৩০ মে, ২০২৪

Jhalda: 'হেরে যাওয়া দলের লোককে কেন চেয়ারম্যান নিয়োগ', পুরসভা-কাণ্ডে ফের হাইকোর্টে ধাক্কা রাজ্যের
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2023-01-20 18:39:19   Share:   

ঝালদা পুরসভা (Jhalda Municipality Row) নিয়ে হাইকোর্টে ফের ধাক্কা রাজ্যর। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ফের ঝালদা পুরসভায় চেয়ারম্যান বদল। এবার রাজ্যের নিয়োগ করা কাউন্সিলরকে সরিয়ে আপাতত পূর্ণিমা কান্দুকে ঝালদা পুরসভার চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ করল আদালত (Calcutta High Court)। এই মুহূর্তে ঝালদা পুরসভায় ভাইস চেয়ারম্যান কংগ্রেস কাউন্সিলর পূর্ণিমা কান্দু। জানা গিয়েছে, ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে এই মামলার পরবর্তী শুনানি। শুক্রবার এই নির্দেশ দেন বিচারপতি অমৃতা সিনহা। আস্থা ভোটে জিতে চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পাওয়া শীলা চট্টোপাধ্যায়ের কাউন্সিলর পদ খারিজ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে স্থগিতাদেশ দিয়েছে আদালত। পাশাপাশি এসডিও-র বিজ্ঞপ্তিতেও আগামি শুনানি পর্যন্ত স্থগিতাদেশ আদালতের। এমনটাই সূত্রের খবর।

জানা গিয়েছে, ১৮ জানুয়ারি ঝালদা পুরসভার চেয়ারম্যান শীলা চট্টোপাধ্যায়ের কাউন্সিলর পদ খারিজ করে সুদীপ কর্মকারকে চেয়ারম্যান পদে বসায় রাজ্য। এই দুটি সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে আদালতে দ্বারস্থ হয়েছিল কংগ্রেস শিবির। দু'পক্ষের সওয়াল-জবাব শুনে কোর্ট জোড়া সিদ্ধান্তের উপর অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। পাশাপাশি কংগ্রেস কাউন্সিলর পূর্ণিমা কান্দুকে চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ করেছে আদালত।

আদালতের প্রশ্ন, 'বারবার হেরে যাওয়া দলের লোককে কেন চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ করা হচ্ছে।' এদিন সংবাদ মাধ্যমকে জানান আইনজীবী কৌস্তভ বাগচি। তিনি জানান, আমরা এই পর্যবেক্ষণে খুশি। গণতান্ত্রিক মূল্যবোধকে মান্যতা দিয়েছে হাইকোর্ট। এ প্রসঙ্গে উল্লেখ্য, হাইকোর্টের এই অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশে কাউন্সিলর পদে বহাল থাকলেন শীলা চট্টোপাধ্যায়। পাশাপাশি রাজ্যের তরফে নিয়োগ করা ঝালদা পুরসভার কাউন্সিলর সুদীপ কর্মকার অপসারিত হয়েছেন।

২০২২-র পুর ভোটের পর থেকেই খবরে শিরোনামে পুরুলিয়ার এই শহর। সম্প্রতি হাইকোর্টের নির্দেশে আস্থা ভোটে জিতে ঝালদা পুরসভার চেয়ারম্যান পদে বসেন শীলা চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু এই নিয়োগের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই দলবিরোধী আইনে তাঁর কাউন্সিলর পদ খারিজ করে তৃণমূল কাউন্সিলর সুদীপ কর্মকারকে চেয়ারম্যান নিয়োগ করে রাজ্য।



Follow us on :