০৫ মার্চ, ২০২৪

BJP: জাতীয় সঙ্গীত 'অবমাননা' মামলায় জোর ধাক্কা রাজ্যের! বিজেপি বিধায়কদের গ্রেফতারে 'না' হাইকোর্টের
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2023-12-04 16:47:40   Share:   

জাতীয় সঙ্গীত 'অবমাননা' মামলায় আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বিজেপি বিধায়কদের বিরুদ্ধে কোনও পুলিসি পদক্ষেপ করা যাবে না। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি জয় সেনগুপ্তের অন্তর্বর্তী নির্দেশে আপাতত স্বস্তিতে গেরুয়া শিবির। বিচারপতির পর্যবেক্ষণ, অন্য ধর্না আগে থেকেই চলছিল। পরে বিজেপি বিধায়করা স্লোগান দেওয়া শুরু করেন। জাতীয় সঙ্গীত শুনেও থামেনি এমন নয়। ফলে এদিন এই মামলায় রাজ্যকে বিচারপতির তীব্র ভর্ৎসনার মুখোমুখি হতে হয়। তাঁর পর্যবেক্ষণ, 'বিজেপি বিধায়কদের বিরুদ্ধে এফআইআর ছেলেমানুষি আচরণ।'

শাসক দলের দাবি, জাতীয় সঙ্গীত চলাকালীন স্লোগান দিয়েছিলেন বিজেপি বিধায়করা। আর বিজেপির দাবি, জাতীয় সঙ্গীতের কথা তাঁদের আগে থেকে জানানো হয়নি। আর এর থেকেই শুরু বিতর্ক। জাতীয় সঙ্গীতের অবমাননার অভিযোগ তুলে এফআইআরও দায়ের করা হয় বিজেপি বিধায়কদের বিরুদ্ধে। এর পর এই মামলা হাইকোর্ট পর্যন্ত পৌঁছলে বিধায়কদের গ্রেফতার না করার মৌখিক নির্দেশ দিলেন হাইকোর্টের বিচারপতি জয় সেনগুপ্ত। বিচারপতি জয় সেনগুপ্তের বক্তব্য, 'সাধারণ মানুষ কী ভাবছে? কয়েক লক্ষ টাকা খরচ করে মামলা করেছেন। কত ধর্ষণ মামলা, ক্রিমিনাল মামলা শুনানি হচ্ছে না এই ধরণের একটা ছেলেমানুষী মামলার জন্য।' 'স্লোগান হচ্ছিল দেখেও কি জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার দরকার ছিল? সবাই বসার পর শুরু করা যেত না? পর্যবেক্ষণ বিচারপতি জয় সেনগুপ্তের। বিজেপির বিরুদ্ধে এফআইআর, 'ছেলেমানুষি আচরণ' বললেন বিচারপতি।

বিচারপতির আরও পর্যবেক্ষণ, 'ধর্না কোনও অনুষ্ঠান নয়। মন্ত্রীরা থাকলেই কি জাতীয় সঙ্গীত গাইতে হবে নাকি? মন্ত্রী যদি পাঁচতারা হোটেল উদ্বোধনে যান সেখানেও কি জাতীয় সঙ্গীত গাইতে হবে? স্লোগান হচ্ছিল দেখেও কি জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার দরকার ছিল? সবাই বসার পর শুরু করা যেত না?' আবার ঘটনার দিনের ভিডিও দেখতে চান বিচারপতি। এছাড়াও বিচারপতি জয় সেনগুপ্ত জানিয়েছেন, এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন পুলিসকে কেস ডায়েরি নিয়ে আদালতে হাজির থাকতে হবে।


Follow us on :