ব্রেকিং নিউজ
  (11:17 AM)-ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা গোটা দেশে বেড়ে দাঁড়াল ৮২০৯, সুস্থ ৩১০৯     (11:14 AM)-করোনা রুখতে সকাল ১০টার পর থেকে বন্ধ গ্যালিফ স্ট্রিটের পাখিবাজার     (11:02 AM)-সিঁথি থানা এলাকায় রামলীলা বাগানের একটি বাড়িতে ভোররাতে আগুন লাগল     (08:54 AM)-প্রখ্যাত কত্থক শিল্পী পণ্ডিত বিরজু মহারাজ প্রয়াত     (08:48 AM)-সিরিয়াল দেখার ফাঁকে কসবায় দুঃসাহসিক চুরি     (08:48 AM)-রাজ্যের করোনা আক্রান্ত কমলেও মৃত্যুসংখ্যা উর্ধ্বমুখীই     (08:47 AM)-তাপমাত্রা স্বাভাবিকের নিচে, ফের বঙ্গে শীতের আমেজ  
kolkata-police-facebook-help
kolkata police: পাশে আছি সাধ্যমতো


Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2021-11-13 14:27:00


গত ১০ নভেম্বর সকালের ঘটনা। এক্সাইড মোড়ে ১১টা নাগাদ ডিউটিতে ছিলেন সার্জেন্ট অমল প্রসাদ। এই সময় ওই মোড় দিয়ে যাচ্ছিল ২৩০ রুটের একটি বাস। হঠাৎ বাসের মধ্যে থেকে ভেসে এল এক মহিলার আর্ত চিৎকার। বোঝা গেল, কিছু একটা হয়েছে। ঠিক এই সময়ই দেখা গেল, চলন্ত বাস থেকে দ্রুত নেমে দৌড় লাগিয়েছে এক ব্যক্তি। বাস থেকে মহিলারা চিৎকার করতে থাকেন, মোবাইল নিয়ে পালাচ্ছে। বিষয়টি বুঝতে পেরেই ওই ছিনতাইবাজের পিছুধাওয়া করেন সার্জেন্ট অমল প্রসাদ। 

ওদিকে ছিনতাইকারী ছুটছে লর্ড সিনহা রোডের দিকে। সার্জেন্ট তখনই খবর দেন এজেসি বোস রোড ও লর্ড সিনহা রোডে ডিউটি করা সিভিক ভলান্টিয়ার মৃণাল হরিজনকে। তাঁকে ওয়াকিটকিতে খবর পাঠিয়ে দেওয়া হয়। ফলে খুব সহজেই ওই সিভিক ভলান্টিয়ার ধরে ফেলেন ছিনতাইকারীকে। তাকে তুলে দেওয়া হয় শেক্সপিয়র সরণি থানার পুলিসের হাতে। মোবাইল ফিরে পেয়ে খুশি ওই মহিলা। তিনি ধন্যবাদ জানান ট্রাফিক পুলিসকে। 


এর আগে ৮ নভেম্বরের ঘটনা। টালিগঞ্জ ট্রামডিপোর কাছে ডিউটি করছিলেন রিজেন্ট পার্ক ট্রাফিক গার্ডের সার্জেন্ট শিবরাম চক্রবর্তী। তখনই তিনি লক্ষ্য করেন, একটি ট্যাক্সি রাস্তার মাঝে দাঁড়িয়ে আছে। কাছে গিয়ে দেখেন, ট্যাক্সির মধ্যে থাকা এক মহিলা অঝোরে কেঁদে চলেছেন। কী হয়েছে? ওই মহিলা যা জানালেন, তা হল এইরকম। তিনি খড়্গপুর থেকে কলকাতায় নেমে একটি বাসে উঠেছিলেন। সঙ্গে ছিল ৬০ হাজার টাকা। আনোয়ার শাহ রোডে তিনি ব্যাগটি না নিয়েই বাস থেকে নেমে পড়েন। তারপরই ট্যাক্সি ধরেন বাসটিকে নাগালে পেতে। কিন্তু পারেননি। তারপরই তিনি অসুস্থ বোধ করে ট্যাক্সির মধ্যেই কান্নায় ভেঙে পড়েন। এরপরই আর দেরি না করে সার্জেন্ট যোগেযোগ করেন ওই রাস্তায় ডিউটি করা সার্জেন্টদের সঙ্গে। অবশেষে খবর আসে, বাসটিকে ধরা গেছে, পাওয়া গেছে ব্যাগটিও। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ব্যাগ উদ্ধার কাণ্ডে সময় লাগে আধ ঘণ্টা। 

কলকাতা ট্রাফিক পুলিস তাদের ফেসবুকে এই দুটি ঘটনা পোস্ট করেছে। শিরোনাম "পাশে আছি সাধ্যমতো।" পুলিসকে নিয়ে তো কত কথাই শোনা যায়। বিশেষত ট্রাফিক পুলিসের বিরুদ্ধে নানা সময় নানা অভিযোগ উঠেছে। এই দুটি ঘটনা যেন তারই জবাব।





All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us