পছন্দের আসন না পেয়েই বিজেপিতে? তড়িঘড়ি প্রার্থী বদল তৃণমূলের

শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন বিধানসভা কেন্দ্রে ক্ষোভের আগুন ধিকিধিকি জ্বলছে। এরমধ্যেই নজিরবিহীনভাবে প্রার্থী বদল করল তৃণমূল। মালদার হবিবপুর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থীকে শারীরিক অসুস্থতার জন্য সরিয়ে দিল দল। কিন্তু আসন কারণ অন্য বলেই জানা যাচ্ছে মালদা জেলা তৃণমূলের তরফে। তাঁর আসন পরিবর্তন করে এবার অপেক্ষাকৃত কঠিন আসনে প্রার্থী করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। মালদার হবিবপুরের তৃণমূল প্রার্থী সরলা মুর্মু এটা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। জানা যাচ্ছে তিনি সোমবারই বিজেপিতে যোগদান করতে পারেন। এমনকি মালদা জেলা পরিষদের ১৪ জন সদস্যকে নিয়ে সরলা মুর্মু ইতিমধ্যেই কলকাতায় পৌঁছে গিয়েছেন। দলের ঘোষিত প্রার্থীই যদি দলবদল করেন, তবে চরম বিড়ম্বনায় পড়তে হতে পারে। এই পরিস্থিতিতে তড়িঘড়ি হবিবপুর আসনে প্রার্থী বদল করল শাসকদল। সরলা মুর্মুকে সরিয়ে তাঁর জায়গায় নতুন প্রার্থী করা হল প্রদীপ বাস্কেকে। ফলে আচমকাই প্রার্থী বদল নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে জল্পনা তুঙ্গে।


গত শুক্রবার তৃণমূল নেত্রী দলীয় প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছিলেন। সেই তালিকায় মালদহ আসন থেকে সরিয়ে হাবিবপুর আসনে প্রার্থী করা হয় জেলা পরিষদের প্রাক্তন সভাধিপতি সরলা মুর্মুকে। প্রথম থেকেই তিনি এই কেন্দ্র বদল নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন। এমনকি হাবিবপুরেও তৃণমূলের একাংশ এই নতুন প্রার্থীকে মেনে নিতে চাননি। তাঁরাও প্রার্থী নিয়ে ক্ষোভ জানাতে থাকেন। এই জোড়া অসন্তোষে চরম অস্বস্তিতে পড়ে মালদা জেলা তৃণমূল। সরলা মুর্মুর দাবি ছিল, তাঁর জেতা আসন থেকে অপেক্ষাকৃত কঠিন আসনে পাঠানো হয়েছে। যেটা তিনি মেনে নিতে পারছেন না। উল্লেখ্য, সরলা মুর্মু কংগ্রেস ত্যাগ করেই তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। এবং মালদহ আসনে জিতে বিধায়ক হয়েছিলেন। কিন্তু এবার তাঁর কেন্দ্র বদল করতেই ক্ষুব্ধ হন সরলা মুর্মু। তিনি রবিবারই বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এবং রাতেই পৌঁছে যান কলকাতায়। সূত্রের খবর, সোমবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের হাত ধরে বিজেপি যোগ দেবেন।


উল্লেখ্য, মালদার হবিবপুর আসনটি ২০১৬ সালে জিতেছিলেন বাম-কং জোট প্রার্থী খগেন মুর্মু। কিন্তু পরে তিনিও বিজেপিতে যোগ দিয়ে মালদা উত্তর লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী হন। এবং এই কেন্দ্রে তিনি জিতে সাংসদও হয়েছেন। তাঁর ছেড়ে যাওয়া হবিবপুর বিধানসভা আসনে উপনির্বাচনে প্রায় ৩০ হাজার ভোটে জিতে যান বিজেপি প্রার্থী জোয়েল মুর্মু। এবারও তাঁর দাঁড়ানোর সম্ভাবনা বেশি বিজেপির টিকিটে। সাংগঠনিক দিক থেকে এই আসনে বিজেপির পাল্লা অনেকটাই ভারি। এখন হবিবপুরে ঘোষিত প্রার্থী এবং দলের একাংশ বিদ্রোহ ঘোষণা করায় তড়িঘড়ি প্রার্থী বদল করল শাসকদল।

আরও পড়ুন:
এবার করোনা-যুদ্ধে মমতা...

 |  8 hours ago

ভ্যাকসিন চেয়ে মোদীকে চিঠি মমতারআবেদন পর্যাপ্ত ওষুধ-অক্সিজেনেরও রাজ্যে এল ৫ লক্ষ টিকা

 |  9 hours ago

ঘরে ফেরালেন তৃণমূল নেতা, বাড়ি ফিরল বিজেপির ঘরছাড়ারা

 |  10 hours ago

দুটি ডোজ নেওয়ার পরও মৃত্যু, মৃত্যু স্বাস্থ্যকর্মীর

 |  10 hours ago

পুলিস হাসপাতাল হল কোভিড হাসপাতাল

 |  10 hours ago

মমতার শপথের দিনেই ধরনায় বিজেপি

 |  10 hours ago

করোনা মোকাবিলায় উদ্যোগ

 |  10 hours ago

কোভিড যোদ্ধাদের পাশে ম্যানকাইন্ড

 |  10 hours ago

করোনার শৃঙ্খল ভাঙতে জারি একগুচ্ছ বিধিনিষেধ

 |  13 hours ago

তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

 |  11 hours ago

বেড না পেয়ে অসহায় পরিবার, বাড়িতে চিকিৎসা আক্রান্তের

 |  11 hours ago

পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসককে সরাল নবান্ন, বদল ডিজি-এডিজি

