ব্রেকিং নিউজ
cpm-is-returning-to-pre-poll-campaign
poll campaign:পুরভোটে প্রচারে ফিরছে সিপিএম

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-02-10 14:20:59


প্রতিবেদনটিতে হয়তো লেখা উচিত ছিল, 'প্রচারে ফিরছে বামেরা'। কিন্তু বাম শক্তি বলতে এখনও সিপিএম, অন্য দল যথা আরএসপি বা ফরওয়ার্ড ব্লক বা সিপিআই যে এখন কোথায়, কে খবর রাখে। একটা সময় খবরের কাগজের উপর লাল কালি দিয়ে ভোটের প্রচার করত কমিউনিস্টরা। অবশ্য তখন তাদের পয়সা ছিল না বলেই দাবি করত তারা। সেসব দিন তো কবেই শেষ হয়ে গিয়েছে। ৩৪ বছরের ক্ষমতাকে ধরে রেখে তাদের ভান্ডার এখন পরিপূর্ণ। অর্থাৎ ১০ বছর ক্ষমতায় না থাকলেও এখনও সিপিএমের যথেষ্ট পয়সা আছে বা আজও তারা চাঁদা পায়। দেওয়াল লিখন বা পোস্টার, হোর্ডিংয়ে অসাধারণ শিল্পের ছোঁয়া রাখত তারা।

কিন্তু ১০ বছর ক্ষমতার বাইরে থেকে সিপিএম অনেকটাই নিজেদের হারিয়ে ফেলেছে। বিগত বিধানসভা ভোট ও তার আগের লোকসভা ভোটে তাদের আসন শূন্য হয়ে গিয়েছে, তাদের ভোট চলে গিয়েছে বিজেপির দিকে। কিন্তু তারপর পুরসভা ভোটে অক্সিজেন পাওয়ার মতো তারা দুটি আসন পেয়ে মুখ রক্ষা করতে পেরেছে কলকাতায়। অবশ্য তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় এই যে, তাদের ভোট বেড়েছে এবার, বেড়েছে বিজেপির তুলনায়। অর্থাৎ বোঝা যাচ্ছে, বিজেপিতে যাওয়া কমিউনিস্টরা সামান্য হলেও ফিরে আসছে বা ভোট দিচ্ছে দলকে।

এবার শনিবার ৪ কেন্দ্রে পুরসভার ভোট এবং তারপর ২৭ ফেব্রুয়ারি পশ্চিমবঙ্গের ১০৮ টি কেন্দ্রে পৌরসভা ভোট। দেখা গেল, বিধানগর কেন্দ্রে বেশ কিছু দলীয় হোর্ডিং সিপিএমের এবং সেগুলি বেশ পড়ার মতো। তাছাড়া বিধাননগর, চন্দননগর, শিলিগুড়ি ও আসানসোলে ভালোই ভোটপ্রচার করছে তারা। এলাকায় এলাকায় দেওয়াল লিখনও সেরেছে। শোনা গেল, তাদের প্রচারে তারুণ্যের প্রভাব প্রবল এবার। অন্যদিকে আসন্ন পৌরসভা ভোটের প্রচারও শুরু করেছে তারা। এ ব্যাপারে বিধাননগর পুরনিগমের প্রার্থী সব্যসাচী দত্তকে প্রশ্ন করলে তিনি উত্তর দেন, আমরা কাউকে বাধা দেব কেন। সব দলেরই প্রচার করার অধিকার আছে এবং বামেরা অবশ্যই ভোটের দিন নিজেদের মতো করে এজেন্ট বসাবে বিভিন্ন বুথে। তৃণমূল আটকাবে কেন? বিধাননগরে শোনা গেল গুঞ্জন, সব্যসাচীর কেন্দ্রে বিজেপির এজেন্ট হিসাবে বসছে নাকি এলাকার কোনও এক বড় নেতার ঘনিষ্ঠ।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন