মর্গ্যানের একাধিক ভুলেই হার নাইটদের

0

দশমীর দিনই বিজয়ার করুণ সুর বাজল নাইট শিবিরে। আইপিএলে রবিবার কলকাতা নাইট রাইডার্সকে আট উইকেটে হারাল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। এবারের আইপিএল থেকে কার্যত ছিটকেই যাচ্ছিল প্রীতি জিন্টার দল। কিন্তু শেষ পাঁচ ম্যাচে দুর্দান্ত কামব্যাক করল তাঁরা। টানা পাঁচ ম্যাচ জিতে এখন প্লে অফের আশা জিইয়ে রাখল কেএল রাহুলের দল। অপরদিকে পরপর হেরে খাদের অতলে তলিয়ে যাচ্ছে শাহরুখ খানের দল। আপাতত কলকাতা নাইট রাইডার্স লিগ টেবিলের পাঁচে।
এদিন একাধিক ভুল সিদ্ধান্ত নিলেন নাইট ক্যাপ্টেন ইয়ন মর্গ্যান। আর তাঁরই খেসারত দিল নাইট রাইডার্স। শুরুতে ব্যাট করতে নামা নাইটদের প্রথম দুই উইকেট দ্রুত হারানোর পরও কেন মর্গ্যান নিজে না নেমে অফ ফর্মে থাকা দীনেশ কার্তিককে নামালেন সেটাই বোঝা গেল না। মাত্র দুই বল খেলেই মহম্মদ শামীর হাতেই ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়লেন কার্তিক। ফলে ম্যাচ থেকেও ছিটকে যায় কেকেআর। চাপে পড়েও শুভমন গিলকে (৫৭) নিয়ে কিছুটা চেষ্টা করলেন মর্গ্যান। ৮০ রানের পার্টনারশিপ করলেন, কিন্তু বড় রানের টার্গেট দিতে পারলেন না পাঞ্জাবকে।

গত কয়েকটি ম্যাচে ভালো রান করা কামিন্সের আগে নামিয়ে দেওয়া হল নাগারকোটিকে। কেন তার উত্তর নেই। কামিন্স হয়তো স্লগ করে মেরে দ্রুত কিছু রান তুলে পাঞ্জাবকে চাপে ফেলতে পারতেন। মাত্র ১৫০ রানের টার্গেট গেইল, মমনদীপ, রাহুলদের কাছে সামান্যই সেটা সাত বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতে প্রমান দিল পাঞ্জাব। বল হাতে এবার একেবারেই ফর্মে নেই কামিন্স-নারাইনরা। কিন্তু দলের ফর্মে থাকা বোলার লাকি ফার্গুসনকে প্রথম দশ ওভারেও আনলেন না মর্গ্যান। তিনি যখন এলেন তখন উইকেটে সেট হয়ে গেছেন গেইল ও মনদীপ। আবার নাগারকোটিকে বলই দিলেন না মর্গ্যান। মনদীপের (৬৬) সঙ্গে ১০০ রানের পার্টনারশিপ গড়লেন গেইল। ২৯ বলে ৫১ রান করে তিনি যখন আউট হলেন, তত ক্ষণে জয়ের গন্ধ পেয়ে গিয়েছে পঞ্জাব।