 |  11 hours ago

কোভিড মোকাবিলায় শহরের দুই হাসপাতালে মমতা

 |  11 hours ago

এমন ঘটনা গণহত্যার চেয়ে কম নয়ঃ এলাহাবাদ হাইকোর্ট

 |  15 hours ago

বিরোধী নেতা কে ?

 |  13 hours ago

পছন্দের আসন না পেয়েই বিজেপিতে? তড়িঘড়ি প্রার্থী বদল তৃণমূলের

শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন বিধানসভা কেন্দ্রে ক্ষোভের আগুন ধিকিধিকি জ্বলছে। এরমধ্যেই নজিরবিহীনভাবে প্রার্থী বদল করল তৃণমূল। মালদার হবিবপুর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থীকে শারীরিক অসুস্থতার জন্য সরিয়ে দিল দল। কিন্তু আসন কারণ অন্য বলেই জানা যাচ্ছে মালদা জেলা তৃণমূলের তরফে। তাঁর আসন পরিবর্তন করে এবার অপেক্ষাকৃত কঠিন আসনে প্রার্থী করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। মালদার হবিবপুরের তৃণমূল প্রার্থী সরলা মুর্মু এটা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। জানা যাচ্ছে তিনি সোমবারই বিজেপিতে যোগদান করতে পারেন। এমনকি মালদা জেলা পরিষদের ১৪ জন সদস্যকে নিয়ে সরলা মুর্মু ইতিমধ্যেই কলকাতায় পৌঁছে গিয়েছেন। দলের ঘোষিত প্রার্থীই যদি দলবদল করেন, তবে চরম বিড়ম্বনায় পড়তে হতে পারে। এই পরিস্থিতিতে তড়িঘড়ি হবিবপুর আসনে প্রার্থী বদল করল শাসকদল। সরলা মুর্মুকে সরিয়ে তাঁর জায়গায় নতুন প্রার্থী করা হল প্রদীপ বাস্কেকে। ফলে আচমকাই প্রার্থী বদল নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে জল্পনা তুঙ্গে।


গত শুক্রবার তৃণমূল নেত্রী দলীয় প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছিলেন। সেই তালিকায় মালদহ আসন থেকে সরিয়ে হাবিবপুর আসনে প্রার্থী করা হয় জেলা পরিষদের প্রাক্তন সভাধিপতি সরলা মুর্মুকে। প্রথম থেকেই তিনি এই কেন্দ্র বদল নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন। এমনকি হাবিবপুরেও তৃণমূলের একাংশ এই নতুন প্রার্থীকে মেনে নিতে চাননি। তাঁরাও প্রার্থী নিয়ে ক্ষোভ জানাতে থাকেন। এই জোড়া অসন্তোষে চরম অস্বস্তিতে পড়ে মালদা জেলা তৃণমূল। সরলা মুর্মুর দাবি ছিল, তাঁর জেতা আসন থেকে অপেক্ষাকৃত কঠিন আসনে পাঠানো হয়েছে। যেটা তিনি মেনে নিতে পারছেন না। উল্লেখ্য, সরলা মুর্মু কংগ্রেস ত্যাগ করেই তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। এবং মালদহ আসনে জিতে বিধায়ক হয়েছিলেন। কিন্তু এবার তাঁর কেন্দ্র বদল করতেই ক্ষুব্ধ হন সরলা মুর্মু। তিনি রবিবারই বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এবং রাতেই পৌঁছে যান কলকাতায়। সূত্রের খবর, সোমবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের হাত ধরে বিজেপি যোগ দেবেন।


উল্লেখ্য, মালদার হবিবপুর আসনটি ২০১৬ সালে জিতেছিলেন বাম-কং জোট প্রার্থী খগেন মুর্মু। কিন্তু পরে তিনিও বিজেপিতে যোগ দিয়ে মালদা উত্তর লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী হন। এবং এই কেন্দ্রে তিনি জিতে সাংসদও হয়েছেন। তাঁর ছেড়ে যাওয়া হবিবপুর বিধানসভা আসনে উপনির্বাচনে প্রায় ৩০ হাজার ভোটে জিতে যান বিজেপি প্রার্থী জোয়েল মুর্মু। এবারও তাঁর দাঁড়ানোর সম্ভাবনা বেশি বিজেপির টিকিটে। সাংগঠনিক দিক থেকে এই আসনে বিজেপির পাল্লা অনেকটাই ভারি। এখন হবিবপুরে ঘোষিত প্রার্থী এবং দলের একাংশ বিদ্রোহ ঘোষণা করায় তড়িঘড়ি প্রার্থী বদল করল শাসকদল।

Tags:
TMC