ব্রেকিং নিউজ
Gold-looting-in-Girish-Park-unearth-worker-arrested-by-police
Gold: ডাকাতির প্লট সাজিয়েও শেষ রক্ষা হল না, অভিযাগকারী কর্মচারীই পুলিসের জালে

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-06-28 11:39:50


কথায় বলে, লোভে পাপ পাপে মৃত্যু। কাজ করত সোনার কারখানায়। কিন্তু চোখের সামনে এত সোনা দেখে লোভ সামলাতে পারেনি কর্মচারী নীতীশ। তারপরই তৈরি হয় গল্পের প্লট। কিন্তু শেষমেশ নিজের জালেই জড়িয়ে পড়ল সে। সোনা চুরির অপরাধে ধরা পড়ল সে। সঙ্গে পুলিসের জালে আরও এক।

পুলিস সূত্রে খবর, গিরিশ পার্ক থানার অন্তর্গত জোড়াসাঁকো আবাসনের এ ব্লকের ২৫ নম্বর ফ্ল্যাটে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। অভিযোগ দায়ের হয়। শুরু হয় তদন্ত। অভিযোগ, সোমবার সকাল ছ'টার সময় একটি ট্যাক্সি আসে। সেই ট্যাক্সি করেই আসে দুজন। তারাই ওই ফ্ল্যাটে ঢুকে কর্মীদের মারধর করে ৭টি ১১৬ গ্রামের সোনার বাঁট ও একটি ৭৪৩ গ্রামের সোনার বাট নিয়ে চম্পট দেয়। বাধা দিতে গেলে ওই সংস্থার কর্মী নীতীশকে মারধর করা হয়। এরপর সে থানায় অভিযোগ করে।

তদন্তে নেমে উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। জোড়াসাঁকো আবাসনের যে ফ্ল্যাট ভাড়া করা হয়েছিল, সেখানে সোনার ব্যবসা করা হত। মালিক থাকেন ওড়িশায়, নাম পারাস শাহ। তিনিই এখানে দুটি ফ্ল্যাট ভাড়া করেন। এখানে থাকতেন তাঁর কর্মচারীরা। সেই কর্মচারীদের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে সোনা কলকাতায় এনে তা গলিয়ে পাঠানো হত ওড়িশায়। সেই কর্মচারীদের মধ্যেই একজন ছিল নীতীশ।

কিন্তু এত সোনার লোভ সামলাতে না পেরে সেই ডাকাতির গল্পের প্লট তৈরি করে। সেই প্লট অনুযায়ী সে নিজেই সোনার বাট চুরি করে থানায় অভিযোগ দায়ের করে। কিন্তু তদন্তে নেমে পুলিস ওই বাড়ির নিরাপত্তারক্ষী এবং স্থানীয়দেক জিজ্ঞাসাবাদ করে। খতিয়ে দেখা হয় সিসিটিভি ফুটেজ। তাতেই প্রকৃত সত্য বেরিয়ে আসে। পুলিসের চাপে পড়ে ওই অভিযোগকারী কর্মচারীই স্বীকার করে, সোনা সরিয়েছে সেইই। এমনকী সে নিজেকেই নিজে জখম করেছিল। অবশেষে পুলিসের জালে ধরা পড়ে যায় নীতিশ। গ্রেফতার করা হয় তাকে। এছাড়া তাকে সহযোগিতা করার জন্য নীতিন রায়কে গতকাল রাতে গ্রেফতার করে পুলিস।

এরপর ধৃতদের গোপন ডেরা থেকে উদ্ধার করা হয় কোটি টাকার সোনা।






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন