ব্রেকিং নিউজ
Lived-by-begging-but-could-not-find-a-government-house
House: ভিক্ষা করে দিন গুজরান, তবুও মেলেনি সরকারি ঘর

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-07-16 13:43:23


একটি মাত্র জরাজীর্ণ মাটির কুঁড়ে ঘর, তাতেই ৬ জনের বাস। বাড়িতে রোজগার বলতে স্বাবলম্বী কোনও পুরুষ নেই, বাড়ির গৃহকর্তা ও তাঁর সন্তান বেশ কয়েক বছর আগে মারা গিয়েছেন। সে কারণেই রোজগার করার মতো সাবলম্বী কোনও পুরুষ নেই। এই মহিলারা কেউ বাড়ি বাড়ি বা কেউ প্রতিবেশীর কাছ থেকে এক প্রকার ভিক্ষা করে দিন গুজরান করেন। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি এক নম্বর ব্লকের নয়াপুট গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা নারায়ণী মাইতি, বয়স প্রায় ৭৫ ছুঁইছুঁই। তাঁর পরিবারে মোট সদস্য ৬ জন, তিনজন মহিলা ও নাবালক তিনজন।

পরিবারের কর্তা না থাকার ফলে পুরনো মাটির বাড়ি দিনে দিনে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হচ্ছে। সিএন এর ক্যামেরায় ধরা পড়ল ওই জরাজীর্ণ ধ্বংসস্তূপ মাটির বাড়িটি। এই বৃষ্টির মরসুমে ঝড়-বৃষ্টির দিনে মাটির দেওয়াল ভিজতে ভিজতে এবার খুলে পড়তে শুরু করেছে। বাড়িটির মাথার উপর আচ্ছাদন রয়েছে, তবে সেটাও একেবারে ভেঙে পড়ার অবস্থায়। কোনওমতে দুই একটা ত্রিপল চাপিয়ে রাখলেও এই বৃষ্টিতে কোনও কাজে লাগছে না তা আর। কারণ, তাতে রোদ জল লাগতে লাগতে এক প্রকার নষ্ট হয়ে গিয়েছে। ঘরের জন্য অনেকদিন ধরে আবেদন জানালেও প্রধান তথা প্রশাসনের তরফ থেকে আজ পর্যন্ত কেউ খোঁজটুকু পর্যন্ত রাখেনি। ওই দুঃস্থ পরিবারটি কীভাবে রয়েছে, কেউ জানতে আসেনি।

এই বৃষ্টির দিনে ঝড বাদল হলেই আশ্রয় নিতে হয় ছুটে প্রতিবেশীদের বাড়িতে। কারণ, বৃষ্টির যেভাবে ঝাপটা আসছে একটু একটু করে মাটি নরম হতে থাকছে, মাটি শুকিয়ে যাওয়ার আগে আবার বৃষ্টিতে ভিজে যায়। বাড়ির পুরোনো দিনের বাঁশ, কাঠ, সেও পোকা লেগে ঘূণ ধরতে শুরু করেছে। তাই প্রাণ বাঁচাতে অন্যের বাড়ির আশ্রয় নেওয়া ছাড়া আর কোনও পথ খোলা নেই এই ৬ জন মানুষের।

কবে মিলবে প্রশাসনের সহায়তা জানেন না তাঁরা। তাঁদের করুণ আবেদন, পাশে এসে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিক প্রশাসন।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন