গুঞ্জন মমতা মন্ত্রিসভার ভাবী অর্থমন্ত্রী নিয়েও

কে হবেন মমতা মন্ত্রিসভার নতুন অর্থমন্ত্রী? রাজ্যে তৃতীয়বারের জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের সরকার গঠনের আগে এখন এই প্রশ্নই ঘুরছে সকলের মুখে। কারণ শারীরিক অসুস্থতার কারণে এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি বিদায়ী অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। ২০১১ ও ২০১৬ সালে পর পর দু’বার খড়দহ বিধানসভা কেন্দ্র থেকে ভোটে জিতে মমতা মন্ত্রিসভার অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলেছেন। গত ১০ বছর ধরে নানাভাবে রাজ্যের অর্থনীতিকে সচল রেখেছেন তিনি। তাঁর আমলে বেড়েছে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ। জিএসটি কার্যকরের ক্ষেত্রেও তাঁর অবদান ছিল গুরুত্বপূর্ণ। চালু হয়েছে একাধিক সামাজিক প্রকল্প। সরকারি কর্মচারিদের জন্য চালু হয়েছে সংশোধিত বেতনক্রম। আমফান বা করোনার ধাক্কা সামলেও সচল রয়েছে রাজ্যের অর্থনীতি।

তাই স্বভাবতই কে হবেন রাজ্যের নতুন অর্থমন্ত্রী, এই প্রশ্ন যথেষ্ট ভাবাচ্ছে তৃণমূল নেতৃত্বকে। সূত্রের খবর, নির্বাচনে জয়ীদের মধ্যে এমন কেউ রয়েছেন বলে মনে করছে না দল।  আর তাই অমিত মিত্রকে বুঝিয়ে রাজি করানোর সম্ভাবনা এখনই খারিজ করা যাচ্ছে না।  সেক্ষেত্রে পরে তাঁকে জিতিয়ে আনা হতে পারে। অন্যথায় মুখ্যমন্ত্রী নিজেই গুরুত্বপূর্ণ এই দফতরটি নিজের হাতে রাখতে পারেন। না হলে অর্থনীতিতে বিশেষজ্ঞ কোনও ব্যক্তিকে এই মন্ত্রিত্ব দেওয়ার কথা ভাবতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেউ কেউ আবার ভাবী অর্থমন্ত্রী হিসাবে বিদায়ী শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নামও সামনে আনছেন।    

রাজ্যের অর্থমন্ত্রী নিয়ে এই জল্পনার পাশাপাশি গু়ঞ্জন চলছে মমতার তৃতীয় মন্ত্রিসভায় নতুন সদস্যদের নিয়েও। কারণ আগেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গেছেন রাজ্যের দুই মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারি ও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। ভোটে লড়েও হারতে হয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঘোষ ও গৌতম দেবদের। টিকিট পাননি বিদায়ী মন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা। তাই মন্ত্রী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে এবার তারুণ্য ও যোগ্যতাকে মান্যতা দেওয়া হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই। বাড়তে পারে খ্যালঘুদের প্রতিনিধিত্ব। প্রয়াস থাকবে আঞ্চলিক ভারসাম্য বজায় রাখারও। উত্তর ২৪ পরগনার এক যুব নেতার পাশাপাশি মালদা ও মুর্শিদাবাদ থেকে নির্বাচিত তিন-চারজন বিধায়ককে মন্ত্রিসভায় দেখা যেতে পারে। চণ্ডীপুরের তারকা-বিধায়ক সোহম চক্রবর্তীর মন্ত্রিসভায় আসা নিয়েও চলছে জোর জল্পনা।  পাশাপাশি মমতার তৃতীয় মন্বাত্দরিসভা থেকে পড়তে পারেন একাধিক পুরনো মন্ত্রীও।

আরও পড়ুন:
বন্ধ স্কুলেই ‘সেফ’ হোম তৈরির উগ্যোগ নিল রাজ্য সরকার

 |  38 minutes ago

নারদ মামলাঃ সুপ্রিম কোর্টে যাবে তৃণমূল? আগাম ক্যাভিয়েট দাখিল করছে CBI

 |  2 hours ago

ফিরহাদদের গ্রেফতারের বিরোধিতায় বিরোধী দলগুলি

 |  2 hours ago

রাতভর তাণ্ডব চালল ঘূর্ণিঝড় ‘তকতে’, মহারাষ্ট্রে মৃত ৬, তছনচ গুজরাট উপকূল

দেশ  |  3 hours ago

করোনায় রেহাই নেই শিশুদেরও ১০ বছরের কম বয়সী শিশুরা বেশি আক্রান্ত

দেশ  |  3 hours ago

সংক্রমণের আশঙ্কায় চাহিদায় ভাটা ক্ষতির মুখে নদিয়ার মাছ ব্যবসায়ীরা

দেশ  |  4 hours ago

একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু দেশে, তবুও কমল দৈনিক সংক্রমণ

দেশ  |  4 hours ago

করোনাকালে বেড়েছে চাহিদা তুলনায় নেই জোগান, যার প্রভাব পড়েছে দামে

দেশ  |  4 hours ago

করোনা বিধি কার্যকরে পথে পুলিস চলছে সচেতনতার প্রচার

দেশ  |  4 hours ago

জেলে অসুস্থ মদন, শোভন

দেশ  |  5 hours ago

শিলিগুড়িতে এক, কলকাতায় আরেক...!

