সেলুন কারে প্যাকেজ ভ্রমণ, রেলের আকর্ষণীয় উদ্যোগ

এবার বিলাসবহুল প্যাকেজ ট্যুর চালু করতে চলেছে রেলমন্ত্রক। রেলেরই শাখা সংস্থা আইআরসিটিসি (IRCTC) এবার থেকে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ রুটে বিলাসবহুল সেলুন কারে ভ্রমণের সুযোগ করে দেবে। যারা বিদেশে রাজকীয় ভ্রমণে আগ্রহী, তাদের টার্গেট করেই রেলের এই চিন্তাভাবনা। কারণ করোনা অতিমারির জেরে এখনও কেউ বিদেশে যেতে পারছেন না। তাঁদের ভারতেই আকর্ষণীয় প্যাকেজ ট্যুরের ব্যবস্থা করছে আইআরসিটিসি। কিরকম প্যাকেজ দেবে আইআরসিটিসি? জানা যাচ্ছে, এতদিন ফুল ট্যারিফ প্ল্যানে পুরো সেলুন কার একটি পরিবার ভাড়া করতে পারতেন। তাতে খরচও পড়ছিল আকাশছোঁয়া। ফলে খুব কম ক্ষেত্রেই সেলুন কার বুকিং হচ্ছিল। এবার সেলুন কার ভাড়া দেওয়ার ভাবনায় পরিবর্তন এনেছে আইআরসিটিসি। এবার পর্যটকদের ছোট ছোট দল এই সেলুন কার বুক করতে পারবেন। এতে খরচের বোঝা কমবে পর্যটকদের, আবার রেলের ভাড়ারেও লক্ষী ঢুকবে। আইআরসিটিসি কর্তাদের কথায়, সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত পরিবেশে, ভিড় এড়িয়ে রেলে ভ্রমণের আনন্দ দিতে সেলুন কার কেন্দ্রিক প্যাকেজ ট্যুরের ভাবনা। অর্থাৎ, যারা বুক করবেন, তাঁরা একদিকে যেমন ট্রেনে ভ্রমণের মজা উপভোগ করবেন, অন্যদিকে সম্পূর্ণ সুরক্ষিত হবে যাত্রা। জানা যাচ্ছে, দুই কামরা বিশিষ্ট একেকটি বাতানুকূল সেলুন কারের ভিতর থাকবে আলাদা স্বয়ংকক্ষ। ডাইনিং টেবিল ও বাথরুম। যাত্রীদের খাবার পরিবেশন সহ অন্যান্য সুবিধা দিতে একজন পরিচারক থাকবে সর্বক্ষণ। এছাড়া ওয়াইফাই ও টিভিও রাখা হবে সেলুন কারে। ফলে রেলভ্রমণে বিনোদনও বাড়তি পাওনা হয়ে থাকবে। 


রেল কর্তাদের বক্তব্য, রাজকীয় এই সেলুন কার, যেন চলন্ত পাঁচতারা হোটেল। এছাড়া কামরা গুলিতে তিনদিকে দেখা যায় এমন ঝকঝকে কাঁচের জানলা বসাচ্ছে রেল। যাতে যাত্রাপথের সৌন্দর্য পুরোদমে উপভোগ করতে পারেন পর্যটকরা। বিশেষত, পাহাড়ি ও জঙ্গলের রাস্তায় ধীর গতির কোনও ট্রেনের পিছনে সেলুন কার জুড়ে দেওয়ার চিন্তাভাবনা চলছে। এতে বেশি সময় ধরে যাতে যাত্রাপথের সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারেন যাত্রীরা। জানা যাচ্ছে, উত্তরবঙ্গের ডুয়ার্সের রেলপথ, হাওড়া-পুরী, হাওড়া-টাটা-মুরী রুটে সেলুন কার পরিষেবা দেওয়া হতে পারে। সম্প্রতি ২৪ কোচের ট্রেনের পিছনেও সেলুন কার জুড়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে ছাড়পত্র দিচ্ছে রেল। কারণ, শেষ কামরাটি প্ল্যাটফর্মের বাইরে থাকলেও কোনও অসুবিধা নেই। কারণ, এই সেলুন কারের যাত্রীরা যেকোনও স্টেশনে নামতে পারবেন না। সেলুন কারে প্যাকেজ ট্যুরের যাত্রীদের গন্তব্য স্টেশনে নামিয়ে সেলুন কারটি রাখা থাকবে পার্শ্ববর্তী সাইডিংয়ে। এরপর পর্যটকদের আশেপাশের দর্শনীয় স্থান দেখিয়ে ফের সেলুন কারেই ফিরিয়ে আনা হবে। পুরো পরিকল্পনাকে রেলকর্তারা বলছেন 'হোম অন হুইলস'। ভাড়ার ক্ষেত্রেও কিছুটা ছাড় দেবে রেল। করোনা অতিমারির কথা মাথায় রেখেই আনুষঙ্গিক খরচে ছাড় দিয়ে মূল ভাড়া একই রাখা হবে।  আইআরসিটিসি কর্তাদের আশা অচিরেই জনপ্রিয় হবে রেলের এই রাজকীয় ভ্রমণ। এক দেড় মাসের মধ্যেই কয়েকটি রুটে সেলুন কার বুক করতে পারবেন ইচ্ছুক পর্যটকরা।

Tags:
Selun Car