২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

ED: রেশন দুর্নীতিতে অভিযুক্ত শঙ্করের সঙ্গে 'ফোনে' যোগাযোগ বালুর! ইডির তদন্তে বিস্ফোরক তথ্য
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2024-01-23 11:49:37   Share:   

রেশন বন্টন দুর্নীতিতে ইডির জালে ধরা পড়েছিলেন বনগাঁ পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান শঙ্কর আঢ্য। তারপর থেকেই ইডির তদন্তে একাধিক বিস্ফোরক তথ্য উঠে আসছে শঙ্করের বিরুদ্ধে। প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের ঘনিষ্ঠমহলের তালিকাতেও মেলে শঙ্কর আঢ্যের নাম। শঙ্করের নেপথ্য কাহিনী জানার জন্য যুদ্ধকালীন তৎপরতায় তদন্ত শুরু হয় ইডির। এমনকি তাঁর পরিবারের সদস্যদেরও বারবার তলব করেন ইডি আধিকারিকরা। এবার শঙ্করে আঢ্যের ভাই মলয় আঢ্যকে চতুর্থবারের জন্য তলব করল ইনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট।

প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের কল ডিটেইলস থেকে প্রাপ্য তথ্যের ভিত্তিতে জানা গিয়েছে, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক প্রায়শই ফোনের মাধ্যমে শঙ্কর আঢ্যের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন। শঙ্কর আঢ্য এবং তাঁর ছেলে শুভ আঢ্য একটি বিদেশি কোম্পানির মালিক। কোম্পানির নাম এস.বি.আর.এম জেনারেল ট্রেডিং। সূত্রের খবর, এই কোম্পানিটি দুবাই-এ অন্তর্ভুক্ত। তবে এই কোম্পানির মাধ্যমে কতখানি দুর্নীতি হয়েছে সেই বিষয়ে এখনও তদন্ত চলছে।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে মারকুইস স্ট্রিটের ফরেক্স কোম্পানিতে ইডির তল্লাশি অভিযানে উদ্ধার হওয়া প্রায় সাড়ে ৮ লক্ষ টাকা 'নিজের' বলে দাবি করেন বালু ঘনিষ্ঠ শঙ্কর। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হতেই শঙ্করের সাফ জবাব, ওই টাকা আমার কারেন্সি। তবে তদন্তের স্বার্থে পরিবারকে ইডির জিজ্ঞাসাবাদ প্রসঙ্গ সুকৌশলে এড়ালেন শঙ্কর। ইডি তদন্তের স্বার্থে যাকে খুশি তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারে বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, শঙ্কর আঢ্যের একাধিক ঘনিষ্ঠ ব্যক্তির বাড়ি ও অফিসেও হয়েছে তল্লাশি অভিযান। জানা গিয়েছে, শঙ্কর আঢ্য ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের মালিকানাধীন ৬টি বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময় সংস্থাও রয়েছে, যে সংস্থা গুলি থেকে সাড়ে ৮ লক্ষ টাকা সহ একাধিক নথি বাজেয়াপ্ত করেছে ইডি। মূলত, ওই বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময় সংস্থা মারফত রেশন দুর্নীতির কোটি কোটি কালো টাকা সাদা করার কারবার চালাত শঙ্কর, দাবি ইডির। বাজেয়াপ্ত যাবতীয় সেই নথি ও তথ্যপ্রমাণ আদালতে পেশ করার পরবর্তী সময়ে রেশন বন্টন দুর্নীতির রহস্য কোন দিকে মোড় নেয়, জবাব দেবে সময়।


Follow us on :