বিধাননগরে কী এবার সুজিত-সব্যসাচী লড়াই?

শুক্রবারই পশ্চিমবঙ্গ সহ পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষনা করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ফলে এই রাজ্যের রাজনৈতিক দলগুলির তৎপরতা এখন তুঙ্গে। সাধারণত ভোট ঘোষণা হলেই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে দেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এটাই তৃণমূলে দীর্ঘদিনের রেওয়াজ। ফলে আজ-কালের মধ্যেই শাসকদলের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ পাওয়ার সম্ভবনা প্রবল। অপরদিকে প্রার্থী তালিকা নিয়ে বঙ্গ বিজেপিতেও তৎপরতা তুঙ্গে। সূত্রে খবর, পদ্ম শিবিরও খুব শীঘ্রই তালিকা প্রকাশ করে দেবে ভোটের ময়দানে সমানে সমানে টক্কর দেওয়ার জন্য। এর আগে বিভিন্ন কেন্দ্রে প্রার্থীর দৌঁড়ে কে কে এগিয়ে আছেন সেটা নিয়েও জল্পনা কল্পনা চলছে রাজ্য রাজনীতিতে।

কলকাতা লাগোয়া হাই প্রোফাইল বিধানসভা কেন্দ্র বিধাননগর। এই আসনটি তৃণমূলের দখলেই রয়েছে। বিদায়ী বিধায়ক রাজ্য রাজনীতির পরিচিত মুখ, তথা দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। কিন্তু এই আসনে বিজেপির প্রার্থী কে? রাজনৈতিক জল্পনায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া সব্যসাচী দত্তের নাম সামনে আসছে বিধাননগরের বিজেপি প্রার্থী হিসেবে। সব্যসাচী দত্ত, দীর্ঘদিনের কংগ্রেসী নেতা, পরে প্রায় জন্মলগ্ন থেকেই তৃণমূলের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। সম্প্রতি দলের সঙ্গে মনোমালিন্য হওয়ায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ সব্যসাচী দত্ত। বিধাননগর কর্পোরেশনে রূপান্তরিত হওয়ার পর তিনিই ছিলেন প্রথম মেয়র। পাশাপাশি সব্যসাচী তৃণমূলের টিকিটে রাজারহাট-নিউটাউন বিধানসভা আসনে জিতে বিধায়কও হয়েছিলেন। বিধাননগরে তাঁর প্রভাব যথেষ্টই রয়েছে। এবার তিনি নিউটাউন নয়, নিজের এলাকা থেকেই ভোটে দাঁড়াতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে।  সব্যসাচীর সঙ্গে সুজিত বসুর শীতল সম্পর্ক নিয়ে বিধাননগর, লেকটাউন ও দমদম এলাকায় প্রায় সকলেরই মুখে মুখে গুঞ্জন শোনা যায়। এই দুই গোষ্ঠীর কোন্দোল একসময় প্রকাশ্যেই চলছিল। এরপরই দল ছাড়ার পর সব্যসাচীকে দিল্লিতে ডেকে সম্মানের সঙ্গেই বিজেপিতে স্বাগত জানানো হয়। শোনা যায় তিনি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর খুব প্রিয় পাত্র।


এই বছরের প্রথম থেকেই শোনা যাচ্ছিল রাজারহাট-নিউ টাউন নয় নিজের এলাকা বিধাননগর থেকেই দাঁড়াতে চলেছেন সব্যসাচী। সন্দেহটি আরও প্রবল হয় যখন বিধাননগরের বাড়িতে বাড়িতে সব্যসাচীর নববর্ষের শুভেচ্ছা কার্ড পৌঁছাতে শুরু করায়। শুধু তাই নয় বিধাননগর বিধানসভার অন্তর্গত দক্ষিণ দমদম এলাকাতেও ওই শুভেচ্ছা পত্র পৌঁছে গিয়েছিল। কে কোন আসনে দাঁড়াবে তা অবশ্যই বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ঠিক করবে। কিন্তু অমিত ঘনিষ্ঠ যদি ইচ্ছা প্রকাশ করেন তবে তা শুধু সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করছেন বাংলার রাজনৈতিক মহল। তবে কি একুশের ভোটে বিধাননগরে সুজিত বনাম সব্যসাচী লড়াই দেখবে বঙ্গবাসী? উত্তর মিলবে শীঘ্রই।


 ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে বিধাননগর থেকে জিতেছিলেন তৃণমূলের সুজিত বসু। তিনি পেয়েছিলেন ৬৬,১৩০ ভোট। পরাজিত করেছিলেন জোট প্রার্থী কংগ্রেসের অরূনাভ ঘোষকে। তিনি পেয়েছিলেন ৫৯,১৪২ ভোট। সেবছর বিজেপি প্রার্থী ছিলেন সুশান্ত রঞ্জন পাল, তিনি পেয়েছিলেন ২১,৭৩৫ ভোট। অপরদিকে ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে এখানে বিজেপি ভালো ফল করেছিল। ২০১৯ লোকসভায় তৃণমূলের ডাঃ কাকলি ঘোষদস্তিদার বিধাননগরে পেয়েছিলেন ৫৮,৯৫৬ ভোট, সেখানে বিজেপি প্রার্থী মৃণালকান্তি দেবনাথ পেয়েছিলেন ৭৭,৮৭২ ভোট। ফলে এই বিধানসভা কেন্দ্রে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে শাসকদল তৃণমূল। তাই ২০২১-এর বিধানসভায় বিধাননগরে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আরও পড়ুন:
সিএনের খবরের জের, মৃত্যুর ১২ ঘন্টা পর দেহ উদ্ধার

 |  2 minutes ago

রাজ্যে অক্সিজেনের ঘাটতি মানলেন মমতা, টিকার জন্য ১০০ কোটির ফান্ড

 |  56 minutes ago

অন্নপূর্ণা পূজা ও রামনবমী

লাইফস্টাইল  |  3 hours ago

টিকা এবং মাস্ক মাস্ট

লাইফস্টাইল  |  3 hours ago

ভয়াবহ, হাসপাতালে অক্সিজেন ট্যাঙ্ক লিক হওয়ায় মৃত অন্তত ২২ রোগী

দেশ  |  4 hours ago

ফের অসুস্থ মদন মিত্র, ভর্তি এসএসকেএম হাসপাতালে

দেশ  |  4 hours ago

ঈদ হবে ঈদের দিনেবদল হবে ভোটের দিন থেকে যাবে 'বিষ' রাজনীতি

দেশ  |  5 hours ago

প্রচুর শিল্পের সম্ভাবনা রয়েছে বাংলাতে, রয়েছে নির্দিষ্ট পরিকল্পনা দাবি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর।

দেশ  |  5 hours ago

করোনার জেরভরা মরশুমে পাহাড়ে নেই পর্যটক মার খাচ্ছে পর্যটন ব্যবসা

দেশ  |  5 hours ago

জলসঙ্কটে নাজেহাল পরিস্থিতি কেন্দ্রের কোটি কোটি টাকা নয়ছয়

দেশ  |  5 hours ago

প্রচারে ঝড় তুললেন বোলপুর বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়

দেশ  |  5 hours ago

ভারতেই মিলছে সস্তায় ভ্যাকসিন দেশবাসীকে আশ্বাস প্রধানমন্ত্রীর

দেশ  |  5 hours ago

রাজ্যগুলিকে ৪০০ টাকায় টিকা দেবে সিরাম, বেসরকারি হাসপাতালকে কত?

দেশ  |  5 hours ago

লকডাউন নয়, সচেতন হোন দেশবাসীকে বার্তা প্রধানমন্ত্রীর

দেশ  |  5 hours ago

মাস্ক না পরলেই ৫০০ টাকা জরিমানা করোনা আবহে চরম সতর্কতা হাওড়া স্টেশনে

দেশ  |  6 hours ago

বিধাননগরে কী এবার সুজিত-সব্যসাচী লড়াই?

শুক্রবারই পশ্চিমবঙ্গ সহ পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষনা করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ফলে এই রাজ্যের রাজনৈতিক দলগুলির তৎপরতা এখন তুঙ্গে। সাধারণত ভোট ঘোষণা হলেই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে দেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এটাই তৃণমূলে দীর্ঘদিনের রেওয়াজ। ফলে আজ-কালের মধ্যেই শাসকদলের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ পাওয়ার সম্ভবনা প্রবল। অপরদিকে প্রার্থী তালিকা নিয়ে বঙ্গ বিজেপিতেও তৎপরতা তুঙ্গে। সূত্রে খবর, পদ্ম শিবিরও খুব শীঘ্রই তালিকা প্রকাশ করে দেবে ভোটের ময়দানে সমানে সমানে টক্কর দেওয়ার জন্য। এর আগে বিভিন্ন কেন্দ্রে প্রার্থীর দৌঁড়ে কে কে এগিয়ে আছেন সেটা নিয়েও জল্পনা কল্পনা চলছে রাজ্য রাজনীতিতে।

