লকডাউনের ম্যাজিক! কয়েকশো কিমি দূর থেকেই দেখা গেল শ্বেতশুভ্র হিমালয়ের চূড়া

উত্তরপ্রদেশের শাহারানপুর থেকে হিমালয়ের বায়বীয় দূরত্ব (Aerial Distance) কমবেশি ২০০ কিলোমিটারের বেশি। সড়কপথে প্রকৃত দূরত্ব আরও বেশি। কিন্তু ভোরের আকাশে আচমকাই ধরা দিল সারি সারি হিমালয়ে শ্বেতশুভ্র চূড়া। ঝকমকে আকাশের মাথায় যেন রুপোলি মুকুট। ভোর বেলা ঘুম থেকে উঠেই সাহারানপুরবাসী বারে বারে চোখ কচলালেন, নাহ সত্যিই দেখা যাচ্ছে হিমালয়ের একের পর এক বরফে ঢাকা শৃঙ্ঘ। অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি, করোনার প্রথম ধাক্কার মতোই এই দ্বিতীয় ধাক্কায় উত্তরপ্রদেশে বিগত প্রায় একমাস যাবৎ চলছে লকডাউন। ফলে বন্ধ সমস্ত অফিস-কাছারি, দোকানপাট, বাজার হাট, গণপরিবহণ। আর তাতেই কমেছে বায়ু দূষণের মাত্রা (Air Quality Index বা AQI)। কার্যক দূষিত শহর শাহারানপুরে দূষণের মাত্রা কমে এসেছে ৫০-এর নীচে। ফলে কয়েকশো কিলোমিটার দূরের হিমালয়ের বরফে ঢাকা শৃঙ্ঘও পরিস্কার দেখা যাচ্ছে শাহারানপুর থেকে।


এই শহরের বেশ কয়েকজন বাসিন্দা সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন সেই বিরল দৃশ্য। শাহারানপুরে কর্তব্যরত চিকিৎসক বিবেক বন্দ্যোপাধ্যায় কয়েকটি ছবি তুলে তুলে সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন। ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিসের শীর্ষ কর্তা রমেশ পাণ্ডে ওই ছবিই টুইট করেন। তিনি লেখেন, ‘সত্যিই বিরল দৃশ্য। টানা দু’দিন বৃষ্টির পর মেঘমুক্ত পরিষ্কার আকাশে সাহরণপুরের উত্তর দিক থেকে হিমালয়ের চূড়া দেখা যাচ্ছে। আজ থেকে ৩০-৪০ বছর আগে এ দৃশ্য দেখা যেত। এখন আবার দূষণ কমতে হিমালয়ের চূড়া উজ্জ্বল হয়ে উঠল’। তাঁর টুইটটি রীতিমতো ভাইরাল হয়েছে। আরও অনেকেই অবশ্য হিমালয়ের অপরূপ দৃশ্যের ছবি ও ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করে নিজেদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। কেউ কেউ লিখেছেন, করোনার জেরে কোথাও ঘুরতে যাওয়ার উপায় নেই। তাই ঘরে বসেই যদি এভাবে হিমালয় দর্শন হয় তবে তো সোনায় সোহাগা। প্রসঙ্গত, করোনার প্রথম পর্বেও এভাবে বহু জায়গা থেকে কয়েকশো কিলোমিটার দূরের হিমালয়ের সুউচ্চ চূড়া দেখা গিয়েছিল।  

Tags:
Saharanpur
uttar pradesh
himalayas
AQI
lockdown