দূরত্ববিধি মেনে ট্রেন চালানো সম্ভব নয়, সাফ জানিয়ে দিল মেট্রো

0
59

আনলক ওয়ানে স্বাভাবিকের পথে দেশ। অফিস-কাছারি, দোকানপাট-শপিংমল খুলে দেওয়া হলেও বন্ধ লোকাল ট্রেন ও মেট্রো পরিষেবা। এই পরিস্থিতিতে অতিরিক্ত ভিড় সামলাতে কলকাতা মেট্রোরেল চালানোর অনুরোধ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের চিঠি পেয়ে সোমবার নবান্নে বৈঠকে বসেছিল কলকাতা মেট্রোর শীর্ষকর্তারা। নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে ওই বৈঠকে মেট্রোর তরফে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে মেট্রো চালানো অসম্ভব। পাশাপাশি তাঁরা এও জানিয়েছে, রেলমন্ত্রকের অনুমতি ছাড়া মেট্রো চালানো সম্ভব নয়। এ ব্যাপারে রাজ্য সরকার রেল মন্ত্রকের কাছে আবেদন করুক। মেট্রো কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দিয়েছে, আপাতত ১২ আগস্ট পর্যন্ত বন্ধই থাকছে কলকাতার ‘নার্ভলাইন’ মেট্রোরেল।

kolkata Metro CN

রাজ্য সরকারের বক্তব্য ছিল সামাজিক দূরত্ববিধি ও যত সিট তত যাত্রী নিয়ে মেট্রোরেল চালু করাই যেতে পারে। যদিও এই বিষয়ে তৈরি হয়েছিল ধোঁয়াশা। কারণ একবার মেট্রো শুরুর স্টেশন থেকে ছাড়লে মধ্যবর্তী স্টেশনগুলিতে কীভাবে ‘যত সিট তত যাত্রী’ নিয়ম লাগু করা যায়? মেট্রো কর্তৃপক্ষ এদিন জানিয়ে দিয়েছে, শুধুমাত্র আরপিএফ দিয়ে এই নিয়মে মেট্রো চালানো সম্ভব নয়। এদিনের বৈঠকে রাজ্যের তরফে ছিলেন স্বরাষ্ট্রসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়, পরিবহণসচিব প্রভাত মিশ্র, কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা ও ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা। কলকাতা মেট্রোরেলের তরফে ছিলেন জেনারেল ম্যানেজার মনোজ যোশী ও চিফ অপারেটিং অফিসার সাত্যকি নাথ। মেট্রো সূত্রে খবর, সম্প্রতি ভাড়া বৃদ্ধির পরও প্রতিদিন প্রায় ৪ লাখ মানুষ যাতায়াত করতেন মেট্রোতে। এই সংখ্যার এক তৃতীয়াংশও যদি মেট্রোতে উঠে পড়েন তাহলে দূরত্ববিধি শিকেয় উঠতে বাধ্য। ফলে আপাতত মেট্রো চালু করা কার্যত অসম্ভব। যদিও সূত্রের খবর, রাজ্য সরকার শীঘ্রই রেলমন্ত্রকের কাছে মেট্রো চালানোর অনুরোধ করবে।