স্পিনিং ট্র্যাকেই জেতা-হারা

ভারতের ৩২৯ রানের উত্তরে ইংল্যান্ড গুটিয়ে গেলো মাত্র ১৩৪ রানে। দেড় দিনের একটু বেশি সময়ে পড়ল ২০টি উইকেট। এর মধ্যে রোহিত শর্মা, অজিঙ্কা রাহানে এবং ঋষভ পন্থ ছাড়া রানই পেলেন না ব্যাটে। দুদলের বিশ্বমানের ব্যাটসম্যানরা লাট্টুর মতো ঘূর্ণি বলে বোকা বনলেন প্রথম দিন থেকেই। এই পিচের কারণ কী, প্রশ্ন থাকতে পারে অনেকেরই মধ্যে। ক্রিকেটীয় ভাষায় এই ধরণের উইকেট বা পিচকে বলা হয় আন্ডার প্রিপেয়ার্ড উইকেট। শোনা যায় এই ধরণের পিচের শ্রষ্ট্রা  প্রয়াত প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক মানসুর আলি খান পাতৌদি। 

কিন্তু পাতৌদির আমলেও এত ভয়ঙ্কর হয়নি, যা শেষ দুই টেস্টে হয়েছে। করোনার জেরে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজের খেলা চলছে একই স্টেডিয়ামে। জৈব সুরক্ষা বলয়ের জন্যই এই ব্যবস্থা। তাই চেন্নাইয়ের চিপক স্টেডিয়ামের উইকেট নিয়ে কৌতুহলি ছিলেন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা। আদতে দেখা গেল, চিরাচরিত স্পিনিং ট্র্যাকই করা হয়েছে চিপকে। কিন্তু, সেটাও আন্ডার প্রিপেয়ার্ড পিচ। প্রথম টেস্টে ইংরেজ স্পিনারদের দাপটে থরহরি কম্প ধরেছিল ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের, ম্যাচ হারে ভারত। দ্বিতীয় টেস্টেও ভারতের প্রথম ইনিংসে ইংরেজ স্পিনার মইন আলি নিলেন চার উইকেট। আর ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংসে ভারতের হয়ে পাঁচ উইকেট তুলে নিলেন রবিচন্দ্র অশ্বিন। খেলার এখনও তিনদিন বাকি, ফলে ঘূর্ণি পিচে এখনও বেসামাল হতে হবে ব্যাটসম্যানদের। খেলা হবে…

Tags:
Indian Pitch