দেশ  |  6 hours ago

সক্রিয় সিবিআই, তোপে রাজ্যপাল 'আইনের শাসনহীনতা'য় উদ্বিগ্ন ধনকর

দেশ  |  6 hours ago

সিবিআই 'তোতাপাখি' নয়, দাবি বিজেপির

দেশ  |  6 hours ago

'প্রতিহিংসার রাজনীতি', তিরে মোদী-শাহ নারদকাণ্ডে ফের সংঘাতে কেন্দ্র-রাজ্য

দেশ  |  7 hours ago

জামিন স্থগিত, বুধবার শুনানি

দেশ  |  7 hours ago

নতুন-মুখ জল্পনা

গুঞ্জন মমতা মন্ত্রিসভার ভাবী অর্থমন্ত্রী নিয়েও

কে হবেন মমতা মন্ত্রিসভার নতুন অর্থমন্ত্রী? রাজ্যে তৃতীয়বারের জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের সরকার গঠনের আগে এখন এই প্রশ্নই ঘুরছে সকলের মুখে। কারণ শারীরিক অসুস্থতার কারণে এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি বিদায়ী অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। ২০১১ ও ২০১৬ সালে পর পর দু’বার খড়দহ বিধানসভা কেন্দ্র থেকে ভোটে জিতে মমতা মন্ত্রিসভার অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলেছেন। গত ১০ বছর ধরে নানাভাবে রাজ্যের অর্থনীতিকে সচল রেখেছেন তিনি। তাঁর আমলে বেড়েছে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ। জিএসটি কার্যকরের ক্ষেত্রেও তাঁর অবদান ছিল গুরুত্বপূর্ণ। চালু হয়েছে একাধিক সামাজিক প্রকল্প। সরকারি কর্মচারিদের জন্য চালু হয়েছে সংশোধিত বেতনক্রম। আমফান বা করোনার ধাক্কা সামলেও সচল রয়েছে রাজ্যের অর্থনীতি।

তাই স্বভাবতই কে হবেন রাজ্যের নতুন অর্থমন্ত্রী, এই প্রশ্ন যথেষ্ট ভাবাচ্ছে তৃণমূল নেতৃত্বকে। সূত্রের খবর, নির্বাচনে জয়ীদের মধ্যে এমন কেউ রয়েছেন বলে মনে করছে না দল।  আর তাই অমিত মিত্রকে বুঝিয়ে রাজি করানোর সম্ভাবনা এখনই খারিজ করা যাচ্ছে না।  সেক্ষেত্রে পরে তাঁকে জিতিয়ে আনা হতে পারে। অন্যথায় মুখ্যমন্ত্রী নিজেই গুরুত্বপূর্ণ এই দফতরটি নিজের হাতে রাখতে পারেন। না হলে অর্থনীতিতে বিশেষজ্ঞ কোনও ব্যক্তিকে এই মন্ত্রিত্ব দেওয়ার কথা ভাবতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেউ কেউ আবার ভাবী অর্থমন্ত্রী হিসাবে বিদায়ী শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নামও সামনে আনছেন।    

রাজ্যের অর্থমন্ত্রী নিয়ে এই জল্পনার পাশাপাশি গু়ঞ্জন চলছে মমতার তৃতীয় মন্ত্রিসভায় নতুন সদস্যদের নিয়েও। কারণ আগেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গেছেন রাজ্যের দুই মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারি ও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। ভোটে লড়েও হারতে হয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঘোষ ও গৌতম দেবদের। টিকিট পাননি বিদায়ী মন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা। তাই মন্ত্রী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে এবার তারুণ্য ও যোগ্যতাকে মান্যতা দেওয়া হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই। বাড়তে পারে খ্যালঘুদের প্রতিনিধিত্ব। প্রয়াস থাকবে আঞ্চলিক ভারসাম্য বজায় রাখারও। উত্তর ২৪ পরগনার এক যুব নেতার পাশাপাশি মালদা ও মুর্শিদাবাদ থেকে নির্বাচিত তিন-চারজন বিধায়ককে মন্ত্রিসভায় দেখা যেতে পারে। চণ্ডীপুরের তারকা-বিধায়ক সোহম চক্রবর্তীর মন্ত্রিসভায় আসা নিয়েও চলছে জোর জল্পনা।  পাশাপাশি মমতার তৃতীয় মন্বাত্দরিসভা থেকে পড়তে পারেন একাধিক পুরনো মন্ত্রীও।

Tags:
mamata's third cabinet