিনেট বৈঠকে গুচ্ছ সিদ্ধান্ত

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-11-02 21:22:38


আগামি দিনে বিজেপি (BJP) বাংলায় অশান্তি তৈরি করতে পারে। রাজ্য মন্ত্রিসভার (State Cabinet) বৈঠকে এই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী (CM Mamata)। তাই মমতা মন্ত্রিসভার সদস্যদের সতর্ক থাকতে নির্দেশ রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের। রাজ্যজুড়ে নাকা চেকিং বাড়াতে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। নবান্নের (Nabanna) একটি সূত্র মারফৎ এই খবর। মূলত, নভেম্বরের শেষ থেকে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি পর্যন্ত সতর্ক থাকতে মন্ত্রীদের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। এমনটাই সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে।

পাশাপাশি এদিন রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে, এবার থেকে বিধবা ভাতার প্রাপকরাও লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের সুবিধা পাবেন। এমনকি বুধবারের রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে সিদ্ধান্ত, এখন থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়ে করতে হবে যেকোনও প্রকল্পের ঘোষণা। 

পরিবহন দফতর নবান্নকে না জানিয়ে বিভিন্ন রুটে বাস চালিয়ে দিচ্ছে, এটা করা যাবে না। ১০০ দিনের কাজে যারা যুক্ত তাদের অন্য দফতরের কাজে ব্যবহার করতে হবে। এমনকি, মেলায় খরচ কমাতে নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর‌‌। মেলার খরচ কমিয়ে ১০০ দিনের কাজে টাকা ব্যবহারের নির্দেশ দেন তিনি।

এদিকে, ক্যাবিনেট বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর অশান্তি পাকানোর আশঙ্কা প্রসঙ্গে বিজেপি জানিয়েছে, কোনও দলকে ভাঙানো যায় না। দল নিজের মতো করে চলে। সরকার যেভাবে চলছে তাতেই ডিসেম্বরের পর সরকার চালানো মুশকিল। বিজেপি এভাবে সরকার ভাঙানোর পক্ষপাতী নয়। বিজেপি মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেন, 'মুখ্যমন্ত্রী বাস্তব চিত্রটা জানেন। উনি দল এবং সরকার তৈরি করেছেন। একা সামনে দাঁড়িয়ে লড়াইয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন। বিজেপি কোনওদিন এই সরকারকে অগণতান্ত্রিক ভাবে ফেলার কথা বলেনি। সরকার যেভাবে চলছে, তাতে রাজ্যে চরম নৈরাজ্য। হেভিওয়েট মন্ত্রীরা গ্রেফতার হচ্ছেন, কেউ গ্রেফতারির জায়গায় চলে যাচ্ছেন। ধীরে ধীরে গৃহযুদ্ধের দিকে চলে যাচ্ছে। একটা অরাজক অবস্থা তৈরি হচ্ছে, এই সরকার, এখন সরকারে নেই। অস্তিত্ব রক্ষার লড়াইয়ে তৃণমূল আর টিকে থাকতে পারবে না, সেটা ইঙ্গিত পেয়েই এভাবে ঘুরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে।'

কংগ্রেস সাংসদ তথা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর খোঁচা, 'সর্বদলীয় বৈঠক ডাকুন মুখ্যমন্ত্রী। এত বড় ঘটনায় একা সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না মুখ্যমন্ত্রী। উনি আগে দলকে সামলান, যারা রাজ্যজুড়ে জহ্লাদরাজ কায়েম করেছে তাঁদের সামলান। মানুষের ক্ষোভ প্রশমিত করতে না পেরে এসব বাহানা তৈরি।'

সিপিএম-র সুজন চক্রবর্তীর কটাক্ষ, 'বিজেপি কী কী করতে পারে, ভালো জানেন মুখ্যমন্ত্রী নিজে। উনি বিজেপির সব অপরাধের শরিক। কারণ বিজেপিকে স্বাভাবিক শরিক মনে করেন মুখ্যমন্ত্রী।'

কীভাবে একটা নির্বাচিত সরকার পড়ে যেতে পারে? এই প্রশ্ন তুলেছেন তৃণমূলের রাজ্য সহ-সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার। তিনি বলেন, 'কী করে সরকারের পতন হবে? ভারতের আইন, সংবিধান আছে, একজন নির্বাচিত সরকার কীভাবে এভাবে পড়ে যেতে পারে? দেশে সংবিধান, আইন ব্যবস্থা নেই? এসব প্রচার করে বিজেপি হাওয়া গরম করছে।' 






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন