পরকীয়ার শাস্তি, প্রেমিক যুগলকে খুঁটিতে বেঁধে গণধোলাই দিল জনতা!

পরকীয়ার শাস্তি হল দাসপুরের গণআদালতে। পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুরের পাঁচবেড়িয়া করুণা চক গ্রামে এক প্রেমিক যুগলকে প্রকাশ্যে খুঁটিতে বেঁধে গণধোলাই দিল গ্রামবাসীরা। যার ভিডিও ভাইরাল হতেই তুমুল বিতর্ক শুরু হয়েছে রাজ্যজুড়ে। মঙ্গলবার বিকেলে এই ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যাচ্ছে, এক গৃহবধূ পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছিলেন স্থানীয় এক যুবকের সঙ্গে। স্বামীর অবর্তমানে তাঁরা একসঙ্গে থাকতেন। মঙ্গলবার তাদের হাতেনাতে ধরে ফেলেন প্রতিবেশীরা। এরপরই ওই প্রেমিক যুগলকে বেঁধে মারধোর করার অভিযোগ উঠছে। খবর পেয়ে দাসপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।


ওই গৃহবধূর স্বামী কর্মসূত্রে বাইরে থাকেন। দাসপুরের পাঁচবেড়িয়া করুণা চক গ্রামে তাঁদের মাটির বাড়ি। তবে গ্রামের অপর প্রান্তে তাঁদের পাকা বাড়ি তৈরি হয়েছে। শাশুড়ি পুরোনো বাড়িতে থাকলেও বৌমা নতুন বাড়িতেই থাকছিলেন। সেই সুযোগে স্থানীয় এক যুবকের সঙ্গে পরকীয়ায় মেতেছিলেন বলেই অভিযোগ। মঙ্গলবার বিকেলে ওই গৃহবধূকে ডাকতে যান সম্পর্কিত এক কাকিমা। তিনিই দুজনকে একসঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন। এরপরই তিনি বাইরে থেকে দরজায় শিকল টেনে প্রতিবেশীদের ডেকে আনেন। গ্রামবাসীরা দুজনকে কোমরে দড়ি দিয়ে একটি খুঁটির সঙ্গে বেঁধে ব্যাপক মারধোর শুরু করে।


এরপরই খবর যায় দাসপুর থানায়। পুলিশ এসে দুজনকে উদ্ধার করে। স্থানীয় সূত্রে খবর, ভিনরাজ্যে থাকা স্বামী নিজের স্ত্রীর পরকীয়া সম্পর্কের কথা জানতে পেরে জানিয়েছেন, যে ওই যুবকের সঙ্গেই স্ত্রীর বিয়ে দিয়ে দেওয়ার জন্য। যদিও আপাতত ওই বধূর বাপের বাড়ির লোকজন এসে তাঁকে নিয়ে যান। ঘটনার তদন্ত শুরু করলেও দাসপুর থানা গণধোলাইয়ের ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

Tags:
couple thrashed