এর নাম ক্রিকেট ?

চেন্নাই টেস্টে ইংল্যান্ড ভারত ও ইংল্যান্ডের দুই দলের মধ্যে দুই ইনিংসে ৪-৫ জন ছাড়া কেউ দাঁড়াতেই পারেননি ক্রিজে। কারণ লাট্টুর মতো বল স্পিন করছিল চেন্নাইয়ের পিচে। কোন বলটি কতটা বাঁক নেবে তা স্বয়ং বোলারও বুঝতে পারেননি। শোনা যাচ্ছে যে ওই ভাবেই পিচে জল না দিয়ে ভারী রোলার চালিয়ে প্রথম দিন থেকেই উইকেটের বারোটা বাজিয়ে দেওয়া হয়েছিল। ফলে চেন্নাইয়ে লো স-স্কোরিং টেস্ট হয়েছিল। যুক্তি হিসাবে ভারতের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল বিদেশ যদি পেস নির্ভর পিচ করতে পারে তবে ভারত স্পিনিং পিচ করলেই দোষ ? সঠিক যুক্তি কিন্তু তাই বলে এই ! চেন্নাইয়ের থেকেও খারাপ পিচ আহমেদাবাদে। প্রথমে ব্যাট করে ইংল্যান্ড ১১২ রানে অলআউট এবং ভারত নিজের মাটিতে ১৪৫ রানে। রোহিত শর্মার ইনিংস বাদ দিলে কারুর খাতায় ৩০ রানও নেই। চেন্নাইতে ৪ দিনের মধ্যে খেলা শেষ হয়ে গিয়েছিল আর আহমেদাবাদে ৩ দিনও খেলা গড়াবে কিনা সন্দেহ। নেহাত স্টপগ্যাপ বোলার ইংল্যান্ডের অধিনায়ক জো রুট ৫ উইকেট পেয়ে গেলেন আমেদাবাদে। এবং তিনি নিজেই অবাক এই ঘূর্ণি উইকেট দেখে। আর যাই হোক প্রধানমন্ত্রীর নামাঙ্কিত স্টেডিয়ামে এই খেলা দেখতে মাঠে বা টিভির সামনে আর কেউ থাকবে কিনা সন্দেহ।                

Tags:
Ind vs Eng