এনপিআর আতঙ্কে ব্যাঙ্ক খালি

0
468

খবরের কাগজে তামিলে বিজ্ঞাপন দেখে চক্ষু চড়কগাছ তামিলনাডুর থুথুকোডি জেলার কয়ালপট্টিনামের বাসিন্দাদের। ১১ জানুয়ারি সেন্ট্রাল ব্যাঙ্কের ওই বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছিল, অ্যাকাউন্ট যাদের আছে , তাদের কেওয়াই জমা দিতে হবে। যে নথি জমা দিতে বলা হয়েছে, তাতে এনআরপির কথাও রয়েছে।
মুসলিমপ্রধান গ্রাম পরদিন থেকেই ওই ব্যাঙ্কের সামনে পড়ে যায় লম্বা লাইন। আতহ্ক ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র।২০ থেকে ২২ জানুয়ারি লোকেরা উদভ্রান্তের মতো তাদের জমা টাকা তুলে নিতে শুরু করেন। সবমিলিয়ে তোলা হয় ৪ কোটিরও বেশি। অনেকের গচ্ছিত টাকার পুরোটাই তোলা হয়েছে।
তিনদিনে ব্যাঙ্ক প্রায় খালি হয়ে গিয়েছে। এমনিতে জানুয়ারিতে কেওয়াইসি চাওয়া স্বাভাভিক। তবে সেইসঙ্গে এনপিআরের উল্লেখ আতঙ্কিত করেছে সবাইকে। মুসলিমদের বক্তব্য, নাগরিকত্ব নিয়ে তাদের মনেই অনিশ্চয়তা রয়েছে পুরো মাত্রায়। এনপিআর, সিওও, এনআরসির ধাক্কায় দিশেহারা তাঁরা।
ভল্ট তেকে ক্রমাগত টাকা উধাও যাওয়ার পর এখন সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক ঘরে ঘরে গিয়ে বোঝাচ্ছে, আতঙ্কের কোনও কারণ নেই। তারা তাদের বক্তব্য লিখে পোস্টারও সাঁটছে। বাল হচ্ছে, এনপিআর বাধ্যামূলক কোনও নথি নয়। অটোতে চলছে মাইকে প্রচার। কেওয়াইসির জন্য প্রয়োজন আধার কিংবা প্যান কার্ড। এনপিআর চালু হওয়ার কথা এপ্রিল থেকে।

SHARE