গন্ধ শুঁকেই করোনা রোগী শনাক্ত!

গন্ধ শুঁকেই করোনা রোগী শনাক্ত!

ওরা স্রেফ গন্ধ শুঁকেই বলে দিতে পারে কে করোনা পজিটিভ। এপর্যন্ত ৩,৮০০ নমুনা পরীক্ষা ওরা। তারমধ্যে ২২ জনের করোনা সংক্রমণ হয়েছে। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই তারা বলে দেবে সংক্রমিত কারা।
এরা সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষিত কুকুর। ২ বছরের ককার স্পেনিয়েল ক্যাস্পার, একবছরের ভারতীয় চিপ্পিপরাই হান্টিং হাউন্ড জয়া। ওরা পরীক্ষার জন্য বাক্সে রাখা যে কারও মূত্রের গন্ধ শুঁকেই করোনা চিহ্নিত করতে পারে। করোনা রয়েছে বোঝার পরই তারা বাক্সের কাছে বসে পড়ে। সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষক সেই ইঙ্গিত বুঝে নেন। মূত্র ও ঘামের গন্ধের মাধ্যমে করোনা রোগী চেনার ট্রেনিং দেওয়া হয়েছে তাদের। তাদের সঙ্গে এখন ট্রেনিং দেওয়া হচ্ছে হাউন্ড মনিকে।
গত সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সেনাবাহিনীতে প্রায় ১৬ হাজার কর্মী করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। আরটি-পিসিটিআর পরীক্ষার আগে যাতে পজিটিভ নমুনা আলাদা রাখা সম্ভব হয়, তার জন্য কুকুরদের নিয়োগ করা হয়েছে। তারা রয়েছে ,েনার চণ্ডীগড়ের ট্রানজিট ক্যাম্পে।
একইসঙ্গে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে আরও আটটি কুকুরকেও। তাদের প্রশিক্ষিত হতে সময় লাগে ৩৬ সপ্তাহ। কিন্তু ১৬ সপ্তাহের মধ্যেই প্রশিক্ষিত হয়ে গিয়েছে ক্যাস্পার আর জয়া। শুধু ভারতেই নয়, ব্রিটেন, ফিনল্যান্ড, রাশিয়া, জার্মানি, আরব, ফ্রান্সেও কুকুরদের এই কাজে ট্রেনিং দেওয়া হচ্ছে। তাদের লাগানো হচ্ছে বিমানবন্দর, রেলস্টেশনে। ভারতে এই প্রথম। এর আগে ক্যান্সার, ম্যালেরিয়া, পারকিনসন্স, ডায়াবিটিসের মতো রোগ খোঁজার কাজেও লাগানো হয়েছে কুকুরকে। এই কুকুরদের শুধুমাত্র এই কাজেই ব্যবহার করা হয়।

Tags:
trained dogs