কলকাতা লাগোয়া হাই প্রোফাইল বিধানসভা কেন্দ্র বিধাননগর। এই আসনটি তৃণমূলের দখলেই রয়েছে। বিদায়ী বিধায়ক রাজ্য রাজনীতির পরিচিত মুখ, তথা দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। কিন্তু এই আসনে বিজেপির প্রার্থী কে? রাজনৈতিক জল্পনায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া সব্যসাচী দত্তের নাম সামনে আসছে বিধাননগরের বিজেপি প্রার্থী হিসেবে। সব্যসাচী দত্ত, দীর্ঘদিনের কংগ্রেসী নেতা, পরে প্রায় জন্মলগ্ন থেকেই তৃণমূলের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। সম্প্রতি দলের সঙ্গে মনোমালিন্য হওয়ায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ সব্যসাচী দত্ত। বিধাননগর কর্পোরেশনে রূপান্তরিত হওয়ার পর তিনিই ছিলেন প্রথম মেয়র। পাশাপাশি সব্যসাচী তৃণমূলের টিকিটে রাজারহাট-নিউটাউন বিধানসভা আসনে জিতে বিধায়কও হয়েছিলেন। বিধাননগরে তাঁর প্রভাব যথেষ্টই রয়েছে। এবার তিনি নিউটাউন নয়, নিজের এলাকা থেকেই ভোটে দাঁড়াতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে।  সব্যসাচীর সঙ্গে সুজিত বসুর শীতল সম্পর্ক নিয়ে বিধাননগর, লেকটাউন ও দমদম এলাকায় প্রায় সকলেরই মুখে মুখে গুঞ্জন শোনা যায়। এই দুই গোষ্ঠীর কোন্দোল একসময় প্রকাশ্যেই চলছিল। এরপরই দল ছাড়ার পর সব্যসাচীকে দিল্লিতে ডেকে সম্মানের সঙ্গেই বিজেপিতে স্বাগত জানানো হয়। শোনা যায় তিনি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর খুব প্রিয় পাত্র।


এই বছরের প্রথম থেকেই শোনা যাচ্ছিল রাজারহাট-নিউ টাউন নয় নিজের এলাকা বিধাননগর থেকেই দাঁড়াতে চলেছেন সব্যসাচী। সন্দেহটি আরও প্রবল হয় যখন বিধাননগরের বাড়িতে বাড়িতে সব্যসাচীর নববর্ষের শুভেচ্ছা কার্ড পৌঁছাতে শুরু করায়। শুধু তাই নয় বিধাননগর বিধানসভার অন্তর্গত দক্ষিণ দমদম এলাকাতেও ওই শুভেচ্ছা পত্র পৌঁছে গিয়েছিল। কে কোন আসনে দাঁড়াবে তা অবশ্যই বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ঠিক করবে। কিন্তু অমিত ঘনিষ্ঠ যদি ইচ্ছা প্রকাশ করেন তবে তা শুধু সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করছেন বাংলার রাজনৈতিক মহল। তবে কি একুশের ভোটে বিধাননগরে সুজিত বনাম সব্যসাচী লড়াই দেখবে বঙ্গবাসী? উত্তর মিলবে শীঘ্রই।


 ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে বিধাননগর থেকে জিতেছিলেন তৃণমূলের সুজিত বসু। তিনি পেয়েছিলেন ৬৬,১৩০ ভোট। পরাজিত করেছিলেন জোট প্রার্থী কংগ্রেসের অরূনাভ ঘোষকে। তিনি পেয়েছিলেন ৫৯,১৪২ ভোট। সেবছর বিজেপি প্রার্থী ছিলেন সুশান্ত রঞ্জন পাল, তিনি পেয়েছিলেন ২১,৭৩৫ ভোট। অপরদিকে ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে এখানে বিজেপি ভালো ফল করেছিল। ২০১৯ লোকসভায় তৃণমূলের ডাঃ কাকলি ঘোষদস্তিদার বিধাননগরে পেয়েছিলেন ৫৮,৯৫৬ ভোট, সেখানে বিজেপি প্রার্থী মৃণালকান্তি দেবনাথ পেয়েছিলেন ৭৭,৮৭২ ভোট। ফলে এই বিধানসভা কেন্দ্রে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে শাসকদল তৃণমূল। তাই ২০২১-এর বিধানসভায় বিধাননগরে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

Tags:
missionnabanna
wb election 2021
bidhannagar
sujit bose
Sabyasachi Dutta

এই সংক্রান্ত আরও খবর পড়ুন :

প্রচারে ঝড় তুললেন বোলপুর বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়
বীরভূমে বোমা বাঁধার সময় বিস্ফোরণ, আমডাঙায় বিজেপি কর্মীর বাড়িতে হামলা
মাড়গ্রামের হামলায় এফআইআর ভারতীর জেলা জুড়ে রুটমার্চের দাবি
ষষ্ঠ দফার ভোটের আগে উত্তপ্ত ব্যারাকপুর-জগদ্দল-কাঁচড়াপাড়া, বোমাবাজি, মৃত ১
হরিহরপাড়ায় কংগ্রেস কর্মীকে বোমা মেরে খুন ,জখম আরও ১৫ জন
শীতলকুচি কাণ্ডে ভোটকর্মীদের লিখিত বয়ান জেলাশাসকের দফতরে বয়ান জমা এখনও আতঙ্কিত ভোটকর্মীরা
ষষ্ঠ দফার ভোটের আগেও জেলায় জেলায় অব্যাহত বোমা ও আগ্নেয়াস্ত্র মজুতের ঘটনা
রাজ্যে এলেও কার্যত ভার্চুয়াল সভা করবেন মোদি
ষষ্ঠ দফায় কমিশনের নজরে ব্যারাকপুর, থাকবে ১০৭ কোম্পানি বাহিনী
মমতার অডিও টেপ নিয়ে CEO দফতরের রিপোর্ট তলব নির্বাচন কমিশনের