সেনাপ্রধানকে হত্যার ভয়ঙ্কর বদলার হুমকি খোমেইনির

0
5795

অবিলম্বে আমেরিকানদের ইরাক থেকে চলে আসার জন্য নির্দেশ দিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। শুক্রবার ভোরে বাগদাদ বিমানবন্দরে ইরানের সেনাপ্রধান কাশেম সোলেমানিকে মার্কিন সেনা হত্যা করার পর ইরানের আয়াতুল্লা খোমেইনি ঘোষণা করেছেন, এর ভয়ঙ্কর বদলা নেবে তাঁর দেশ। অন্যদিকে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশেই মার্কিন সেনা কাশেমকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পেন্টাগন। মার্কিন কংগ্রেসের কোনও অনুমোদন ছাড়াই এই হামলার নির্দেশ দেওয়ায় ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সরব তাঁর বিরোধীরা। তারা এখনই কংগ্রেসের পূর্ণাঙ্গ অধিবেশন ডাকার দাবি তুলেছেন। নিন্দা করেছে রাশিয়া, চিনও।
শুক্রবার ভোরে বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন সেনার রকেট হামলায় সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। তার মধ্যেই কাশেম সোলেমানি ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। কাশেম ইরানের কুদ গার্ডের শীর্ষে ছিলেন এবং তিনি ছিলেন সরাসরি আয়াতুল্লা খোমেইনির অধীনে। দেশবাসীর চোখে তিনি ছিলেন একজন হিরো। ফলে ফের মধ্যপ্রাচ্য অশান্ত হবে এমনটাই আশঙ্কা তথ্যাভিজ্ঞ মহলের। একইসঙ্গে মৃত্যু হয়েছে ইরানের মদতপুষ্ট পপুলার মোবিলাইজেশন ফোর্সের ডেপুটি কম্যান্ডার আবু নাহদি আল-মহান্দিজেরও। নিউ ইয়ারের আগের রাতে মার্কিন দূতাবাসে হামলা চালায় ইরানি সেনা। বুধবার এই হামলা শেষ হওয়ার পর ট্রাম্প ২৫০ মার্কিন সেনাকে সেখানে মোতায়েন করেছেন। শুক্রবারের এই ঘটনার পরই ট্রাম্প একটি মার্কিন পতাকার ছবি টুইট করেছেন। ইতিমধ্যেই এই মার্কিন হানার পর বিশ্বের তেলের দাম ৪ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে। রবিবার ইরাকের ২৫ জন ইরানের মদতপুষ্ট সেনাকে হত্যা করেছে মার্কিন সেনা। ইরাকের এক সেনাঘাঁটিতে এক মার্কিন ঠিকাদারকে হ্ত্যার এটা বদলা।