FATF-এর ধুসর তালিকাতেই থাকল পাকিস্তান

FATF-এর (Financial Action Task Force) ধুসর তালিকা থেকে বের হতেই পারলো না পাকিস্তান। একদিকে দেশের আভ্যন্তরীন সমস্যা এবং বিরোধীদের লাগাতার চাপে ব্যাতিব্যস্ত পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এর ওপর আবার সন্ত্রাসবাদে আর্থিক মদত দেওয়ার জন্য FATF-এর ধুসর তালিকাতেই থাকল পাকিস্তান। সবমিলিয়ে সময়টা একেবারেই ভালো যাচ্ছে না পাক প্রধানমন্ত্রীর। আন্তর্জাতিক এই সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, সন্ত্রাসে আর্থিক মদত বন্ধ করতে যে যে পদক্ষেপ গ্রহনের কথা বলা হয়েছিল পাকিস্তানকে, তা করতে পারেনি তাঁরা। তাই এখনও ধুসর তালিকাতেই রাখা হচ্ছে পাকিস্তানকে। এরপর ফের আগামী জুনে ফের তাঁদের অবস্থান পর্যালোচনা করা হবে। প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের জুন মাস থেকে ধুসর তালিকাতেই রয়েছে পাকিস্তান। ফলে প্রায় তিন বছর ধরে ইমরান খানের দেশ আন্তর্জাতিক সাহায্য থেকে বঞ্চিত।


উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে প্যারিসের এই আন্তর্জাতিক সংস্থা পাকিস্তানকে চুরান্ত নির্দেশিকা দিয়েছিল যেন তাঁরা সন্ত্রাসবাদে মদত দেওয়া থেকে বিরত থাকে। এবং সন্ত্রাসে আর্থিক মদত দেওয়া বন্ধ করা এবং আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ থেকে মুক্ত হতে কিছু অ্যাকশন প্ল্যান দেয়। এরজন্য একটা ডেডলাইনও দেওয়া হয় ইমরান খানের সরকারকে। পরে করোনা অতিমারীর জন্য সেই ডেডলাইন কিছুটা বাড়িয়েও দেয় FAFT সংস্থা। কিন্তু তারপর থেকে একের পর এক বৈঠকের পরও পাকিস্তান ওই অ্যাকশন প্ল্যান অনুযায়ী কাজ করতে পারেনি। যদিও গত বছর নভেম্বরে পাক সরকার একটি তালিকা প্রকাশ করে মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গিদের নাম প্রকাশ করেছিল। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে দেখা যায়, ২৭টি অ্যাকশনের মধ্যে তিনটি এখনও পূরণ করতে পারেনি পাকিস্তান। ফলে আগামী জুনে ফের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে হলে FAFT জানিয়ে দিয়েছে।

Tags:
pakistan