ব্রেকিং নিউজ
Why-8-years-old-Gulshan-waiting-with-his-brothers-body-on-the-side-of-the-road
Bhopal: ভাইয়ের মৃতদেহ আগলে রাস্তার ধারে কার অপেক্ষায় ৮ বছরের গুলশন?

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-07-10 21:00:55


রাস্তার ধারে দেওয়ালে হেলান দিয়ে বসে একটি শিশু। চোখেমুখে শুষ্কতার ছাপ। ভালো করে লক্ষ্য করলে দেখা যাবে, দু চোখ দিয়ে ঝরছে অশ্রুধারা। কোলের দিকে তাকাতেই সেই দৃশ্য চমকে ওঠার মতো। সাদা কাপড়ে ঢাকা একটি ছোট্ট দেহ। মধ্যপ্রদেশের মোরিনা শহরের একটি অপরিচ্ছন্ন রাস্তার ধারের এই ঘটনারই ছবি ক্যামেরাবন্দি করেন এক সাংবাদিক। 

কিন্তু কে এই শিশুটি? সাদা কাপড়ে ঢাকা দেহটিই বা কার ? পরে খোঁজখবর নিয়ে যা জানা গেল, তা হল এইরকম। পুজারাম হল এদের বাবা। ছেলেটির নাম গুলশন, বয়স ৮ বছর। আর সাদা কাপড়ে ঢাকা দেহটি তারই ভাই রাজার, যার বয়স মাত্র ২ বছর।

পুজারাম তাঁর ২ বছরের ছেলেকে নিয়ে এসেছিলেন মোরিনা জেলা হাসপাতালে চিকিত্সার জন্য। জায়গাটি ভূপাল থেকে ৪৫০ কিলোমিটার দূরে। গ্রামের হাসপাতাল থেকে রেফার করায় তাকে অ্যাম্বুল্যান্সে করেই নিয়ে এসেছিলেন ওই জেলা হাসপাতালে। কিন্তু ভাগ্য খারাপ। অ্যানিমিয়া, পেটের সমস্যা সহ নানা জটিল রোগ থেকে ছেলেকে আর ফিরিয়ে আনতে পারেননি। চিকিত্সা চলাকালীনই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে ২ বছরের রাজা।

কিন্তু এবার বাড়ি ফিরবেন কী করে? অ্যাম্বুল্যান্স তো তাঁদের নামিয়ে দিয়ে চলে গিয়েছে। অথচ তাঁর গ্রাম এখান থেকে নয় নয় করে ৩০ কিলোমিটার দূরে। অগত্যা হাসপাতালের জাক্তার, কর্মীদের কার্যত হাতে-পায়ে ধরলেন। কিন্তু সবাই জানিয়ে দিল, হাসপাতালের কোনও অ্যাম্বুল্যান্সই নেই। হাসপাতালেই দাঁড়িয়ে থাকা একটি বেসরকারি অ্যাম্বুল্যান্স চেয়ে বসল দেড় হাজার টাকা। কিন্তু সেই টাকা দেওয়ার সাধ্য গরিব বাবার নেই। তাই তিনি বেরিয়েছেন, কোনওভাবে যদি একটা গাড়ি জোগাড় করা যায়। আর কোলে মৃত ভাইকে নিয়ে জলভরা চোখে বাবার আসার অপেক্ষায় ৮ বছরের শিশুটি।

এদিকে এই দৃশ্য দেখে ধীরে ধীরে লোক জমা শুরু হয়ে গেল। খবর পেয়ে হাজির হলেন এক পুলিস অফিসারও। তিনিই তাদের নিয়ে গেলেন জেলা হাসপাতালে। অবশেষে একটা অ্যাম্বুল্যান্সের ব্যবস্থা হল।

কিন্তু এই দৃশ্য নাড়িয়ে দিয়ে গেল শত শত হৃদয়কে।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন