Lakshmi Vandar: লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের বিপুল খরচ কী ভাবে চলবে!ভাবছে নবান্ন

কলকাতাঃ রাজ্যে ইতিমধ্যে লক্ষীর ভান্ডারের আবেদন চলছে। বহু মানুষ কিন্তু আবেদন ও করেছে। যদিও সেপ্টেম্বর থেকে এই ছ’মাসে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে প্রদেয় অর্থ সংগ্রহে বেগ পেতে হবে না, বুঝেছে রাজ্য সরকার। কিন্তু পরের অর্থবর্ষ থেকে ওই প্রকল্পের বিপুল খরচ কী ভাবে চলবে, তা নিয়ে এখন থেকেই প্রশাসনিক স্তরে ভাবনাচিন্তা শুরু হয়েছে বলে নবান্ন সূত্রের খবর। এদিকে গত বাজেটে সরকার জানিয়েছিল, লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য অর্থের সংস্থান করাই আছে। রাজস্ব আদায় বা কেন্দ্রীয় করের ভাগ কাঙ্ক্ষিত হারে না-এলে অর্থের বিকল্প উৎসের সন্ধান করতে হতে পারে বলে মনে করছেন অভিজ্ঞ আধিকারিকদের অনেকে।

এই প্রকল্পে মূলত সাধারণ শ্রেণীভুক্ত গৃহবধূরা পাবেন মাসে ৫০০টাকা। এছাড়া তফসিলি মহিলারা পাবেন ১০০০ টাকা। চলতি আর্থিক বছরের বাজেটের পরে সরকার জানিয়েছিল, লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে ১০ হাজার কোটি টাকা ধরা আছে। প্রশাসনের অন্দরের সাম্প্রতিক খবর, সেই অর্থের পরিমাণ বাড়িয়ে ১৭ হাজার কোটি টাকা ধরে রাখা হচ্ছে। অর্থ দফতরের এক কর্তা বলেন, ‘‘বাজেটে লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা এই অর্থবর্ষে সমস্যা হওয়ার কথা নয়। রাজস্ব সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হলে বা তার কাছাকাছি থাকলে এবং কেন্দ্রীয় করের বরাদ্দ ঠিকমতো পেলে, পরেও তেমন সমস্যা হবে না।

তবে এগুলি কাঙ্ক্ষিত হারে না-পেলে কী ভাবে ঘাটতি মেটানো যায়, তা ভেবে দেখতে হবে।” অর্থ দফতরের অন্য এক কর্তার বক্তব্য, সব ক্ষেত্রকে সমান গুরুত্ব দিয়েই অর্থনীতি পরিচালনার লক্ষ্য রয়েছে। বড় প্রেক্ষাপটে ভাবনাচিন্তা শুরু করার পরিস্থিতি এখনও আসেনি।তবে কি পরের বছর এই লক্ষীর ভান্ডারের টাকা আদৌ পাওয়া যাবে, প্রশ্ন একটাই।

Tags:
Lakshmi Vandar
wb