ব্রেকিং নিউজ
  Weather update: আজ থেকে টানা তিনদিন ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা কলকাতা সহ পার্শ্ববর্তী এলাকায়     Baguiati: অর্জুনপুরে দুষ্কৃতীদের তাণ্ডব, তৃণমূল যুব সভাপতিকে প্রাণে মারার হুমকি     Rabindra Sarobar: রোয়িং করতে গিয়ে দুই ছাত্রের মৃত্যুর পর বন্ধ ক্লাব, উঠছে নানা প্রশ্ন     Taliban Order: মুখ ঢেকে খবর পড়ার নির্দেশকে তোয়াক্কা না করেই সংবাদ পড়ছেন আফগানি মহিলারা     Uttar Pradesh: উত্তরপ্রদেশে ভোট মিটতেই কি বাতিল হতে চলেছে শয়ে শয়ে রেশন কার্ড?     Arjun Singh: 'সেখানে নৌকা নিয়ে যাই চলো, যেখানে তুফান এসেছে', অর্জুনের নয়া ট্যুইটে জল্পনা     Corona Update: ঊর্ধ্বমুখী মৃত্যুগ্রাফ, কিছুটা নিম্নমুখী সংক্রমণ     Monkeypox: ছড়াচ্ছে মাঙ্কি পক্স, আক্রান্তের সংখ্যা বাড়বে, সতর্ক করল 'হু'     Climate: উষ্ণায়নে পাল্টাচ্ছে সমুদ্রের প্রকৃতি, সঙ্কটে সামুদ্রিক প্রাণীদের অস্তিত্ব  
The-father-became-a-vegetable-seller-and-the-girl-became-a-judge
Indore: বাবা সবজি বিক্রেতা, বিচারক হয়ে দেখালেন মেয়ে


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-05-12 15:59:08


লু জড়ানো কঠিন দাবদাহ মাখা আবহাওয়া হোক কিংবা আকাশভাঙা বৃষ্টি। গোটা বছর খোলা রাস্তার নিচে সবজি বেচেই (Vegetable Selling) সংসারের হাল ধরে রেখেছেন বাবা। কঠিন কাজ। যখন শরীর খারাপে মন চাইত বিছানাজুড়ে একটু আরামের, না, উপায় ছিল না। ছেলেমেয়েগুলো ছোট ছোট। তাদের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করে দিতে হবে যে। নিজে এই কষ্ট ভোগ করছেন, সন্তানরা কি পারবে? মাথার মধ্যে এই দোলাচলটা পাক খেত সব সময়।

দিন থেকে রাত পরিশ্রম করে গিয়েছেন। সবজি বেচে সংসার চালিয়েছেন। বড় ছেলে পড়াশোনা ছেড়েছে অনেক আগেই। এখন শ্রমিকের কাজ করে। ছোট মেয়েরও বিয়ে হয়েছে অনেক আগে। তবে মেজ মেয়ে দৃষ্টান্ত তৈরি করে দেখিয়েছেন। তিনি এখন আদালতের বিচারক (Judge)।


এমনই অসাধ্য সাধন করে দেখিয়েছেন ইন্দোরের মুসাখেদি এলাকার বাসিন্দা, বছর ২৫-এর অঙ্কিতা নাগর। আর্থিক অপ্রতুলতার কারণে যেখানে দেশের বহু মেয়ে পড়াশোনা ছেড়ে দেন, যাঁদের কাছে পড়াশোনার স্বপ্ন দেখাই বিলাসিতা, সেখানে আর্থিক কষ্ট কোনও বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি অঙ্কিতার কাছে। এক নাগাড়ে চালিয়ে গিয়েছেন তাঁর লড়াই। আর সেই কারণেই বছর ২৫-এর অঙ্কিতা এখন আদালতের বিচারক। সিভিল জজ কঠিন প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় পাশ করেছেন ইন্দোরের অঙ্কিতা।

অঙ্কিতা জানালেন, তাঁদের আর্থিক সঙ্গতি (Financial Condition) কম হতে পারে। পরিবারে তিনিই একমাত্র উচ্চশিক্ষার (Higher Education) পথে পা বাড়িয়েছেন। কিন্তু কখনও পরিবারের সমর্থনের অভাব বোধ করেননি। তাঁর পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ, অধ্যাবসায় দেখে সবসময়ই তাঁর পাশে থেকেছেন বাড়ির সকলে। প্রতিদিন ১০ ঘণ্টা রুটিন মেনে পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন তিনি।

জানা গিয়েছে, এসসি কোটার মেধাতালিকায় তিনি পঞ্চম হয়েছেন। ফলাফল এক সপ্তাহ আগেই ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু এক আত্মীয়ের মৃত্যুর কারণে রেজাল্ট চেক করাই হয়নি তাঁর। বুধবার শেষমেশ রেজাল্ট খুলে দেখেন। আর তারপরেই পালটে যায় তাঁর জীবন। এখনও অঙ্কিতা তাঁর বাবার সবজির দোকানে মাঝে মাঝেই সাহায্য করেন। আপাতত অঙ্কিতাকে প্রশিক্ষণ নিতে হবে। তারপর মধ্যপ্রদেশে সিভিল জজ (Civil Judge) হিসেবে যোগ দেবেন। মোটা বেতন, গাড়ি, কোয়ার্টার সবই পাবেন তিনি। অঙ্কিতার কৃতিত্বে তাঁর পরিবার ও এলাকাবাসীরা গর্বিত।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন