ব্রেকিং নিউজ
High-Court-refuses-to-mediate-over-government-decision-to-help-puja-committee-financially
Puja: পুজো অনুদান মামলায় হস্তক্ষেপ করল না হাইকোর্ট, শর্তসাপেক্ষে রাজ্যকে স্বস্তি আদালতের

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-09-13 12:41:50


রাজ্যের ৪৩ হাজার পুজো কমিটিকে ৬০ হাজার টাকা অনুদানের (Puja Donation) সিদ্ধান্ত নিয়েছে মমতা সরকার। সেই সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় কলকাতা হাইকোর্টে (Calcutta High Court) জোড়া জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে। সেই মামলায় রাজ্যের সিদ্ধান্তে হস্তক্ষেপ করল না কলকাতা হাইকোর্ট। অর্থাৎ পুজো কমিটিগুলোকে ঘোষিত অনুদান দিতে আর বাধা রইল না নবান্নের। তবে পুজো অনুদান মামলায় কিছু শর্ত আরোপ করেছেন প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ।

মোট যে ছ'টি শর্ত আরোপ করেছে কোর্ট, তার মধ্যে অন্যতম অডিট রিপোর্ট জমা এবং পুজোর আয়-ব্যয় হিসেব রাজ্য সরকারের কাছে জমা দিতে হবে কমিটিকে। এই মামলার গত শুনানিতে রাজ্যের ঘোষিত পুজো অনুদানের বিরোধিতায় করা মামলায় রায়দান স্থগিত রেখেছিল কলকাতা হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে এই সংক্রান্ত দায়ের সব মামলার শুনানি হয়েছে। রাজ্যের পক্ষে সেদিন আদালতে দাখিল করা হয়েছে পুজো কমিটিগুলোকে ৬০ হাজার টাকা অনুদানের সরকারি বিজ্ঞপ্তি। সেই বিজ্ঞপ্তিতে এই অনুদানকে 'পুরস্কার হিসেবে অনুদান' প্রদান হিসেবে দেখানো হয়েছে। এবং এই সংক্রান্ত বরাদ্দ হয়েছে প্রয়োজনীয় অর্থ। সেটাও কোর্টকে জানিয়েছে মমতার সরকার।

এরপরেই এই বরাদ্দ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মামলাকারীদের আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য।তাঁর সওয়াল, 'যে শহরে ভিন্ন ধর্ম এবং ভাষাভাষী মানুষের বাস, সেখানে নির্দিষ্ট একটি সম্প্রদায়ের জন্য সরকার আর্থিক সাহায্য করতে পারে না। এটা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং সংবিধান বিরোধী। রাজ্যের মানুষের করের টাকা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এভাবে একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের মধ্যে টাকা বিলি করতে পারেন না। ২০২০সালে করোনা অতিমারীর জন্য পুজো কমিটিগুলোকে ৫০হাজার টাকা অনুদান দেওয়া হয়েছিল। তবে সেটা করোনা অতিমারীর জনসচেতনতা-সহ মাস্ক এবং স্যানিটাইজার বিলি করতে।'

আদালতকে স্মরণ করিয়ে দিতে বিকাশবাবু জানান, রাজ্যের মানুষের করের টাকায় ইমামদের দান-খয়রাতি জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করলেও আদালতের হস্তক্ষেপের কারণে সেটা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। সেখানেও একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের মানুষকে আর্থিক সুবিধা দিতে চেয়েছিল রাজ্য।

যুক্তি তুলে ধরে তাঁর সওয়াল ছিল, 'যেখানে বিভিন্ন ভাষাভাষী এবং বিভিন্ন ধর্মের মানুষের বসবাস। সেখানে একটি নির্দিষ্ট ধর্মের বা সম্প্রদায়ের মধ্যে অর্থ বিলি করা হলে সমাজে তাঁর বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়।মানুষের মধ্যে ভেদাভেদ তৈরি হয় যা অনুমোদন করে না সংবিধান।'






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন