ব্রেকিং নিউজ
  সাতসকালে আরামবাগের গোঘাটে রাস্তার উপর রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য      তারকেশ্বর বি পি আর রোড এলাকায় বাইক ও মারুতি গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষে মৃত এক, আহত চার     দক্ষিণ হাবরা এলাকায় সিভিক ভলেন্টিয়ারের বাড়িতে দুঃসাহসিক চুরি   
Eight-years-later-the-Chief-Minister-is-back-in-Durgapur
Land: আট বছর পর ফের মুখ্যমন্ত্রী দুর্গাপুরে, পাট্টা নিয়ে এখনও ঘুরছেন বুলু বাউড়িরা

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-06-28 12:12:33


বছর কয়েক আগে দুর্গাপুরের মাটি মেলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে জমির পাট্টা পেয়ে আজও জমি পাননি কাঁকসার বেশ কিছু অসহায় মানুষ। উল্টে সেই সরকারি খাস জমির একটা অংশ দখল করে নিয়েছেন এক প্রভাবশালী, অভিযোগ এমনই। দুয়ারে সরকার নয়, সরকারের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরে আজও মেলেনি নিজ ভূমি নিজ গৃহ প্রকল্পের সেই সুবিধা। হতভাগ্য পরিবারগুলি আজও রয়ে গিয়েছে ব্রাত্যদের তালিকায়।

নাম বুলু বাউড়ি, থাকেন দুর্গাপুরের কাঁকসার বানুনারা পশ্চিমপাড়াতে। পেট চালাতে অন্যের ঘরে পরিচারিকার কাজ করেন। চোখেমুখে বয়সের ছাপ স্পষ্ট। কিন্তু পেট যে বড় বালাই। তাই পড়শির দয়ায় এক চিলতে ঘরে কোনওরকমে মাথা গুঁজে চলছে দিনযাপন। সামনের বামুনারা হাটে ঝাঁটও দিতে যান বুলু বাউড়ি। ওই যে পেটে খিদের জ্বালা। তাই শরীর না চাইলেও এই বয়সে রুটিরুজির টানে তিনি আজ কোনও কিছুই ভাবেন না।  এমনটা কিন্তু হওয়ার ছিল না। ২০১৪ সালে পানাগড়ের বিরুডিহাতে মাটি মেলা হয়েছিল। সেই মঞ্চে ছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ছিলেন প্রশাসনিক আমলারা। সরকারের নিজ ভূমি নিজ গৃহ প্রকল্পে সেই সময় জমির পাট্টা তুলে দেওয়া হয়েছিল বুলু বাউরির হাতে। প্রকল্পের শর্তমাফিক বামুনারার বেনুবনে জমিও বন্টন হয়েছিল, প্রায় দেড় কাঠার মতো হবে সেই জমি। প্রতিশ্রুতি ছিল সরকার বাড়িও করে দেবে। বেশ খুশি ছিলেন বুলু বাউড়ি, সুদিন ফেরার স্বপ্নে বিভোর ছিলেন এই মানুষটি। দেখতে দেখতে কেটে গিয়েছে বেশ কয়েকটা বছর। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত থেকে নেওয়া সরকারি প্রকল্পের জমির পাট্টা আজ বিড়ম্বনার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে এই অসহায় মানুষটির কাছে। যে জমি বরাদ্দ ছিল তাঁর জন্য, সেই জমির একটা বড় অংশ আজ প্রভাবশালী এক ব্যক্তির কবজায়। তাই অন্যের দয়ায় এক চিলতে একটি ছোট্ট ঘরে কোনওরকমমে দিন গুজরান চলছে বৃদ্ধার। ভবিষৎ কোন পথে, জানা নেই বুলু বাউরির।

একই ছবি বামুনারা অঞ্চলের বাসিন্দা চিন্ময় ঘোষের। কোনওরকমে একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ জুটিয়েছেন তিনি। কিন্তু নো ওয়ার্ক নো পে অথাৎ এক অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দোরগোড়ায় চিন্ময়বাবু। একমাত্র কোলের সন্তানকে নিয়ে এইভাবে আর চলা যায় না। অগত্যা চিন্ময়বাবুর স্ত্রী অন্যের ঘরে কাজ করতে চলে যান অর্থাৎ পরিচারিকার কাজ। কিন্তু ২০১৪ সালের ওই মাটি মেলায় তিনিও নিজ ভূমি নিজ গৃহ প্রকল্পে জমির পাট্টা পেয়েছিলেন, বামুনারার বেনুবনে জমিও পেয়েছিলেন। কিন্তু এখানেও সেই প্রভাবশালী। নিজের বাড়ি বানাতে গিয়ে সরকারি খাস জমি এখন তাঁর কবজায়। সুতরাং ঘর না পেয়ে ছোট্ট একটা বাড়ি ভাড়া নিয়ে কোনওরকমে চলছে মাথা গোঁজার চেষ্টা।

এঁরা দুজন ছাড়াও রয়েছেন আরও বেশ কয়েকজন। ব্রাত্যদের তালিকায় রয়েছেন ডোমরু বিশ্বাস। জলের পাইপ লাইনে কাজ করতেন একটা সময়। একদিন কর্মরত অবস্থায় এক দুর্ঘটনায় দুটো পায়ে ভালোরকম আঘাত পান। আজ ভালো করে হাঁটতে পারেন না। সরকারি খাস জমির পাট্টা পেয়েছিলেন বটে, সেটাও আবার সেই মাটি মেলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত থেকে। না, জমিবাড়ি কিছুই হয়নি। অসহায় এই মানুষগুলো এক অনিশ্চিত ভবিষতের অন্ধকারময় আলোর পথিক।

ফের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুর্গাপুর সফরে। বুধবার দুর্গাপুরের প্রাণকেন্দ্র সিটি সেন্টারে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান জেলার প্রশাসনিক কর্তাদের নিয়ে। হয়তো প্রথা মেনে খারাপ পারফরম্যান্সের জন্য বকাবকি করবেন প্রশাসনিক কর্তাদের, কাউকে হয়তো ভালো কাজের জন্য প্রশংসা করবেন। কিন্তু এরপর???

দুর্গাপুরের কাঁকসার বিডিও পর্ণা দে বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু প্রশাসনিক এই আশ্বাসে আর এঁদের ভরসা নেই। এখন এঁরা প্রশ্ন তুলছেন, যদি জমি নাই পাবেন, তাহলে কী প্রয়োজন ছিল ঢাকঢোল পিটিয়ে এই পাট্টা দেওয়ার? কষ্টে ছিলাম, কষ্টেই থাকতাম। এখন তো হাজারো স্বপ্ন দেখে সেই স্বপ্ন ভাঙতে বসেছে।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন