ব্রেকিং নিউজ
  পুজোর আগেই ফের দুইবঙ্গে বৃষ্টির পূর্বাভাস     নন্দীগ্রামে একটি বাড়ি থেকে উদ্ধার লক্ষাধিক টাকা, চাঞ্চল্য     শিলিগুড়ি মহাকুমার ফুলবাড়ী ঘোষপুকুর বাইপাস রাস্তায় টেলার ও ট্রাকের সংঘর্ষে ভয়াবহ দুর্ঘটনা, আশঙ্কাজনক অবস্থায় ৩     ক্যানিং-এ বাইক দুর্ঘটনায় মৃত্যু এক বৃদ্ধের, আটক বাইক চালক  
Bengal-BJP-alleges-TMC-leader-is-accused-of-drug-smuggling-in-North-24-Pargana
BJP: আফগান থেকে আসা তৃণমূল ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীর ২০০ কোটির হেরোইন আটক বন্দরে: বিজেপি

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-09-15 16:13:20


কয়লা পাচার, গোরু পাচার, লটারি দুর্নীতির পর এবার তৃণমূলের বিরুদ্ধে মাদক পাচারের (Drug Smuggling) অভিযোগ আনল বঙ্গ বিজেপি। বৃহস্পতিবার মুরলিধর সেন লেনে সাংবাদিক বৈঠক করে এই অভিযোগ তোলে গেরুয়া শিবির (BJP)। উপস্থিত ছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার-সহ অন্য নেতৃত্ব। রাজ্যের প্রধান বিরোধী দলের অভিযোগ, 'আফগানিস্থান (Afghanisthan), করাচি, দুবাই হয়ে কলকাতা বন্দরে এসেছিল ২০০ কোটি টাকার হেরোইন। সন্দেশখালি সড়বেরিয়া এলাকার ব্যবসায়ী সরিফুল মোল্লার সংস্থা সরিফুল এন্টারপ্রাইজের নামে ৪০ কেজির (40 KG) সেই ড্রাগস কনসাইনমেন্ট বুক ছিল। এই সরিফুল ইসলাম মোল্লা সরাসরি তৃণমূল কংগ্রেসের (TMC) সঙ্গে যুক্ত। এবং ওই এলাকার সন্দেশখালি এক এবং দুই নম্বর ব্লক সভাপতির ঘনিষ্ঠ।'

বিজেপির দাবি, ৯ সেপ্টেম্বর কলকাতা ডক থেকে সেই হেরোইন বাজেয়াপ্ত করে গুজরাত এটিএস, ডিআরআই। এরপর কাস্টমস এই মাদক পাচার নিয়ে সক্রিয় হতেই নিখোঁজ সরিফুল। সম্ভবত তাঁকে বাংলাদেশে পাচার করেছে শাসক দলের প্রভাবশালী মহল। রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল এদিন জানিয়েছে, সরবেড়িয়ায় ইমারতি দ্রব্য এবং দেশী নৌকা তৈরি করে। সেই ব্যক্তি কীভাবে ৪০ কেজি মাদক পাচার করিয়ে ২০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করে কলকাতা বন্দরে আনিয়েছে? এই গোটা চক্রের নেপথ্যে কে? 

গেরুয়া শিবিরের দাবি, 'সন্দেশখালির ত্রাস হিসেবে পরিচিত শিবু হাজরা এবং সন্দেশখালি এক ব্লকের সভাপতি শেখ শাহাজাহানের যোগসূত্রেই সরিফুল এই হেরোইন নিয়ে আসে।' এই অভিযোগ প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, 'এই প্রথম ভারত বর্ষের রাজনীতিতে কোনও এক রাজনৈতিক দলের সঙ্গে হেরোইন পাচার চক্রের যোগ পাওয়া গিয়েছে। তৃণমূল কংগ্রেস, সেই দলের কর্মীরা কি জড়িত? রাজ্যের শাসক দল কি এখন তালিবানের সঙ্গে যোগাযোগ করে মাদক পাচারে যুক্ত?'

তাঁর খোঁচা, 'সরিফুলের মতো ছোট ব্যবসায়ী কীভাবে এত টাকা বিনিয়োগ কীভাবে করল? তাহলে এতো কোটি টাকা কে জুগিয়েছে? এই বিনিয়োগের নেপথ্যে কি তৃণমূলের ওই দুই ব্লক সভাপতি? মাদক ভর্তি কন্টেনার কলকাতা বন্দরে আটকের পর শেখ শাহাজাহান কেন রাজ্যের এক গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীর চেম্বারে বৈঠক করেন?' বিজেপি সভাপতির প্রশ্ন, ' কে সেই মন্ত্রী? তিনি কি এই মাদক চক্রে জড়িত? এই মন্ত্রের সম্প্রতি দফতর পরিবর্তন হয়েছে, বলা বাহুল্য মুখ্যমন্ত্রী দুর্নীতির কারণে সেই দফতর পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছেন। সরিফুল একজন তৃণমূল কর্মী, সে এখন কোথায়? মূল অভিযুক্তকে সামনে এনে কি শাসক দল ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করতে পারবে?'

বিজেপির দাবি, 'রাজু নামে একজন সরিফুল মোল্লাকে সীমান্ত পার করিয়েছেন। কে সেই রাজু? স্থানীয়স্তরে খোঁজ করলেই তাঁর পরিচয় মিলবে। এই মাদক পাচার-কাণ্ডে এনআইএ তদন্তের আওতায় পড়তে পারে। কারণ রাজ্য পুলিসের এখন লক্ষ্য বিজেপিকে আটকানো, মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো।'






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন