২৩ জুন, ২০২৪

Murder: স্ত্রীকে খুন করে দেহ পুঁতে রাখার অভিযোগ, দেড় বছর পর স্বামীকে ধরল কেরল পুলিস
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2023-01-13 16:04:37   Share:   

প্রায় দেড় বছর আগে স্ত্রীকে খুন (Murder) করে ঘরের ভিতরে দেহ পুঁতে রাখার অভিযোগ উঠল  কেরলের (Kerala) এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। অবশেষে বৃহস্পতিবার তাঁকে গ্রেফতার (Arrest) করা হয়েছে। নজারক্কল পুলিস অভিযুক্ত সজীবকে এর্নাকুলামের ওই বাড়ি থেকেই গ্রেফতার করেছে।

সজীবের স্ত্রী, রম্যা, ২০২১ সালের অগাস্টে নিখোঁজ হয়েছিলেন। প্রতিবেশী এবং আত্মীয়রা রম্যাকে দেখতে না পেয়ে সজীবকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন তাঁর স্ত্রী কোথায়। তখন তিনি দাবি করেছিলেন, রম্যা অন্য এক জনের সঙ্গে ঘর ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছেন। ৬ মাস পর ২০২২-এ নিজে থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেন। যাতে কারও সন্দেহ না হয়। পুলিসের সন্দেহ হয় সজীবের ওপর। কারণ ৬ মাস পর কেন তিনি থানার দারস্থ হন।

পুলিস এক বছর ধরে সজীবের উপর নজর রাখছিল। স্থানীয়, প্রতিবেশীদের সঙ্গে কথা বলে বিভিন্ন প্রমাণ জোগাড় করছিল। জিজ্ঞাসাবাদের সময় তদন্তকারী দলকে সজীব জানিয়েছেন,  তিনি কিছুই জানেন না। এরপর ঘরে তল্লাশি শুরু করতেই পুলিসের সন্দেহ সঠিক প্রমাণিত হয়। ঘরের মেঝের একটি অংশ উঁচুনিচু দেখতে পান তদন্তকারী কর্মীরা।

মেঝের ওই অংশে আলাদা করে সিমেন্টও করা হয়েছে। আর ওই মেঝে খুঁড়তেই বেড়িয়ে আসে এক মহিলার দেহাংশ। এরপরই পুলিস সজীবকে গ্রেফতার করে। উল্লেখ্য, তাঁকে জেরা করে তদন্তকারীরা জানতে পারেন, ফোনে কথা বলা নিয়ে রম্যার সঙ্গে বচসা হয়েছিল তাঁর। আর সেই রাগেই তাঁকে খুন করে প্রমাণ লোপাটের জন্য দেহ ঘরের মধ্যে পুঁতে দিয়েছিলেন। এমনকি প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, সজীব আর কিছুদিন পরে বিয়ে করবেন বলেও জানিয়েছিলেন। ফলে কেবল বচসার জেরে খুন নাকি এর পিছনে অন্য কোনও গল্প রয়েছে তা তদন্ত করে দেখছে পুলিস।


Follow us on :