ফাইল চিত্র

Indo-China: ভেস্তে গেল ভারত-চীন সামরিক আলোচনা

লাদাখে ভারত ও চীনা সেনাবাহিনীর কমান্ডারদের মধ্যকার সর্বশেষ আলোচনা ভেস্তে গিয়েছে। সীমান্তে উত্তেজনা রেখেই রবিবার, ১০ অক্টোবর ১৩ তম সামরিক বৈঠকে বসেছিল ভারত -চীন। এর আগে ১২ তম সামরিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল চীনা ভূখণ্ডে মালডোতে। প্রায় ১১ ঘণ্টা ধরে চলা সেই বৈঠকের নির্যাস খুব একটা ফলপ্রসূ হয়নি।

এবার বৈঠক শেষে এক বিবৃতিতে ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অবশিষ্ট এলাকার সমস্যা সমাধানে গঠনমূলক পরামর্শ দিয়েছিল ভারত। কিন্তু চীনা পক্ষ সম্মত হয়নি এবং তারা কোনও প্রস্তাব দিতে পারেনি। ফলে অবশিষ্ট এলাকা নিয়ে কোনও সমাধানে পৌঁছানো যায়নি।

পৃথক বিবৃতিতে চীনা সামরিক বাহিনীর ওয়েস্টার্ন থিয়েটার কমান্ড বলছে, ভারত অযৌক্তিক এবং অবাস্তব দাবির ওপর জোর দিয়েছে। যা সমঝোতার ক্ষেত্রে অসুবিধার সৃষ্টি করছে।

এর আগেও একাধিকবার ভারত -চীন বৈঠক হলেও সে বৈঠক খুব একটা ফলপ্রসূ হয়নি। একাধিকবার বৈঠকের পরেও দেখা গেছে চীন-ভারত সীমান্তে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছে। ২০১৭ সালের মে মাসে গলওয়ান প্রদেশ দিয়ে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছি তার পরেই উত্তরাখণ্ডের বারাহতি দিয়ে ১০০ জন চীনা ঘোড়সওয়ার সৈনিক ভারতের অংশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করে । পাশাপাশি একটা অস্থায়ী ব্রিজ উড়িয়ে দেয় তারা। 

সম্প্রতি অরুণাচল প্রদেশ তাওয়াং দিয়ে ২০০ জন সেনা ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢোকার চেষ্টা করে। সীমান্তরক্ষী বাহিনীর তৎপরতায় অনুপ্রবেশের সেই প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। গত বছরই বেগম লেকের পাশে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত আর চীন সেনা। দুই পক্ষের মধ্যে লোহার রড কার্ড দিয়ে সংঘর্ষে প্রাণ হারায় ভারতীয় ২০ জন সেনা পাশাপাশি বেশ কিছু সংখ্যক চিনা সেনার মৃত্যু ঘটে সংঘর্ষে। 

গত শনিবার চিনা অধিকৃত আকসাই চীন এলাকায় সীমান্ত সংলগ্ন অঞ্চলে ১০ হাজার লাল ফৌজ মোতায়েন করেছে চীনা সরকার। সেইসঙ্গে মাঝারি মাপের ক্ষেপণাস্ত্র। মাঝারি মাপের কামানো সঙ্গে করে নিয়ে অবস্থান করছে লাল ফৌজ। যার পাল্টা ভারত সীমান্তে ও সৈন্য সংখ্যা বাড়াচ্ছে ভারত সরকার। 

৩৪৪০ কিলোমিটার জুড়ে লাইন অব একচুয়াল কন্ট্রোলকে ঘিরেই সমস্যা। 


Tags:
Indo-China
Meeting