ব্রেকিং নিউজ
Allegedly-the-body-went-to-the-PG-in-the-face-of-the-cremation-at-Keoratala
Netajinagar: কেওড়াতলায় সত্কারের মুখেই পুলিসে অভিযোগ, মৃতদেহ গেল পিজিতে

Post By : সিএন ওয়েবডেস্ক
Posted on :2022-05-28 12:24:11


ছেলের মৃত্যুতে (death) অভিযুক্ত বাবা ও মা। কিন্তু কেন এত বড় অভিযোগ? ভেবেই কুলকিনারা পাচ্ছেন না মা ও বাবা।

স্নেহাংশু সেনগুপ্ত। বছর ১৭ এর ফুটফুটে ছেলে। পড়াশোনার জন্য প্রায় ৩ বছর ধরে থাকত একটি হস্টেলে। ১১ তারিখ হঠাত্ খবর, ছেলের শারীরির অবস্থার অবনতি হয়েছে। তড়িঘড়ি তাকে বাঙুর হাসপাতালে (Bangur Hospital) ভর্তি করা হয়। তারপর ২০ তারিখ চিত্তরঞ্জন হাসপাতালে (Chittyaranjan Hospital) স্থানান্তরিত করা হয়। শুক্রবার, ২৭ তারিখ মারা যায় সে। সেদিন কেওড়াতলা শ্মশানে মরদেহ পোড়াতে গেলে, পিসতুতো দিদি অভিযোগ করেন, তাকে তাঁর বাবা শিশিরকুমার সেনগুপ্ত ওষুধের ওভারডোজ দিয়ে মেরে ফেলেছেন। কারণ, শিশিরবাবুর দ্বিতীয় বিয়ে। এরপর থেকেই ছেলেকে খুব অত্যাচার (Torture) করতেন তাঁরা। মৃত্যুর ঘটনায় নেতাজিনগর থানায় (Natajinagar Police Station) অভিযোগ দায়ের করেন তাঁরা। পুলিসের তত্পরতায় কেওড়াতলা থেকে মরদেহ পিজি হাসপাতালের মর্গে নিয়ে যাওয়া হয়। আজ ময়নাতদন্ত হবে।

অন্যদিকে এই অভিযোগের পর স্নেহাংশুর সৎ মা রূপশ্রী সেনগুপ্ত জানান, তাঁর ছেলের স্নায়ু রোগ ছিল। তবে কোনও ওষুধ খেত না সে। যত্ন ও আদর করেই দুই ভাই-বোনকে বড় করেছেন। এই অভিযোগ সম্পূর্ণই মিথ্যা।

কিন্তু কেন এত বড় অভিযোগ? উত্তরে বাবা শিশিরবাবু জানান, তাঁর বোন ছেলেকে নিয়ে নিতে চাইতেন। নানা কুমন্ত্রণাও দিতেন। বোনের কুপরামর্শেই ছেলে বাড়িতে প্রচণ্ড অশান্তি করত। এমনকি বোনকেও মারত। শিশিরবাবু এখন কিছু করেন না। কোনও রোজগার নেই। আগে সৌদি আরবে ম্যানেজার পদে ছিলেন। ২০১৪ সালে প্রথম স্ত্রী মারা যান। তারপর রূপশ্রীকে বিয়ে করেন তিনি। শুক্রবারের ঘটনার পর ছেলেকে না পাওয়ায় তাঁর বোনের এই অভিযোগ।

পাশাপাশি স্নেহাংশুর দিদি শ্রীপর্ণার বক্তব্য, তাঁর মা মারার যাওয়ার পর ২ বছরের জন্য ওরা পিসির বাড়িতে মানুষ হয়েছিল। ভাইয়ের মৃত্যু নিয়ে তার পিসি যা অভিযোগ করছে, সব মিথ্যা। ওই দুবছরে বিদেশ থেকে শিশিরবাবু ২২ হাজার টাকা করে পাঠিয়েছিলেন পিসিকে। কখনও হাতে দিয়েছেন নগদ, তো আবার কখনও চেকে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু শ্রীপর্ণার দাবি, তাদেরকে বলা হত, তার বাবা তাদের জন্য কোনও টাকা পাঠাতেন না।

শিশিরবাবু প্রশ্ন, সেইসময় তাঁর বোন স্নেহাংশুকে মানসিক রোগের ডাক্তার দেখিয়েছিলেন। কিন্তু কেন?






All rights reserved © 2021 Calcutta News   Home | About | Career | Contact Us

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন