ব্রেকিং নিউজ
  (15:40 PM)-ফের আগামি কাল গোয়া সফর করবেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়     (15:37 PM)-রাজ্য সরকারের সামাজিক প্রকল্পের জন্য ১০০০ কোটি টাকা ঋণ অনুমোদন করল বিশ্ব ব্যাঙ্ক     (14:19 PM)-কালিম্পং জেলার সামসিং ফাঁড়ির মণ্ডলগাও এবং খাসমহল গ্রামে ভল্লুকের আতঙ্ক      (14:17 PM)- বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাটিতে হাতির দলের তাণ্ডব। জখম ও মৃত একাধিক গবাদিপশু      (14:15 PM)-বাসন্তীতে উদ্ধার চারটি বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র। ধৃত এক। এলাকায় চাঞ্চল্য      (14:14 PM)-অবৈধ গ্যাস সিলিন্ডার রাখার অভিযোগে মঙ্গলকোটে গ্রেপ্তার এক ব্যক্তি     (14:13 PM)-ডোমজুড়ে পাওয়ার হাউসে অগ্নিকাণ্ড। একটি স্পঞ্জ কারখানায় আগুন     (14:12 PM)-বোমা বিস্ফোরণে জখম তিন শিশু। বহরমপুরের টিকটিকিপাড়া এলাকার ঘটনা     (10:42 AM)-মুম্বাইয়ের বহুতলে সকাল ৭টা নাগাদ আগুন, মৃত ২, হাসপাতালে ভর্তি ১৫     (10:40 AM)-৫ বি তিলজলা রোডে এক প্রৌঢ়ের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, প্রাথমিক ধারণা আত্মহত্য়া     (10:03 AM)-প্রয়াত প্রাক্তন ফুটবলার তথা কোচ সুভাষ ভৌমিক     (08:15 AM)-২৪ ঘণ্টায় দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪,৭৭৪, সুস্থ ২,৫১,৭৭৭      (08:07 AM)-করোনায় মৃত ৩৫, সংক্রমণের হার কমে ১২.৫৮ শতাংশ      (08:06 AM)-গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত ৯,১৫৪     (07:59 AM)-২২ থেকে ২৪ জানুয়ারি হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা     (07:58 AM)-পশ্চিমী ঝঞ্ঝার জেরে রাজ্য জুড়েই বৃষ্টির সম্ভাবনা  
oil-fry-tasty
food: তেলেভাজায় রসনাতৃপ্ত


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-01-06 12:11:21


সম্প্রতি বিদেশ থেকে খাদ্য চ্যানেলের নানান প্রতিনিধি আসছেন এ দেশে। তাদের চ্যানেলের জন্য খাবারের শুটিং করতে। তারা এ দেশের বিভিন্ন শহরে গিয়ে ওই জায়গার বিশেষ খাদ্যের রেসিপি বা খাওয়ার দৃশ্য তুলে ধরছেন। মুম্বাইয়ের পাও ভাজি কিংবা বড়া পাও থেকে হোটেল রেস্টুরেন্ট কিন্তু শেষ পর্যন্ত ওই রাস্তার পাওওয়ালারাই বাজি মাত করছে। কারণ খাচ্ছে বেশি বিক্রি বেশি। এ কিন্তু একধরণের তেলেভাজা।

দিল্লির রেস্টুরেন্ট ঘুরেও শেষ পর্যন্ত বাজিমাত করছে চানা বাটুরা। সেও ঘি বা তেলেভাজার রকমভেদ। দক্ষিণের বিষয়টি ভিন্ন হলেও সেখানেই সম্বর বড়ার বিক্রি বেশি। তাও তো তেলেই ভাজা। অতএব বাংলা বা কলকাতা বাদ দিলে বাকি শহরে ভাজাভুজি বিখ্যাত। গুজরাটি রাজস্থানীরাও ভাজা খাবার খেতেই ভালোবাসে। বিহারে আটার তৈরি বহু খাদ্য ভেজে খায় তারা এবং সেগুলি তেলেভাজার অঙ্গ।

সবশেষে বাংলার খাদ্য। বাঙালিরা ডালভাতে থাকে কিন্তু হোটেল বা রেস্তোরাঁ  ইত্যাদিতে নানান সুখাদ্য পাওয়া গেলেও মধ্যবিত্ত কিংবা নিম্নবিত্ত বাঙালির ভোজনের অন্যতম খাবার কিন্তু তেলেভাজা। শহর কলকাতার এমন কোনও জায়গা আছে যেখানে তেলেভাজার দোকান নেই। এই তেলেভাজাওয়ালা বেশির ভাগই রাস্তার ধারে উনুন জ্বেলে কড়াইয়ে তেল ঢেলে তেলেভাজা বানায়। এদের রোজগার অনেক অফিসবাবুদের থেকে বেশি। ওই দিয়ে সংসার চালায় তারা। আত্মসচেতন বাঙালি নিশ্চই নিয়মিত খায় তা। কিন্তু তাদের এই ব্যবসা করতে বললে সম্মানে লাগে।

বলা ভালো নেতাজি সুভাষ তেলেভাজা খেতে দারুন ভালোবাসতেন খেতেন নিয়মিত। হাতিবাগানের কাছে তাঁর প্রিয় একটি তেলেভাজার দোকান ছিল যেখান থেকে তেলেভাজা আসতো নেতাজির কাছে। তিনি উত্তর কলকাতার কোনও এক নির্দিষ্ট স্থানে গোপন মিটিং করতেন এবং ওইখানে ওই তেলেভাজা নিয়ে আসতো ওই দোকানের মালিক। ওই মালিক স্বাধীনতা সংগ্রামে পরোক্ষভাবে অংশ নিয়েছিলেন। আজও তাঁর বংশধররা দোকান চালাচ্ছে। আজকের দিনে সব খরচ বাদ দিয়েও রোজ ঘরে আসে ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা। সবাই হয়তো এমন রোজগার করে না কিন্তু তবুও যা পায় তা কম কিছু না। বাঙালির পছন্দের তালিকায় আলুর চপ থেকে মোচার চপ,বেগুনি থেকে পেঁয়াজি এছাড়াও চিংড়ির কাটলেট থেকে ফুলুরি সবই আছে। আসলে বাঙালির খাদ্যের একটি বড় অংশ মুখের রুচি সারছে তেলেভাজা খেয়ে। তাই বিদেশি খাদ্য রসিকদের কাছে তেলেভাজা এক রিসার্চের বিষয়।




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us