চন্দননগরে গঙ্গাবক্ষেই ভাসমান রেস্তরাঁ ‘জলশ্রী’

ফরাসি উপনিবেশের বহু নিদর্শন আজও রয়েছে এখানে। হুগলি জেলার বর্ধিষ্ণু শহর চন্দননগর। পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন উন্নয়ন নিগমের উদ্যোগে এখানেই তৈরি হয়েছে একটি অন্যরকমের রেস্তরাঁ। যার নাম ‘জলশ্রী’ দ্যা রিভার হ্যাবিট্যাট। ৮ ফেব্রুয়ারি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উদ্বোধন করেছেন এই ভাসমান রেস্তরাঁটির। একটি লঞ্চকেই নতুন রূপে সাজিয়ে একটি রেস্তরাঁর আদল দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন উন্নয়ন নিগম। যেটি রাখা হয়েছে চন্দননগরের স্ট্যান্ড ঘাটের কাছে।


এমনিতেই চন্দননগরের এই এলাকাটি বেশ জনপ্রিয়। এখানে সাড়া দিনই নানা বয়েসের মানুষ আসেন অবসরে। ফলে এই ঘাটের আশেপাশেই রয়েছে নানান খাবারের দোকান। তাই এই জায়গাটিকেই বেছে নেওয়া হয়েছে ভাসমান রেস্তরাঁ চালু করার জন্য। হালকা খাবারের নানান আইটেম রাখা হচ্ছে সরকারি ভাসমান রেস্তরাঁ ‘জলশ্রী’তে।


ফরাসি উপনিবেশের কথা মাথায় রেখে এখানে রাখা হয়েছে নানা ফরাসি খাবারের সম্ভার। বিভিন্ন ধরনের স্যালাড থেকে ডেজার্ট। তাই গরম কফি বা চায়ে চুমুক দিতে দিতে নানান লোভনীয় খাবারের স্বাদ নিতে এবং গঙ্গার নির্মল বাতাস গায়ে মেখে এই রেস্তরাঁয় যেতে মন চাইবেই। ফলে চালু হওয়ার পরই হিট এই ভাসমান রেস্তরাঁ। শুধু চন্দননগর নয়, আশেপাশের এলাকার মানুষ এবং গঙ্গার অপর পাড়ের ভোজনরসিক মানুষ আসছেন এখানে। বিশেষ করে সন্ধ্যার পর আলোর মালায় সাজানো গঙ্গার বুকে ভাসমান রেস্তরাঁ ‘জলশ্রী’ জেন ওয়াইয়ের কাছে হট ডেস্টিনেশন।

Tags:
jalashree

এই সংক্রান্ত আরও খবর পড়ুন :

অপরূপ মুরুদেশ্বরের কৈলাশপতি মহাদেব এবং স্কুবা ডাইভিং
পাখির স্বর্গরাজ্য কমলালেবুর গ্রাম সিটং-মংপু
নির্জনতা চান? ঘরের কাছেই ‘ওড়িশার কাশ্মীর’ দারিংবাড়ি
এবার দিঘায় টয়ট্রেন, যাওয়া যাবে উদয়পুর পর্যন্ত
চন্দননগরে গঙ্গাবক্ষেই ভাসমান রেস্তরাঁ ‘জলশ্রী’
রাজস্থানের কুম্ভলগড় দুর্গ এবং বিশ্বের দ্বিতীয় দীর্ঘতম প্রাচীর
মন্দিরনগরী কালনা, একদিনেই ঘোরা যায় টেরাকোটার সাম্রাজ্য
নির্জনতাকে সঙ্গী করে মনের মানুষকে নিয়ে ঘুরে আসুন আদিম আন্দামানে (দ্বিতীয় পর্ব)
নির্জনতাকে সঙ্গী করে মনের মানুষকে নিয়ে ঘুরে আসুন আদিম আন্দামানে (প্রথম পর্ব)
একদিনে হরিপাল, ঐতিহ্য এবং বাংলার রাবড়ি