২৪ জুন, ২০২৪

Fraud: রেলের এইচআর পরিচয়ে চাকরি দেওয়ার নামে আর্থিক প্রতারণা, বাগুইআটিতে গ্রেফতার মহিলা
CN Webdesk      শেষ আপডেট: 2022-11-05 18:03:36   Share:   

রেলের উচ্চপদস্থ আধিকারিকের পরিচয়ে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নামে একাধিক ব্যক্তির থেকে লক্ষাধিক টাকা প্রতারণার (fraud) অভিযোগ। ঘটনায় গ্রেফতার (arrest) এক। শহর কলকাতায় (kolkata) এমন ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। শনিবার বাগুইআটি (Baguihati) এলাকা থেকে এক মহিলাকে গ্রেফতার করে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম (Bidhannagar Cyber ​​Crime) থানার পুলিস।

পুলিস সূত্রে খবর, ভামৌর জানা নামের ওই মহিলা নিজেকে রেল দফতরের এইচআর বলে পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ করতেন। এরপরই তাঁদের রেলের বিভিন্ন পদে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিতেন এই মহিলা। তাঁদের থেকে ধাপে ধাপে লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিতেন। কিছুদিন আগেই অভিযোগ পেয়ে এই ঘটনার তদন্ত শুরু করে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিস।

সেই সূত্র ধরেই নাম উঠে আসে অভিযুক্ত এই মহিলার। এরপরই শুক্রবার রাতে বাগুইহাটি এলাকা থেকে ধৃত মহিলাকে গ্রেফতার করে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিস। শনিবার অভিযুক্তকে বিধাননগর আদালতে তোলা হলে পুলিস নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানায়। পাশাপাশি এই চক্রের অন্যদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিস।

এদিকে, কলকাতা সংলগ্ন সেক্টর ফাইভে শেয়ার মার্কেটে টাকা খাটানোর নাম করে আর্থিক প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার ২ জন। বিভিন্ন জেলার বিভিন্ন প্রান্তের সাধারণ মানুষ প্রতারিত হয়েছেন বলেই অভিযোগ। জানা যায়, শুক্রবার গভীর রাতে সেক্টর ফাইভ অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখায় শতাধিক প্রতারিত ব্যক্তি। এরপরই খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বিধান নগর ইলেকট্রনিক্স কমপ্লেক্স থানার পুলিস এসে ওই অফিস থেকে স্বর্ণেন্দু জানা ও সুদীপ্ত জানা নামে দুজনকে গ্রেফতার করে।

অভিযোগ ওঠে, মার্জিন ট্রেডিং ফান্ড নামে সল্টলেক সেক্টর ফাইভে কোম্পানি খুলে শেয়ার মার্কেটে টাকা খাটানোর নাম করে প্রতারণা করছিলেন ধৃতরা। এই কোম্পানিতে প্রায় ৫০ জন এজেন্ট কাজ করতেন। সাধারণ মানুষের থেকে প্রায় ২০০০ টাকা করে নেওয়া হয়েছিল। দীর্ঘদিন হয়ে যাওয়ায় টাকা না পেয়ে কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করতে গেলেও কোনওভাবে যোগাযোগ করা যাচ্ছিল না। এরপরই শুক্রবার গভীর রাতে বিভিন্ন জেলা বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রতারিতরা একত্রিত হয়ে সেক্টর ফাইভের ওই অফিসের সামনে এসে বিক্ষোভ দেখায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে বিধান নগর ইলেকট্রনিক্স কমপ্লেক্স থানার পুলিস। সেই সময় অফিসের মধ্যে ছিল দুজন তাঁদেরকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় পুলিস।

পুলিস সূত্রে খবর, প্রায় ৩২ কোটি টাকার প্রতারণা হয়েছে। এই কোম্পানির আড়ালে বড়সড় প্রতারণা চক্র কাজ করছে বলেই অনুমান। তবে শহর কলকাতায় একের পর এক আর্থিক তছরুপে আতঙ্কিত শহরবাসী। 


Follow us on :