ব্রেকিং নিউজ
  (15:40 PM)-ফের আগামি কাল গোয়া সফর করবেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়     (15:37 PM)-রাজ্য সরকারের সামাজিক প্রকল্পের জন্য ১০০০ কোটি টাকা ঋণ অনুমোদন করল বিশ্ব ব্যাঙ্ক     (14:19 PM)-কালিম্পং জেলার সামসিং ফাঁড়ির মণ্ডলগাও এবং খাসমহল গ্রামে ভল্লুকের আতঙ্ক      (14:17 PM)- বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাটিতে হাতির দলের তাণ্ডব। জখম ও মৃত একাধিক গবাদিপশু      (14:15 PM)-বাসন্তীতে উদ্ধার চারটি বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র। ধৃত এক। এলাকায় চাঞ্চল্য      (14:14 PM)-অবৈধ গ্যাস সিলিন্ডার রাখার অভিযোগে মঙ্গলকোটে গ্রেপ্তার এক ব্যক্তি     (14:13 PM)-ডোমজুড়ে পাওয়ার হাউসে অগ্নিকাণ্ড। একটি স্পঞ্জ কারখানায় আগুন     (14:12 PM)-বোমা বিস্ফোরণে জখম তিন শিশু। বহরমপুরের টিকটিকিপাড়া এলাকার ঘটনা     (10:42 AM)-মুম্বাইয়ের বহুতলে সকাল ৭টা নাগাদ আগুন, মৃত ২, হাসপাতালে ভর্তি ১৫     (10:40 AM)-৫ বি তিলজলা রোডে এক প্রৌঢ়ের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, প্রাথমিক ধারণা আত্মহত্য়া     (10:03 AM)-প্রয়াত প্রাক্তন ফুটবলার তথা কোচ সুভাষ ভৌমিক     (08:15 AM)-২৪ ঘণ্টায় দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪,৭৭৪, সুস্থ ২,৫১,৭৭৭      (08:07 AM)-করোনায় মৃত ৩৫, সংক্রমণের হার কমে ১২.৫৮ শতাংশ      (08:06 AM)-গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত ৯,১৫৪     (07:59 AM)-২২ থেকে ২৪ জানুয়ারি হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা     (07:58 AM)-পশ্চিমী ঝঞ্ঝার জেরে রাজ্য জুড়েই বৃষ্টির সম্ভাবনা  
lodha-community-story
lodha অনুন্নয়নের 'আঁধার'


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-01-08 20:20:02


জঙ্গলমহল হাসছে, হাসছে কি? তাহলে "পেট পালবো নাকি শিক্ষিত করতে নিয়ে যাবো?" এই প্রশ্ন উঠছে কেন? আসলে পেট যে বড় বালাই। ছোট ছোট শিশুদের মুখে দুবেলা খাবার তুলে দিতে কি যে কষ্ট করতে হয় যে জানে, শুধু সেই জানে।

পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশিয়াড়ির লেঙ্গামারা গ্রাম। প্রায় বেশ কয়েকশো লোধা সম্প্রদায়ের মানুষের বাস এই গ্রামে। কেশিয়াড়ি বাজার থেকে মাত্র ৮ কিমি দূরে এই লোধা পাড়া। এখানেই ভাঙা ঘরে কষ্টের দিনযাপন। সময় বদলেছে, কিন্তু বদলায়নি এঁদের ভাগ্য। এঁরা গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করেন ভালো থাকার আশায়। কিন্তু ভালো হয় কি? উন্নয়নের ছিটেফোঁটাও তো এঁরা পান না। কেন বঞ্চিত এঁরা? উত্তর খুঁজে বেড়ান এইসব প্রান্তিক মানুষরা।

এক যুগ আগের লোধা সম্প্রদায় আর আজকের লোধা সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্য়ে তেমন ফারাক নেই। এখনও শাক,গুগলি তুলে হয় খাবারের সংস্থান। ২০২২ এও সেই একই ছবি। শালপাতার থালা,বাটি তৈরি করে চলে দিন গুজরান। তবে গ্রামে এসেছে বিদ্যুৎ। আলো জ্বললেও পরিবারের মুখে দুবেলা খাওয়ার তুলে দিতে সরকারের দেওয়া চালই যথেষ্ট নয়,এমনই জানালেন গ্রামবাসীরা।

অভিযোগ,সরকারি বেশ কিছু সাহায্য থেকেও বঞ্চিত থাকে এই এলাকার মানুষজন। হাতে গোনা দু একটা ঘর পেলেও বাকিদের মেলেনি। আর লেখাপড়া? তা দূরঅস্ত।  ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ তাদের গলায়, ভোট এলে দেখা মেলে রাজনৈতিক নেতাদের। তারা উন্নয়নের প্রতিশ্রুতিও দেন। ব্য়স ওই পর্যন্তই। কেউ কথা রাখে না। পরে আর পূরণ হয়না প্রতিশ্রুতি।

নেতাদের শুকনো প্রতিশ্রুতি আর চায় না এখানকার মানুষ। উন্নয়নের আলোটুকু নিতে কোথায় যেতে হবে তা ভেবে দিশাহীন প্রত্য়ন্ত গ্রামের মানুষরা।




All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us