২৪ এপ্রিল, ২০২৪

History: তাঁর থেকে কেউ ভালো খেললেও, পেলে একজনই হয়! দেখুন সম্রাটের ইতিহাস
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2022-12-30 18:55:13   Share:   

পেলে নেই (Pele Demise)। শুধু এই একটা খবর যেন সব আলো নিভিয়ে দিয়েছে। পেলের চলে যাওয়া, একটা জীবন্ত ইতিহাসে শেষ দাঁড়ি পড়ে যাওয়া। একটা সময়, স্পোর্টস কুইজে অবশ্যম্ভাবী প্রশ্ন ছিল, ফুটবল সম্রাট পেলের পুরো নাম কী? এডসন আরান্তেস ডো নাসিমান্তো। বিজ্ঞানী থমাস এডিসনের নামে নামকরণ করা হয়েছিল এডসন। দারিদ্র, জীবনযুদ্ধ নিত্যসঙ্গী ছিল তাঁর। বুট কেনার পয়সাও ছিল না। কাগজের ফুটবল (World Football) বানিয়েই দুধের স্বাদ ঘোলে মেটানো। তাও বন্ধুদের নিয়ে তৈরি করলেন ফুটবল দল, দি সুলেস ওয়ান্স।

সেই পেলের ঝুলিতে ১২৮৩ গোলের রেকর্ড। মাত্র ১৫ বছর বয়সে যোগ দিলেন  ব্রাজিলিয়ান ক্লাব সান্তোসে। ১৯৬৯ সালের ১৯ নভেম্বর সেই সান্তোসের জার্সিতেই করে ফেললেন কেরিয়ারের এক হাজারতম গোল। সান্তোসের ইতিহাসে ১৯ নভেম্বর দিনটিকে পেলে দিবস হিসেবেই পালন করা হয়। লকার রুমে আলাদাভাবে সংরক্ষিত ফুটবল সম্রাটের লকার। ১৯ বছর বয়সে খেলে ফেললেন বিশ্বকাপ।

কনিষ্ঠতম ফুটবলার হিসেবে বিশ্বকাপ জয়, বিশ্বকাপে গোল, হ্যাটট্রিক সব, সব পেলের দখলে। যখন যেখানে খেলেছেন হ্যামলিনের বাঁশিওলার মতোই কাতারে কাতারে মানুষ সম্মোহিত হয়েছে তাঁর ফুটবলের জাদুতে। তৈরি হয়েছে রূপকথার গল্প।

১৯৬৭ সালে পেলে গেলেন নাইজেরিয়া। সুপার ঈগলদের বিরুদ্ধে ম্যাচ। ওদিকে দেশে আগুন জ্বলছে। শাসকের বিরুদ্ধে লড়াই। শুধু পেলের জন্যই দু'দিনের যুদ্ধবিরতি ঘোষিত হলো। পোপ ফ্রান্সিসকে নিজের সই করা জার্সি উপহার দিয়েছিলেন পেলে। ভ্যাটিকান সিটির সংগ্রহশালায় সযত্নে রাখা সেই জার্সি। সম্রাটকে মাঠে নামতে দেখেছে ফুটবলের মক্কাও। ১৯৭৭, ২৪ সেপ্টেম্বর। মোহনবাগানের আমন্ত্রণে কসমস ক্লাব এলো কলকাতায়। পেলের কসমসকে আটকে দিয়েছিলেন গৌতম সরকার, শিবাজী ব্যানার্জিরা। ২-২ গোলে শেষ হয়েছিল ম্যাচ। কলকাতায় জনবিস্ফোরণ। টুকরো টুকরো স্মৃতির কোলাজ ভেসে বেড়াচ্ছে তিলোত্তমায়।

শোকস্তব্ধ ব্রাজিল। দেশে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালিত হবে। আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতাল থেকে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে সান্তোস ক্লাবে।। শতাব্দীর সেরা ফুটবলারকে সেখানেই শ্রদ্ধা জানাবেন মানুষ। কারণ পেলে একজনই হয়, তাঁর থেকে কেউ ভালো খেলে ফেললেও। দ্বিতীয় পেলে হওয়ার প্রশ্নই নেই। কারণ ফুটবল সম্রাট নিজেই একবার বলেছিলেন, আমার মা-বাবা বহুদিন আগেই সন্তান উৎপাদন বন্ধ করে দিয়েছেন।


Follow us on :